হরতালেও সেন্টমার্টিন দ্বীপে পর্যটকের ঢল

টেকনাফ (কক্সবাজার) প্রতিনিধি « আগের সংবাদ
পরের সংবাদ» ১৪ আগস্ট ২০১৩, ২৩:০৫ অপরাহ্ন

জামায়াতের দ্বিতীয় দিনের টানা হরতাল সত্ত্বেও ছন্দপতন ঘটেনি টেকনাফের পর্যটন শিল্পে। ৯ আগস্ট ঈদুল ফিতরের পর দিন থেকে উল্লেখযোগ্য সংখ্যক দেশি-বিদেশি পর্যটক-শিক্ষার্থী টেকনাফে আসা শুরু করে তা বর্তমানেও অব্যাহত রয়েছে। পর্যটকদের জন্য গত ১০ আগস্ট থেকেই টেকনাফ-সেন্টমার্টিন দ্বীপ নৌ-পথে পর্যটকবাহী জাহাজ কেয়ারী সিন্দাবাদ ও ১১ আগস্ট থেকেই কেয়ারী ক্রুজ চলাচল শুরু হয়।
জামায়াতের ডাকা টানা দ্বিতীয় দিনের হরতালের কারণেও পর্যটকবাহী জাহাজ চলাচল বন্ধ হয়নি।
জাহাজের টেকনাফ অফিস ইনচার্জ মো. আলম জানান, প্রথম দিন ৩৫০ জন পর্যটক নিয়ে পর্যটকবাহী জাহাজ কেয়ারী সিন্দাবাদ দমদমিয়ার নিজস্ব জেটিঘাট দিয়ে অনানুষ্ঠানিকভাবে যাত্রা শুরু করে। পর দিন থেকে পর্যটকবাহী জাহাজের বহরে যুক্ত হয় কেয়ারী ডাইন ক্রুজ। এরপর থেকে জাহাজ দুটি প্রতিদিন ৭ শতাধিক যাত্রী আনা-নেয়া করছে। ১৩ ও ১৪ আগস্ট জামায়াতের ডাকা হরতালের প্রথম ও দ্বিতীয় দিনে ওই ধারাবাহিকতার ছন্দপতন হয়নি।
তিনি জানান, প্রত্যুষেই সেন্টমার্টিন দ্বীপ ভ্রমণকারী পর্যটক-শিক্ষার্থীরা রিজার্ভ গাড়িযোগে টেকনাফ পৌঁছে। ঈদের আনন্দকে স্মরণীয় করে রাখতে দেশি-বিদেশি পর্যটক-শিক্ষার্থীরা দলে দলে সেন্টমার্টিন দ্বীপ ভ্রমণে আসছে। পুলিশের পক্ষ থেকে যথেষ্ট নিরাপত্তা ব্যবস্থা রয়েছে জানা গেছে।

শেষের পাতা এর আরও সংবাদ

সাপ্তাহিকী


উপরে

X