Amardesh
আজঃঢাকা, সোমবার ২০ জানুয়ারি ২০১৩, ৭ মাঘ ১৪২০, ১৮ রবিউল আউয়াল ১৪৩৫ হিজরী    আপডেট সময়ঃ রাত ১২.০০টা
 
 সাধারণ বিভাগ
 বিশেষ কর্ণার
 শোক ও মৃত্যুবার্ষিকী
 সাপ্তাহিকী
 
আবহাওয়া
 
 
আর্কাইভ: --
 

রান্না : শীতের পিঠা-পায়েস

« আগের সংবাদ
পরের সংবাদ»
জেঁকে বসেছে শীত। শীতকাল মানেই পিঠা-পায়েসের মহোত্সব । শীতের সকালে পিঠা-পায়েস খেতে কার না ভালো লাগে।
গ্রামে কি শহরে সবখানে এখন পিঠা উত্সব চলছে। নতুন
ধানের চালগুঁড়ি আর খেজুর রস দিয়ে বানানো রসালো
পিঠা ছোট-বড় সবার পছন্দের। খেজুরের গুড় বা
রস আর নতুন চাল দিয়ে তৈরি করুন মজাদার
পিঠাপুলি। তাই এবারের আয়োজন থাকছে
শীতকালীন পিঠা-পায়েসের রেসিপি দিয়ে ছবি ও
রেসিপি পাঠিয়েছেন—মনিরা আক্তার
নকশি পিঠা
উপকরণ : চালের গুঁড়া আধা কাপ, লবণ আধা চামচ, নারকেল তিন চা-চামচ, সুজি ১ কাপ, চিনি ৪ চা-চামচ, গরম পানি ১ কাপ, তেল পরিমাণমত।
প্রণালি : পানি গরম করে সব উপকরণ দিন। শক্ত ভো তৈরি করুন। মোটা রুটি বেলে খেজুর কাঁটা অথবা টুথপিক দিয়ে আচরে নিজের পছন্দমত নকশা করে নিন। চুলায় পাত্র দিয়ে তেল দিন। তেল গরম হলে ডুবো তেলে পিঠাগুলো ভেজে নিন। এই পিঠা ৭-৮ দিন রেখে খাওয়া যায়।
দুধ চিতই
উপকরণ : দুধ দুই লিটার, খেজুরের গুড় আধা কেজি, চালের গুঁড়া আধা কেজি, এলাচি ও দারুচিনি তিনটি করে, এক বাটি নারিকেল কোরানো।
প্রণালী : দুই লিটার দুধ জ্বাল দিয়ে ঘন করে রাখুন। এখন খেজুরের গুড়টুকু এক লিটার পানিতে গুলিয়ে চওড়া হাঁড়িতে রেখে নারিকেল, এলাচি ও দারুচিনি দিয়ে ১০ মিনিট ফুটিয়ে রাখুন। অতঃপর ছোট ছোট চিতই পিঠা বানিয়ে গরম গরম খেজুরের গুড়ের রসে ভিজিয়ে দিন। রস ঠাণ্ডা হলে তাতে ঘন দুধটুকু দিয়ে ভালো করে দুধ ও রস মেশাবেন। যাতে পিঠা ভেঙে না যায়। ৪-৫ ঘণ্টা পর পিঠা ফুলে উঠলে তা পরিবেশন করতে পারেন।
ক্ষীর পাটি সাপটা পিঠা
উপকরণ : দুধের ক্ষীর এক বাটি, চালের গুঁড়া দেড় বাটি, আটা/ময়দা এক বাটি, খেজুরের গুড় আধা কেজি, ডিম একটা, তেল সামান্য, তুলা অল্প।
প্রণালী : চালের গুঁড়ার সঙ্গে একটা ডিম ও গুড় পানিতে গুলিয়ে তা কুসুম গরম অবস্থায় চালের গুঁড়া ও আটা মিশিয়ে পাতলা করে একটি মিশ্রণ তৈরি করুন। এখন ফ্রাইপ্যানটি তুলায় তেল দিয়ে ভিজিয়ে তাতে এক ডালের চামচ মিশ্রণটি দিন ও মাঝখানে ক্ষীর দিয়ে পাটি সাপটা পিঠা বানিয়ে পরিবেশন করুন। এভাবে এক এক করে পাটি সাপটা পিঠা বানিয়ে পরিবেশন করুন।
দুধ কুলি
উপকরণ : ঘন দুধ এক লিটার, চালের গুঁড়া আধা কেজি, খেজুরের গুড় ৬০০ গ্রাম, তেজপাতা ২টা, এলাচি ৩টা, দারুচিনি ৩ টুকরা, নারিকেল এক বাটি।
প্রণালী : দেড় কাপ পানিতে দুই কাপ চালের গুঁড়া সেদ্ধ করে রাখুন। ২০০ গ্রাম গুড় দিয়ে নারিকেলটুকু পাকিয়ে তা দিয়ে ছোট ছোট কুলি পিঠা বানিয়ে রাখুন। এখন বাকি গুড়ে এক কেজি পানি দিয়ে রস তৈরি করুন। এখন বানানো কুলি পিঠাগুলো রসে দিয়ে কতক্ষণ চুলায় জ্বাল করুন এবং ঘন দুধ দিয়ে আরও কিছুক্ষণ জ্বাল দিন। কুলি পিঠা সেদ্ধ হলে নামিয়ে পরিবেশন করুন অথবা ঠাণ্ডা হলেও পরিবেশন করতে পারেন।
পায়েস
উপকরণ : পোলাও চাল ১ কাপ (ভেজানো), দুধ ২ লিটার, খেজুরের রস দুই-তিন লিটার, নারকেল কোরা ১ কাপ, তেজপাতা ২-৩টি, দারচিনি ৩ টুকরা, কিশমিশ ২ টেবিল-চামচ, বাদাম কুচি ১ টেবিল-চামচ, লবণ খুব সামান্য ও পানি পরিমাণমতো।
প্রণালী : প্রথমে দুধ ফুটিয়ে দুই লিটার থেকে ঘন করে এক লিটার করতে হবে। এরপর খেজুর রসে চাল ধুয়ে দিতে হবে। তাতে তেজপাতা, দারচিনি, লবণ দিয়ে মৃদু আঁচে ভালো করে সেদ্ধ করে নিতে হবে। চাল সেদ্ধ হয়ে ঘন হলে তাতে নারকেল দিয়ে নামিয়ে নিতে হবে। এরপর পায়েস ঠাণ্ডা হয়ে এলে ঘন দুধ দিয়ে নাড়তে হবে। খাওয়ার আগে বাদাম ও কিশমিশ দিয়ে পরিবেশন করুন রসের পায়েস।ুং