Amardesh
আজঃঢাকা, বৃহস্পতিবার ১৫ আগস্ট ২০১৩, ৩১ শ্রাবণ ১৪২০, ৭ সাওয়াল ১৪৩৪ হিজরী    আপডেট সময়ঃ রাত ১২টা
 
 সাধারণ বিভাগ
 বিশেষ কর্ণার
 শোক ও মৃত্যুবার্ষিকী
 সাপ্তাহিকী
 
আবহাওয়া
 
 
আর্কাইভ: --
 

কাতারে প্রবাসী বাংলাদেশীদের ঈদ উত্সব

« আগের সংবাদ
পরের সংবাদ»
কাতার প্রবাসী বাংলাদেশীদের সংগঠন আলনূর কালচারাল সেন্টার বিভিন্ন আয়োজন ও উত্সবের মধ্য দিয়ে এবারের ঈদুল ফিতর উদযাপন করেছে। এসবের মধ্যে ছিল কাতারে বাংলাদেশী রাষ্ট্রদূত আয়োজিত ঈদ অনুষ্ঠানে যোগদান, কাতারের হাসপাতালে বাংলাদেশী রোগীদের শয্যাপাশে অবস্থান ও কুশল বিনিময় এবং প্রবাসীদের জন্য পিকনিক আয়োজন।
৯ আগস্ট আয়োজিত কাতারে বাংলাদেশী রাষ্ট্রদূতের ঈদ পার্টিতে উপস্থিত ছিলেন আলনূর নেতারা। তারা রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে ঈদ শুভেচ্ছা বিনিময় করেন এবং রাষ্ট্রদূতের আন্তরিক আতিথেয়তার জন্য কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন আলনূর কালচারাল সেন্টারের নির্বাহী পরিচালক মাওলানা ইউসুফ নূর ও বোর্ড সদস্য এমএ বাকের।
গত ১১ আগস্ট কাতারের কেন্দ্রীয় হাসপাতাল হামাদ জেনারেল হাসপাতালে গিয়ে সেখানাকার বিভিন্ন ওয়ার্ডে ভর্তি ও চিকিত্সাধীন বাংলাদেশী রোগীদের সঙ্গে সাক্ষাত্ এবং ঈদ শুভেচ্ছা বিনিময় করেছে আলনূর সেন্টারের প্রতিনিধি দল। সেন্টারের নির্বাহী পরিচালক মাওলানা ইউসুফ নূর, বোর্ড সদস্য মাওলানা আহসান উল্লাহসহ অন্য সদস্যরা এ সময় উপস্থিত ছিলেন। তারা স্বদেশী রোগীদের খোঁজ-খবর নেন এবং সহমর্মিতা প্রকাশ করেন। হাসপাতালের অসুস্থ রোগী ও তাদের স্বজনরা এ সময় প্রতিনিধি দলকে তাদের এমন মহতী উদ্যোগের জন্য কৃতজ্ঞতা জানান। পরে রোগীদের আশু আরোগ্য কামনা করে মোনাজাত পরিচালনা করে মাওলানা আহসান উল্লাহ।
একই দিন সন্ধ্যায় কাতারের রাজধানী দোহায় অবস্থিত নয়নাভিরাম দাহলুল হামাম গার্ডেনে প্রবাসীদের জন্য ঈদ পিকনিক আয়োজন করে আলনূর কালচারাল সেন্টার। কর্মব্যস্ত প্রবাসী পরিবার ও অন্যদের জন্য এ আয়োজনটি ছিল প্রাণোচ্ছল এবং হাসি-আনন্দে মুখরিত। পিকনিকে ফুটবল, ব্যাডমিন্টন, ক্যারাম বোর্ড খেলাসহ দৌড় প্রতিযোগিতা এবং শিশুদের জন্যও নানাবিধ আনন্দের আয়োজন করা হয়। প্রচণ্ড গরম উপেক্ষা করে মধ্যরাত পর্যন্ত এ আনন্দ উত্সব অব্যাহত ছিল। এ ঈদ পিকনিকের বিভিন্ন পর্বের আয়োজন ও তত্ত্বাবধানে ছিলেন মাওলানা বিনইয়ামীন, রবিউল ইসলাম, মাওলানা নুরুল্লাহ, সাদ আহমদ, হাফেজ লোকমান প্রমুখ।
নারীদের জন্যও ছিল বিশেষ আয়োজন। দায়িত্বে ছিলেন উম্মে আম্মার, নাজমা নূর ও লুত্ফুন্নাহার ইউসুফ। বিজ্ঞপ্তি