Amardesh
আজঃঢাকা, বৃহস্পতিবার ১৫ আগস্ট ২০১৩, ৩১ শ্রাবণ ১৪২০, ৭ সাওয়াল ১৪৩৪ হিজরী    আপডেট সময়ঃ রাত ১২টা
 
 সাধারণ বিভাগ
 বিশেষ কর্ণার
 শোক ও মৃত্যুবার্ষিকী
 সাপ্তাহিকী
 
আবহাওয়া
 
 
আর্কাইভ: --
 

খালেদা জিয়ার ৬৯তম জন্মদিন আজ

স্টাফ রিপোর্টার
« আগের সংবাদ
পরের সংবাদ»
বিরোধীদলীয় নেতা বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার ৬৯তম জন্মদিন আজ। জন্মদিনের প্রথম প্রহরের শুভলগ্নটি তিনি গুলশানের বাসায় পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে কাটিয়েছেন। আজ রাত ৮টায় গুলশান কার্যালয়ে রাজনীতিবিদ, সাংবাদিক, বুদ্ধিজীবী, দলীয় নেতাকর্মী ও শুভানুধ্যায়ীরা বেগম জিয়াকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানাবেন। বিএনপি ও এর অঙ্গদলগুলোর উদ্যোগে আজ সকাল ১১টায় নয়াপল্টন কার্যালয়ে পৃথকভাবে কেক কাটা হবে। বগুড়া বিএনপি সপ্তাহব্যাপী কর্মসূচি ঘোষণা করেছে।
এ ব্যাপারে বিএনপি চেয়ারপারসনের প্রেস সচিব মারুফ কামাল খান সোহেল জানান, ম্যাডাম (খালেদা জিয়া) কখনও তার জন্মদিন আড়ম্বরপূর্ণভাবে পালন করেন না। এবারও তিনি তার জন্মদিনের প্রথম প্রহরটি পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে কাটিয়েছেন। আজ রাতে গুলশান কার্যালয়ে গেলে খালেদা জিয়াকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানাতে আসতে পারেন শুভানুধ্যায়ীরা।
বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া ১৯৪৫ সালের এই দিনে জন্মগ্রহণ করেন। এরপর তিনি সময়ের পরিক্রমায় সাধারণ গৃহবধূ থেকে রাজনীতিতে যোগ দেয়ার মাধ্যমে আপসহীন নেত্রী এবং অবশেষে সফল সরকারপ্রধান হিসেবে বাংলাদেশের মানুষের হৃদয়ে স্থান করে নেন। পঞ্চম, ষষ্ঠ ও অষ্টম সংসদের সংখ্যাগরিষ্ঠ দলের নেত্রী হিসেবে তিনবার তিনি প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন। পঞ্চম থেকে অষ্টম সংসদ পর্যন্ত চারবারই তিনি সাংবিধানিক সুযোগ অনুযায়ী সর্বোচ্চ পাঁচটি করে আসনে নির্বাচন করে পাঁচটিতেই বিজয়ী হন। নির্বাচন কমিশনের নতুন নিয়ম অনুযায়ী নবম সংসদ নির্বাচনে সর্বোচ্চ তিনটি আসনে জয়ী হন তিনি। বাংলাদেশে আর কারও পক্ষে এ জনপ্রিয়তা অর্জন সম্ভব হয়নি।
৬৯তম জন্মদিনের প্রাক্কালে জননন্দিত নেত্রী খালেদা জিয়ার দুই সন্তান বিদেশে। তারা চিকিত্সার জন্য রয়েছেন দেশের বাইরে। বড় ছেলে তারেক রহমানের সঙ্গে রয়েছেন স্ত্রী ডা. জোবাইদা রহমান ও মেয়ে জায়মা রহমান। ছোট ছেলে আরাফাত রহমান কোকোর সঙ্গে রয়েছেন স্ত্রী সৈয়দা শর্মিলী রহমান ও ছোট মেয়ে জাহিয়া রহমান।
বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা রাষ্ট্রপতি শহীদ জিয়াউর রহমান ব্যর্থ সামরিক অভ্যুত্থানে বিপথগামী কিছু সৈনিকের হাতে নিহত হওয়ার পর তার সহধর্মিণী খালেদা জিয়া দলের হাল ধরেন। দীর্ঘ ৯ বছর রাজপথের আন্দোলন-সংগ্রামে নেতৃত্ব দিয়ে স্বৈরাচারী এরশাদ সরকারের পতন ঘটান। ’৮৬ ও ’৮৮ সালের স্বৈরশাসকের বৈধতা দেয়ার নির্বাচন প্রত্যাখ্যান করে আপসহীন নেত্রীর মর্যাদা লাভ করেন তিনি। এর পরপরই ’৯১ সালে বিচারপতি সাহাবুদ্দীন আহমদের নির্দলীয় অন্তর্বর্তী সরকারের অধীনে অনুষ্ঠিত নির্বাচনে খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে বিএনপি সংসদের সংখ্যাগরিষ্ঠ আসনে বিজয়ী হয়। খালেদা জিয়া নিজে পাঁচটি আসনে নির্বাচন করে প্রতিটিতে বিপুল ভোটে বিজয়ী হয়ে ক্যারিশমেটিক নেত্রী হিসেবে আবির্ভূত হন। জিয়াউর রহমানের বাংলাদেশী জাতীয়তাবাদের দর্শনকে এগিয়ে নিয়ে যান সব বাধা-বিপত্তি উপেক্ষা করে। উন্নয়নের রাজনীতির যে সূচনা জিয়াউর রহমান করেছিলেন, তার সফল বাস্তবায়নের দায়িত্ব পড়ে খালেদা জিয়ার ওপর। অবকাঠামো উন্নয়ন, সামাজিক ক্ষেত্রে উন্নয়নসহ বিশেষ করে নারীশিক্ষার উন্নয়নে খালেদা জিয়া বিশেষ সাফল্য অর্জন করেন। তার ক্যারিশমাই বিএনপিকে দেশের জনপ্রিয় রাজনৈতিক দলে পরিণত করে।
বগুড়ায় সপ্তাহব্যাপী কর্মসূচি : বিএনপি চেয়ারপারসন দেশনেত্রী খালেদা জিয়ার জন্মবার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে বগুড়া জেলা বিএনপির পক্ষ থেকে সাত দিনব্যাপী কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়েছে। দলীয় কার্যালয়ে আলোচনা শেষে জেলা বিএনপি সভাপতি ভিপি সাইফুল ইসলাম এই কর্মসূচি ঘোষণা করেন।
কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে, ১৫ আগস্ট বিকাল ৩টায় শহীদ টিটু মিলনায়তনে কেক কাটার অনুষ্ঠান, হাঁস, মুরগি, ছাগল ও বস্ত্র বিতরণ। এতে প্রধান অতিথি থাকবেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। বিশেষ অতিথি থাকবেন বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ও সাবেক মন্ত্রী ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু। ১৬ আগস্ট বগুড়া জেলার সব মসজিদে বাদ জুমায় দোয়া মাহফিল এবং অন্যান্য ধর্মীয় উপাসনালয়ে তাদের ধর্মীয় রীতি অনুযায়ী প্রার্থনা অনুষ্ঠিত হবে। ১৭ আগস্ট সকাল ১০টায় দত্তবাড়ী অ্যাজমা কেয়ার সেন্টারে ফ্রি চিকিত্সা ও রক্তদান কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হবে। ২০ আগস্ট জেলার ১২০ ওয়ার্ডে তাদের সময় অনুযায়ী কেক কাটা অনুষ্ঠিত হবে। ২১ আগস্ট জেলার ১০৮ ইউনিয়নে তাদের সময় অনুযায়ী কেক কাটা অনুষ্ঠিত হবে।