Amardesh
আজঃঢাকা, সোমবার ০১ জুলাই ২০১৩, ১৭ আষাঢ় ১৪২০, ২১ শাবান ১৪৩৪ হিজরী    আপডেট সময়ঃ ১২ টা
 
 সাধারণ বিভাগ
 বিশেষ কর্ণার
 শোক ও মৃত্যুবার্ষিকী
 সাপ্তাহিকী
 
আবহাওয়া
 
 
আর্কাইভ: --
 

শিল্পকলায় খণ্ডনৃত্যের প্রদর্শনী

স্টাফ রিপোর্টার
« আগের সংবাদ
পরের সংবাদ»
‘দেশজ সংস্কৃতির বিকাশ ও আন্তর্জাতিক সংস্কৃতির সঙ্গে মেলবন্ধন’ শীর্ষক কর্মসূচির আওতায় বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমীর সঙ্গীত ও নৃত্য বিভাগের ব্যবস্থাপনায় ১০টি খণ্ড নৃত্য প্রযোজনা ও পাঁচটি খণ্ডনৃত্যের প্রদর্শনী’ কার্যক্রম সম্পাদনার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। আলোচ্য কর্মসূচিটি ইতোমধ্যে সমাপ্তির পথে। কর্মসূচি অনুযায়ী গতকাল সন্ধ্যা ৭টায় একাডেমীর জাতীয় সঙ্গীত ও নৃত্যকলা কেন্দ্র মিলনায়তনে উপরোক্ত বিষয়ের ওপর খণ্ডনৃত্যের প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে সুজেয় শ্যামের সঙ্গীত পরিচালনায় ‘বায়ান্ন থেকে একাত্তর’ বিষয়বস্তুর ওপর নৃত্য পরিচালনা করেন বেলায়েত হোসেন, আলম খানের সঙ্গীতে ‘জন্ম থেকে মৃত্যু’ বিষয়ে নৃত্য পরিচালনা করেন দীপা খন্দকার। মকসুদ জামিল মিন্টুর সঙ্গীতে ‘আবহমান বাংলা’ বিষয়ে নৃত্য পরিচালনা করেন অনিক বোস এবং ফুয়াদ নাসের বাবুর সঙ্গীতে ‘ঢাকা আমার ঢাকা’ বিষয়বস্তুর ওপর নৃত্য পরিচালনা করেন ওয়ার্দা রিহাব।
শিল্পকলায় স্বরচিত্রের বৃষ্টি নিয়ে আবৃত্তি : বৃষ্টি মানেই বুকের ভেতর কর্ষিত মাঠ ওলট-পালট, হালট-ডালট উপচে ওঠার ভরা কোটাল, আষাঢ়ের এই ক্ষণে, মাহিদুল ইসলামের নির্দেশনায় ‘স্বরচিত্র’ আবৃত্তি চর্চা ও বিকাশ কেন্দ্র গতকাল সন্ধ্যা ৭টায় বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমীর জাতীয় নাট্যশালার স্টুডিও থিয়েটার হলে বৃষ্টির কবিতা নিয়ে পরিবেশিত হয় ‘বৃষ্টি চিহ্নিত ভালোবাসা’ শিরোনামে আবৃত্তি।
নাটক নিয়ে সেমিনার : শহরের পাশাপাশি গ্রামাঞ্চলেও মঞ্চনাটককে ছড়িয়ে দিতে ১৯৮২ সালে প্রতিষ্ঠিত হয় বাংলাদেশ গ্রাম থিয়েটার। সময়ের বহমানতায় প্রতিষ্ঠার তিন দশক পূর্ণ করে নাটকের এই সংগঠনটি। এ উপলক্ষে বছরব্যাপী অনুষ্ঠানমালার অংশ হিসেবে ধারাবাহিকভাবে সেমিনার অনুষ্ঠিত হচ্ছে। শনিবার বিকালে শিল্পকলা একাডেমীর সেমিনার কক্ষে অনুষ্ঠিত হলো সেমিনারের সপ্তম পর্ব। এতে ‘মৌলিক নাটকের সঙ্কট ও উত্তরণের পথ’ শীর্ষক প্রবন্ধ পাঠ করেন হামীম কামরুল হক। আলোচনায় অংশ নেন লেখক সৈয়দ শামসুল হক, গ্রাম থিয়েটারের সভাপতি নাসির উদ্দীন ইউসুফ, অভিনয়শিল্পী শিমুল ইউসুফ, জাহিদ রিপন প্রমুখ। সেমিনারে সভাপতিত্ব করেন নাট্যজন মামুনুর রশীদ।
সেমিনারে উপস্থাপিত মূল প্রবন্ধে হামীম কামরুল হক জানান, বর্তমানে মৌলিক নাটকের বেশ সঙ্কটকাল চলছে। বলা বাহুল্য, মৌলিক নাটক বলতে আমরা বোঝাতে চাই—যা কোনো একজন নাট্যরচয়িতার নিজস্ব সৃষ্টি, যা কোনো পৌরাণিক ঘটনা বা কাহিনী অবলম্বনে রচিত নয়; কোনো উপন্যাস বা গল্পের নাট্যরূপ নয়। কোনো নাট্যকার বা নাট্যরচয়িতা নিজের অন্তরের তাগিদে এবং সাহিত্য রচনার প্রেরণা থেকে যখন নাটক রচনা করেন, সে ধরনের নাটকই মৌলিক নাটক। পরে এর মঞ্চায়ন হলেও হতে পারে, নাও হতে পারে; কিন্তু সাহিত্য হিসেবে সেটি শিল্পোত্তীর্ণ নাটকের স্তরে উত্তীর্ণ হয়। আর নাটক সাহিত্য হলেও এটি থিয়েটার অভিমুখী শিল্প।