Amardesh
আজঃঢাকা, বৃহস্পতিবার ১৫ আগস্ট ২০১৩, ৩১ শ্রাবণ ১৪২০, ৭ সাওয়াল ১৪৩৪ হিজরী    আপডেট সময়ঃ রাত ১২টা
 
 সাধারণ বিভাগ
 বিশেষ কর্ণার
 শোক ও মৃত্যুবার্ষিকী
 সাপ্তাহিকী
 
আবহাওয়া
 
 
আর্কাইভ: --
 

সালথায় আ.লীগ হাতিয়ায় বিএনপির দু’গ্রুপসহ বিভিন্ন স্থানে সংঘর্ষে আহত শতাধিক : মির্জাগঞ্জে যুবদল নেতাকে কুপিয়ে জখম

ডেস্ক রিপোর্ট
« আগের সংবাদ
পরের সংবাদ»
ফরিদপুরের সালথা উপজেলার বল্লভদীতে আওয়ামী লীগের দু’গ্রুপের মধ্যে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে কমপক্ষে ২০ জন আহত হয়েছে। গতকাল সন্ধ্যায় নোয়াখালীর হাতিয়া উপজেলায় নবগঠিত বিএনপির অভিষেক ও পূর্ণাঙ্গ কমিটির সভায় দু’গ্রুপের সংঘর্ষে অন্তত ১৮ জন আহত হয়েছে। মাদারীপুরে এক গৃহবধূর মৃত্যুকে কেন্দ্র করে গতকাল নিহতের বাবার বাড়ি ও শ্বশুরবাড়ির লোকজনের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে। ময়মনসিংহের ফুলবাড়ীয়ায় পৃথক ঘটনায় দু’পক্ষের সংঘর্ষে কমপক্ষে ৩৫ জন আহত হয়েছে। মির্জাগঞ্জে যুবদল নেতাকে কুপিয়ে জখম করেছে প্রতিপক্ষের লোকজন। আমাদের প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর :
সালথায় আ.লীগের দু’গ্রুপে সংঘর্ষ, আহত ২০ : ফরিদপুরের সালথা উপজেলার বল্লভদীতে আওয়ামী লীগের দু’গ্রুপের মধ্যে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে কমপক্ষে ২০ জন আহত হয়েছে। এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, এলাকায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে সালথা উপজেলা আওয়ামী লীগ সহ-সভাপতি কাজী দেলোয়ার হোসেনের সমর্থকদের সঙ্গে বল্লভদী ইউনিয়ন
আ.লীগ সাধারণ সম্পাদক খন্দকার সাইফুর রহমান শাহিনের সমর্থকদের মধ্যে গতকাল সকালে দু’ঘণ্টাব্যাপী সংঘর্ষ হয়। উভয় গ্রুপই বিভিন্ন দেশি অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে বল্লভদী পুরানভিটা নামক স্থানে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। সালথা থানা পুলিশ এসে সংঘর্ষ নিয়ন্ত্রণে আনে। এ সংঘর্ষে উভয়পক্ষের অন্তত ২০ জন আহত ও কয়েকটি বাড়িঘর ভাংচুর হয়েছে। আহতদের মধ্যে আবুল কাজী (৩৫), ময়ূর কাজী (৪০), সরোয়ার মুন্সি (২৪), ইকরাম (৪০), আজিজল (৩৫) এবং সাজ্জাদের (১৮) অবস্থা আশঙ্কাজনক। আহতদের নগরকান্দা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স, মুকসুদপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এবং ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। সালথা থানার ওসি আফছার উদ্দিন আহমেদ বলেন, এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। পরিস্থিতি এখন পুলিশের নিয়ন্ত্রণে।
হাতিয়ায় বিএনপির দু’গ্রুপে সংঘর্ষ : গতকাল সন্ধ্যায় নোয়াখালীর হাতিয়া উপজেলায় নবগঠিত বিএনপির অভিষেক ও পূর্ণাঙ্গ কমিটির সভায় দু’গ্রুপের সংঘর্ষে অন্তত ১৮ জন আহত হয়েছে। এ সময় উত্তেজিত কর্মীরা অফিসের আসবাবপত্র ও ৩৯টি মোটরসাইকেল ভাংচুর করে। ঘটনাটি ঘটে নবগঠিত উপজেলা বিএনপি সভাপতির ওসখালী মাস্টাপাড়ার বাড়িতে।
সূত্র জানায়, চিঠির মাধ্যমে বুধবার হাতিয়া উপজেলা নবগঠিত বিএনপির অভিষেক ও পূর্ণাঙ্গ কমিটির সভা আহ্বান করা হয়। কিন্তু গত কমিটির আহ্বায়ক ও নবগঠিত উপজেলা বিএনপি কমিটির সমন্বয়ক সাখাওয়াত হোসেন শওকতকে এবং তার সমর্থকদের কাউকে গতকালের সভায় আমন্ত্রণ জানানো হয়নি। সাখাওয়াত হোসেন তার কর্মী-সমর্থকদের নিয়ে সভায় উপস্থিত হলে সেখানে উপস্থিত আকতার হোসেন জুয়েল, আবদুল হালিম আজাদ ও বাহার উদ্দিন ওরফে বাবুর্চি বাহারের নেতৃত্বে একটি গ্রুপ তাদের ওপর হামলা করে। এক পর্যায়ে উভয় গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ বাধে। এ সময় বিক্ষুব্ধ কর্মীরা অফিসের আসবাবপত্রসহ ৩৯টি মোটরসাইকেল ভাংচুর করে। উভয় গ্রুপের সংঘর্ষে অন্তত ১৮ জন আহত হয়েছে।
মাদারীপুরে গৃহবধূর মৃত্যুতে ব্যাপক সংঘর্ষ : মাদারীপুর সদর উপজেলার কেন্দুয়া ইউনিয়নের শ্রীনাথদী গ্রামের গৃহবধূ অঞ্জলি বেগমের মৃত্যুকে কেন্দ্র করে গতকাল বিকালে ঢাকা-বরিশাল মহাসড়কের সমাদ্দার ব্রিজের কাছে নিহতের বাবার বাড়ি ও শ্বশুরবাড়ির লোকজনের মধ্যে সংঘর্ষ বাধে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলে উভয় গ্রুপ পুলিশের ওপর হামলা চালায়। এ সময় পুলিশের অস্ত্র ও ওয়্যারলেস ছিনিয়ে নেয়ার চেষ্টা করলে ঘটনাস্থলে পুশিলসহ ৫ জন আহত হয়।
পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, মাদারীপুর সদর উপজেলার গাজীরচর গ্রামের মৃত করিম বেপারীর মেয়ে অঞ্জলির সঙ্গে পার্শ্ববর্তী শ্রীনাথদী গ্রামের মৃত মন্নান ফকিরের ছেলে শামসুল ফকিরের বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে যৌতুকের দাবিতে নানা সময় অঞ্জলিকে নির্যাতন করত শ্বশুরবাড়ির লোকজন। স্থানীয়রা মঙ্গলবার রাতে ঘরের আড়ার সঙ্গে অঞ্জলির ঝুলন্ত লাশ দেখতে পেয়ে পুলিশকে খবর দেয়। রাতেই পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধার করে মাদারীপুর মর্গে পাঠায়।
ছেলেপক্ষের দাবি অঞ্জলি আত্মহত্যা করেছে। অপরদিকে মেয়েপক্ষের দাবি অঞ্জলিকে হত্যা করে ঘরের আড়ার সঙ্গে ঝুলিয়ে রেখেছে অঞ্জলির স্বামীর বাড়ির লোকজন।
এদিকে গতকাল বিকালে মাদারীপুর সদর হাসপাতাল মর্গ থেকে অঞ্জলির লাশ এলাকায় নিয়ে গেলে নিহতের বাবার বাড়ি ও শ্বশুরবাড়ির লোকদের মধ্যে বাকবিতণ্ডার এক পর্যায়ে তারা দেশি অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে।
মাদারীপুরে চাঁদা না দেয়ায় নির্যাতনের অভিযোগ : মাদারীপুর পৌর এলাকার প্রভাবশালী আ. হাই বেপারী গংয়ের বিরুদ্ধে এক ওমানপ্রবাসীর বাবা ও নিরীহ কৃষক আ. রাজ্জাক বেপারী এবং তার স্ত্রী আছিয়া বেগমকে নিজ বসতঘরে আটকে রেখে অমানুষিক নির্যাতনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। পরে পুলিশ গতকাল সকালে মাদারীপুর পৌরসভার দক্ষিণ থানতলী এলাকায় এসে গুরুতর আহত অবস্থায় রাজ্জাক বেপারী এবং তার স্ত্রী আছিয়া বেগমকে উদ্ধার করে মাদারীপুর সদর হাসপাতালে চিকিত্সার জন্য প্রেরণ করে। বর্তমানে হাসপাতালে স্বামী-স্ত্রী মৃত্যুর সঙ্গে লড়ছেন।
ফুলবাড়ীয়ায় সংঘর্ষে আহত ৩৫ : গতকাল ময়মনসিংহের ফুলবাড়ীয়ায় পৃথক ঘটনায় দু’পক্ষের সংঘর্ষে কমপক্ষে ৩৫ জন আহত হয়েছে। আহতদের মধ্যে ১৯ জনকে ফুলবাড়ীয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স হাসপাতালে এবং আশঙ্কাজনক অবস্থায় আরও ৮ জনকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। অন্যদের স্থানীয়ভাবে প্রাথমিক চিকিত্সা দেয়া হয়েছে।
গতকাল সকালে উপজেলার বরুকা নামাপাড়া তালতলা গ্রামের আ. হাই ও আ. জালালের দুই শিশুকন্যার ঝগড়াকে কেন্দ্র করে এক পর্যায়ে ব্যাপক সংঘর্ষের সৃষ্টি হয়। এ সময় উভয় গ্রুপের কমপক্ষে ২৫ জন আহত হয়। গুরুতর আহতদের ফুলবাড়ীয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
অপরদিকে সকালে উপজেলার শুশুতি বাজারের উত্তর পাশে জমি সংক্রান্ত বিরোধে দু’গ্রুপের সংঘর্ষে কমপক্ষে ১০ জন আহত হয়েছে। আহতদের মধ্যে সোহেল মিয়া (২৫), ইসলাম (৪৫), শ্যামলী (১৯) হামিদা, (৩৪) নজরুল ইসলাম (৩৫) ও জামাল উদ্দিনকে (৫০) ফুলবাড়ীয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। নজরুল ইসলাম ও জামাল উদ্দিনের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপতালে রেফার করা হয়েছে।
মির্জাগঞ্জে যুবদল নেতাকে কুপিয়ে জখম : মির্জাগঞ্জ উপজেলার দেউলী সুবিদখালী ইউনিয়ন যুবদল নেতা মো. আজম খানকে সভাপতি ও মো. জুয়েল হাওলাদারকে সাধারণ সম্পাদক করে কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে গতকাল। এর রেশ ধরে গতকাল দুপুরে সাধারণ সম্পাদক মো. জুয়েল এক বিএনপি নেতার সঙ্গে দেখা করার জন্য পুরাতন দেউলী সুবিদখালী ইউনিয়ন পরিষদ সংলগ্ন রাস্তায় পৌঁছলে উপজেলার চত্রা গ্রামের মো. সরোয়ারের নেতৃত্বে ৫-৬ উচ্ছৃঙ্খল যুবক তাকে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে গুরুতর আহত করে। তাকে মির্জাগঞ্জ উপজেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
গৌরনদীতে পৌর কাউন্সিলরের নেতৃত্বে ভাংচুর-লুটপাট : বরিশালের গৌরনদী পৌরসভার ১নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর ও ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ সভাপতি দেলোয়ার হোসেন দুলালের নেতৃত্বে আপন ভাইয়ের বসতঘর দখল, আসবাবপত্র ভাংচুর, স্বর্ণালঙ্কারসহ মালামাল লুটের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ সময় হামলাকারীরা আবুল কালাম সিকদারের স্ত্রী ও মেয়েসহ চার মহিলাকে পিটিয়ে ও কুপিয়ে জখম করে। গুরুতর আহত আবুল কালামের স্ত্রী সুফিয়া বেগমকে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। মঙ্গলবার বিকালে পৌর এলাকার সুন্দরদী মহল্লায় এ ঘটনা ঘটে। হামলা-ভাংচুর ও লুটপাটের ঘটনায় সুফিয়া বেগম বাদী হয়ে গতকাল বিকালে দেবর ও পৌর কাউন্সিলরকে প্রধান আসামি করে সাতজনের বিরুদ্ধে গৌরনদী থানায় মামলা দায়ের করেছেন।