Amardesh
আজঃঢাকা, সোমবার ০১ জুলাই ২০১৩, ১৭ আষাঢ় ১৪২০, ২১ শাবান ১৪৩৪ হিজরী    আপডেট সময়ঃ ১২ টা
 
 সাধারণ বিভাগ
 বিশেষ কর্ণার
 শোক ও মৃত্যুবার্ষিকী
 সাপ্তাহিকী
 
আবহাওয়া
 
 
আর্কাইভ: --
 

শিক্ষক নিবন্ধন সনদের মেয়াদ আজীবন

সংসদ রিপোর্টার
« আগের সংবাদ
পরের সংবাদ»
বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন সনদের মেয়াদ ৫ বছরের পরিবর্তে চাকরির মেয়াদ থাকা পর্যন্ত বহাল থাকবে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। তিনি বলেন, গত বছর পর্যন্ত মোট আটটি পরীক্ষায় যারাই এ সনদ পেয়েছেন, তাদের সবার ক্ষেত্রেই সনদের মেয়াদ ‘আজীবন’ হবে।
গতকাল জাতীয় সংসদে ক্ষমতাসীন দলের নাছিমুল আলম চৌধুরীর এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী জানান, ১৩ জুন এ বিষয়ে প্রজ্ঞাপনও প্রকাশ করা হয়েছে।
নাহিদ বলেন, সরকার বেসরকারি শিক্ষক নিয়োগে পরীক্ষা গ্রহণ, নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন বিধিমালা-২০০৬ সংশোধন করে নিবন্ধন সনদের পাঁচ বছরের মেয়াদ বিলুপ্ত করেছে। এনটিআরসিএ কর্তৃপক্ষ এর আগে যাদের প্রত্যয়নপত্র দিয়েছে, তাদের ক্ষেত্রেও এ আদেশ কার্যকর হবে। বেসরকারি স্কুল-কলেজে শিক্ষক নিয়োগের ক্ষেত্রে মান বজায় রাখতে ২০০৫ সাল থেকে পরীক্ষার মাধ্যমে এই নিবন্ধন সনদ দেয়া শুরু করে সরকার।
গত নভেম্বর মাসে শিক্ষা মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি সরকারের কাছে এ বিষয়ে সুপারিশ করে।
সংসদ সদস্য রওশন জাহান সাথীর এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী জানান, শিক্ষা আইন ২০১৩-এর খসড়া চূড়ান্তের বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন।
বর্তমানে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোয় অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীর সংখ্যা ২৬ লাখ : সংসদ সদস্য মো. নুরুল ইসলাম সুজনের এক প্রশ্নের জবাবে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ জানান, বর্তমানে বাংলাদেশের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোয় প্রায় ২৬ লাখ ছাত্রছাত্রী অধ্যয়নরত।
তিনি বলেন, বর্তমানে দেশে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের সংখ্যা ৩৫টি এবং সরকার কর্তৃক অনুমোদিত বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের সংখ্যা ৭০টি। মোট বিশ্ববিদ্যালয় ১০৫টি। এছাড়া সরকার কর্তৃক নিবন্ধন করা আরও দুটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় আদালতের স্থগিতাদেশ বলে শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালনা করছে। বর্তমানে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর ছাত্রছাত্রীর সংখ্যা প্রায় ২৬ লাখ।
তিনি বলেন, বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের ২০১১ সালের বার্ষিক প্রতিবেদন অনুযায়ী বিশ্ববিদ্যালয়গুলোয় বিদেশি ছাত্রছাত্রীর সংখ্যা ১ হাজার ৮৬০ জন। এ সংখ্যা বর্তমানে দুই হাজার ছাড়িয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়গুলোয় বিদেশি শিক্ষার্থীদের অধ্যয়ন না করার কারণ হচ্ছে প্রয়োজনীয় আন্তর্জাতিক মানের সুযোগ-সুবিধার অভাব, সেশনজট, রাজনৈতিক অস্থিতিশীলতা।
মুহা. ইমাজ উদ্দিন প্রাংয়ের এক প্রশ্নের জবাবে নুরুল ইসলাম নাহিদ সংসদকে বলেন, ‘শিক্ষাক্ষেত্রে সেশনজট শিক্ষার্থীদের অপূরণীয় ক্ষতি করছে। এ ক্ষতি পুষিয়ে নেয়ার জন্য স্কুল ও কলেজ পর্যায়ে সব পাবলিক পরীক্ষা এগিয়ে আনা হয়েছে। ৯০ দিনের পরিবর্তে ৬০ দিনে পরীক্ষার ফলাফল ঘোষণা করা হচ্ছে। পরীক্ষার সময় হরতাল হলে বন্ধের দিন সেই পরীক্ষা নেয়া হচ্ছে। রমজানের বন্ধের প্রথমদিকে বেশ কিছুদিন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ক্লাস নেয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে।
মো. ইলিয়াস উদ্দিন মোল্লার এক প্রশ্নের জবাবে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, একাদশ শ্রেণীতে নীতিমালা অনুযায়ী জিপিএর ভিত্তিতে ছেলেমেয়েরা ভর্তির সুযোগ পাওয়ায় ভর্তির ক্ষেত্রে বাণিজ্য হওয়ার সম্ভাবনা কম। এসব ব্যাপারে কোনো অভিযোগ পাওয়া মাত্রই প্রতিষ্ঠান প্রধানের বিরুদ্ধে বিধি মোতাবেক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।