Amardesh
আজঃঢাকা, বুধবার ১৭ জুলাই ২০১৩, ২ শ্রাবণ ১৪২০, ০৭ রমজান ১৪৩৪ হিজরী    আপডেট সময়ঃ ১২ টা
 
 সাধারণ বিভাগ
 বিশেষ কর্ণার
 শোক ও মৃত্যুবার্ষিকী
 সাপ্তাহিকী
 
আবহাওয়া
 
 
আর্কাইভ: --
 

বর্তমান সরকার বিদায় না হলে দেশে শান্তি আসবে না : খালেদা জিয়া

স্টাফ রিপোর্টার
« আগের সংবাদ
পরের সংবাদ»
বর্তমান মহাজোট সরকার বিদায় না হলে দেশে শান্তি আসবে না বলে মন্তব্য করেছেন বিরোধীদলীয় নেতা খালেদা জিয়া।
গতকাল লিবারেল ডেমোক্র্যাটিক পার্টি আয়োজিত ইফতারপূর্ব সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে তিনি বলেন, দেশ এক গভীর সঙ্কটের মধ্যে চলেছে। এই মহাদুর্যোগ থেকে উত্তরণ ঘটাতে হলে জালেম ও দুর্নীতিবাজ সরকারের হাত থেকে দেশকে রক্ষা করতে হবে। আসুন, আজ আমরা সবাই এই রমজান মাসে আল্লাহ রাব্বুল আলামিনের কাছে দোয়া করি যাতে জালেম ও দুর্নীতিবাজ এ সরকারের বিদায় ঘটে।
তিনি বলেন, এ সরকার বিদায় হলে দেশের মানুষ জুলুম-অত্যাচার-নির্যাতনের হাত থেকে মুক্তি পাবে। দেশে গণতন্ত্র ও শান্তি-শৃঙ্খলা ফিরে আসবে।
রাজধানীর পুরাতন বিমানবন্দরে ট্রাস্ট মিলনায়তনে রাজনীতিবিদদের সম্মানে এই ইফতার মাহফিলের আয়োজন করেন এলডিপি সভাপতি ড. অলি আহমদ।
এতে ১৮ দলীয় জোটনেতা ও বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া প্রধান অতিথি ছিলেন। এলডিপি এই জোটের অন্যতম শরিক। ইফতারের আগে খালেদা জিয়া টেবিল ঘুরে নেতাদের সঙ্গে কুশল বিনিময় করেন।
খালেদা জিয়া দেশের বর্তমান পরিস্থিতিকে মহাদুর্যোগময় বলে অভিহিত করে এ থেকে উত্তরণে রমজান মাসে মহান সৃষ্টিকর্তার কাছে দেশবাসীকে দোয়া করার আহ্বান জানান। তিনি বলেন, এ সরকার মহাদুর্নীতিবাজ। এদের হাত থেকে দেশকে মুক্ত করতে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।
বিরোধীদলীয় নেতা বলেন, আগামীতে আমরা সরকারে গেলে দেশ ও জনগণের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হবে। দেশকে সন্ত্রাস ও দুর্নীতিমুক্ত করে বহির্বিশ্বে একটি সমৃদ্ধশালী দেশ হিসেবে পরিচিত করা হবে।
এর আগে স্বাগত বক্তব্য রাখেন এলডিপি সভাপতি ড. অলি আহমদ ও মহাসচিব ড. রেদোয়ান আহমেদ। পরে দেশ ও জাতির কল্যাণ কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করা হয়।
খালেদা জিয়ার সঙ্গে এলডিপি চেয়ারম্যান ড. অলি আহমদ, মহাসচিব ড. রেদোয়ান আহমেদ, যুগ্ম মহাসচিব শাহাদাত হোসেন সেলিম, সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য মামদুদুর রহমান চৌধুরী, বিএনপি স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. আরএ গনি মঞ্চে বসে ইফতার করেন।
ইফতারে বিএনপির ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ এমপি, এম কে আনোয়ার এমপি, ব্যারিস্টার জমিরউদ্দিন সরকার এমপি, নজরুল ইসলাম খান, ড. আবদুল মঈন খান, আবদুল্লাহ আল নোমান, আলতাফ হোসেন চৌধুরী, সেলিমা রহমান, রুহুল আলম চৌধুরী, অ্যাডভোকেট আহমেদ আজম খান, মীর মোহাম্মদ নাসির উদ্দিন, হায়দার আলী, ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন এমপি, বরকত উল্লা বুলু, আবদুস সালাম, সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, অ্যাডভোকেট সানাউল্লাহ মিয়া, সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স, শিরিন সুলতানা, গাজীপুরের নবনির্বাচিত মেয়র অধ্যাপক এমএ মান্নান, বিএনপি দলীয় সংসদ সদস্য জাফরুল ইসলাম চৌধুরী, এবিএম আশরাফ উদ্দিন নিজান, নাজিমউদ্দিন আহমেদ, সৈয়দ আসিফা আশরাফী পাপিয়া, শাম্মী আখতার, নিলোফার চৌধুরী মনি প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
১৮ দলীয় জোটনেতাদের মধ্যে জামায়াতে ইসলামীর রেদোয়ান উল্লাহ শাহেদী, ইসলামী ঐক্যজোটের মাওলানা আবদুল লতিফ নেজামী, খেলাফত মজলিসের ড. আহমদ আবদুল কাদের, কল্যাণ পার্টির সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম, এমএম আমিনুর রহমান, ইসলামিক পার্টির আবদুল মোবিন, ন্যাশনাল পিপলস পার্টির খন্দকার গোলাম মর্তুজা, আলমগীর মজুমদার, ন্যাপের জেবেল রহমান গানি, গোলাম মোস্তফা ভূঁইয়া, লেবার পার্টির মুস্তাফিজুর রহমান ইরান, মুসলিম লীগের এএইচএম কামরুজ্জামান খান, আতিকুল ইসলাম, ন্যাশনাল পিপলস পার্টির ড. ফরিদুজ্জামান ফরহাদ, জাতীয় গণতান্ত্রিক পার্টির খন্দকার লুত্ফর রহমান, পিপলস লীগের গরিবে নেওয়াজ, ডেমোক্র্যাটিক লীগের সাইফুদ্দিন মনি, স্বাধীনতা ফোরামের আবু নাসের মুহাম্মদ রহমাতুল্লাহসহ এলডিপির কেন্দ্রীয় ও অঙ্গসংগঠনের নেতারা অংশ নেন।