Amardesh
আজঃঢাকা, বুধবার ১৭ জুলাই ২০১৩, ২ শ্রাবণ ১৪২০, ০৭ রমজান ১৪৩৪ হিজরী    আপডেট সময়ঃ ১২ টা
 
 সাধারণ বিভাগ
 বিশেষ কর্ণার
 শোক ও মৃত্যুবার্ষিকী
 সাপ্তাহিকী
 
আবহাওয়া
 
 
আর্কাইভ: --
 

নারী নির্যাতন : যৌতুক : বাউফলে স্ত্রীর পায়ের রগ কর্তন, বাঘায় বেদম পিটুনি : নবাবগঞ্জে ধর্ষণ চেষ্টাকারীকে ৩০ হাজার টাকা জরিমানা

ডেস্ক রিপোর্ট
« আগের সংবাদ
পরের সংবাদ»
যৌতুক দাবিতে পটুয়াখালীর বাউফলে এক গৃহবধূর পায়ের রগ কর্তন ও রাজশাহীর বাঘায় আরেকজনকে বেদম পিটিয়ে আহত করেছে পাষণ্ড স্বামী। অন্যদিকে দিনাজপুরের নবাবগঞ্জে ধর্ষণ চেষ্টার দায়ে এক বখাটেকে ৩০ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন গ্রাম্য সালিশকারীরা।
বাউফলে পায়ের রগ কর্তনের শিকার রাহিমা বেগম নামে ওই গৃহবধূকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় প্রথমে বাউফল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও পরে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর :
বাউফলে স্ত্রীর পায়ের রগ কর্তন : যৌতুকের টাকা না পেয়ে পটুয়াখালীর বাউফলে স্ত্রীর পায়ের রগ কেটে দিয়েছে পাষণ্ড
স্বামী। বাউফলের কালাইয়া ইউপির কপুরকাঠি গ্রামে সোমবার বিকালে এ ঘটনা ঘটে। আহত ওই গৃহবধূকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।
স্থানীয়রা জানান, ওই গ্রামের ওমর গাজীর ছেলে রেজাউল গাজীর সঙ্গে একই গ্রামের মৃত সুলতান হাওলাদারের মেয়ে রাহিমা বেগমের তিন বছর আগে বিয়ে হয়। বিয়ের সময় রাহিমার ভাই হানিফ হাওলাদার নগদ ১ লাখ টাকা, স্বর্ণালংকার ও মালামাল দেন। কয়েকদিন আগে রেজাউল গাজী একটি মোটরসাইকেল কেনার নামে স্ত্রী রাহিমা বেগমের কাছে ৫০ হাজার টাকা যৌতুক দাবি করে। রাহিমা অপারগতা জানালে তাকে বেদম পেটানো হয়। ঘটনার দিন বিকাল ৩টার দিকে রেজাউল গাজী রাহিমা বেগমের কাছে ফের ৫০ হাজার টাকা দাবি করে। এ নিয়ে উভয়ের মধ্যে ঝগড়াঝাটি হলে পাষণ্ড স্বামী রেজাউল গাজী রাহিমা বেগমকে লাঠি দিয়ে এলোপাতাড়ি পিটিয়ে জখম করে। একপর্যায়ে রেজাউল গাজী ধারালো দা দিয়ে স্ত্রী রাহিমা বেগমের ডান পায়ের রগ কেটে দেয়। পরে স্থানীয়রা তাকে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে বাউফল হাসপাতালে নিয়ে যায়। পরে অবস্থা আশঙ্কাজনক হলে সেখান থেকে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।
বাঘায় গৃহবধূকে পিটিয়ে আহত : রাজশাহীর বাঘায় যৌতুকের দাবিতে এক গৃহবধূকে পিটিয়ে আহত করা হয়েছে। বাঘা থানার পুলিশ উল্টো ওই গৃহবধূ ও তার ভাইদের লাঞ্ছিত করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে।
গত ১২ জুলাই দুপুরে উপজেলার ভারতীপাড়া গ্রামের হযরত ডাকুর ছেলে বাবু তার স্ত্রী আদরী বেগমকে ৫০ হাজার টাকা যৌতুক দাবিতে বেদম পিটিয়ে বাবার বাড়ি উপজেলার গোচর গ্রামে পাঠিয়ে দেয়। পরের দিন তার অবস্থার অবনতি হলে বাঘা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে তার পরিবারের লোকজন। ১৪ জুলাই বাবু তার স্ত্রী আদরী বেগমকে আনতে যায়। ওই সময় তার দুই নাবালক সন্তানের মুখের দিকে তাকিয়ে আদরী বেগম নানা নির্যাতন সহ্য করেও তার স্বামীর সঙ্গে যেতে রাজি হন। ওই সময় আদরী তার দুই ছেলের নামে পাঁচকাঠা জমি লিখে দেয়ার আবেদন করলে স্বামী বাবু তাতে খুব সহজে রাজি হয়।
পরের দিন ১৫ জুলাই বাঘা সাব-রেজিস্ট্রি অফিসে জমি রেজিস্ট্রি করতে যান বাবুর স্ত্রী, দুই ছেলে ও দুই শ্যালক। কিন্তু কোনো অভিযোগ ছাড়াই টাকার বিনিময়ে বাঘা থানার এসআই শুকুর পুলিশ সদস্য বুলবুলসহ ৬ থেকে ৭ জন পুলিশ সাব-রেজিস্ট্রি অফিসের সামনে তাদের লাঞ্ছিত করে বলে আদরী বেগম অভিযোগ করেন।
আদরী বেগম আদালতে পুলিশের বিরুদ্ধে মামলা করবেন বলে জানিয়েছেন।
আদরী বেগম আরও বলেন, এসআই শুকুর তাদের (স্বামীর পক্ষ) কাছ থেকে ৫ হাজার টাকা নিয়ে আমাকে ও আমার ভাইদের লাঞ্ছিত করেছে। তবে এসআই শুকুর বিষয়টি অস্বীকার করেন।
ওসি আবুল খায়ের বলেন, বিষয়টি মৌখিকভাবে শুনেছি। ওই এসআইর বিষয়ে ব্যবস্থা নেব।
নবাবগঞ্জে ধর্ষণ চেষ্টাকারীকে জরিমানা : দিনাজপুরের নবাবগঞ্জে এক ধর্ষণ চেষ্টাকারীর কাছ থেকে গ্রাম্য সালিশে ৩০ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়েছে। উপজেলার পুটিমারা গ্রামে ওই ঘটনা ঘটে।
গ্রামবাসী সূত্রে জানা যায়, পুটিমারা গ্রামের রেজাউল করিমের মেয়েকে দোকানে একা পেয়ে একই গ্রামের ছানছের আলীর লম্পট ছেলে সফিকুল ইসলাম শনিবার বিকালে ধর্ষণের চেষ্টা করে।
এ নিয়ে গত রোববার ওই গ্রামে একটি সালিশ বৈঠক হয়। বৈঠকে লম্পট সফিকুলকে ৩০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।