Amardesh
আজঃঢাকা, সোমবার ২০ মে ২০১৩, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২০, ৯ রজব ১৪৩৪ হিজরী    আপডেট সময়ঃ ১২ টা
 
 সাধারণ বিভাগ
 বিশেষ কর্ণার
 শোক ও মৃত্যুবার্ষিকী
 সাপ্তাহিকী
 কার্টুন
 
আবহাওয়া
 
 
আর্কাইভ: --
 

ধুনট কসবা আদিতমারী সোনাতলায় ঘূর্ণিঝড়ে ৩১ গ্রাম লণ্ডভণ্ড : ২শ’ গবাদিপশুর মৃত্যু, ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি

ডেস্ক রিপোর্ট
« আগের সংবাদ
পরের সংবাদ»
বগুড়ার ধুনটে বৈশাখী ঝড়ে ২শ’ গবাদিপশুর মৃত্যু হয়েছে। লণ্ডভণ্ড হয়েছে ২০ গ্রাম। ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবায় ঘূর্ণিঝড়ে ৪ গ্রাম লণ্ডভণ্ড হয়েছে। লালমনিরহাটে আদিতমারীতে ৩ শতাধিক বাড়ি বিধ্বস্ত হয়েছে। বগুড়ার সোনাতলায় ঘূর্ণিঝড়ে ২ গ্রাম লণ্ডভণ্ড হয়েছে। আমাদের প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর:
ধুনটে বৈশাখী ঝড়ে ২শ’ গবাদিপশুর মৃত্যু : বগুড়ার ধুনট উপজেলার ৪টি ইউনিয়নের ওপর দিয়ে বয়ে যাওয়া কালবৈশাখী ঝড়ে ২০ গ্রামের বাড়িঘর ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান লণ্ডভণ্ড হয়েছে। এসব গ্রামে গৃহপালিত প্রায় ২শ’ গবাদিপশু মারা গেছে। ঝড়ের ভয়াবহ তাণ্ডবে মহিলাসহ কমপক্ষে ১০ জন আহত হয়েছে। ওই এলাকার বিদ্যুত্ সংযোগ বিচ্ছিন্নসহ গাছপালা, ফলের বাগান ও কৃষকের ৪০ হেক্টর জমির ফসল নষ্ট হয়েছে।
ক্ষতিগ্রস্ত পরিবার সূত্রে জানা যায়, গত শনিবার রাত ১০টার দিকে কালবৈশাখী ঝড় শুরু হয়। প্রায় ৩০ মিনিট ধরে ঝড়ের তাণ্ডব চলে। এ সময় বাড়িঘর ঝড়ে ভেঙে লণ্ডভণ্ড হয়ে যায়। বেশ কয়েকটি পরিবারের টিনের ঘরের চাল উড়ে গিয়ে নিখোঁজ রয়েছে। ঘরে রক্ষিত খাদ্যশস্য, আসবাবপত্র ও কাপড়-চোপড় উড়ে গেছে। গাছপালা ভেঙে পড়ে ঘরের ক্ষতি ও রাস্তায় লোকজন চলাচলে প্রতিবন্ধকতার সৃষ্টি হয়েছে।
বিদ্যুতের খুঁটি হেলে পড়ে ও তার ছিঁড়ে সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে। ঝড়ে লণ্ডভণ্ড গ্রামগুলোর মধ্যে নিমগাছি ইউনিয়নের সাতবেকি, ধামাচামা, জয়শিং, নান্দিয়ারপাড়া, বেড়েরবাড়ি, ফরিদপুর, পিড়াপাট, কোল্লাপাড়া, বুড়িরভিটা, চিকাশি ইউনিয়নের খাটিয়ামারি, বড়িয়া, গুলারতাইড়, ভালুকাতলা, ঝিনাই, জোড়শিমুল, কালেরপাড়া ইউনিয়নের সরুগ্রাম, রামনগর, হাসাপোটল, এলাঙ্গী ইউনিয়নের বিলচাপড়ি। এসব গ্রামের প্রায় দেড় হাজার পরিবারের বাড়িঘর ক্ষতি হয়েছে। ঝড়ের তাণ্ডবে সাতবেকি গ্রামের বাদশা মিয়ার ৩টি ছাগল, এনামুল হকের পোল্ট্রি ফার্মের দেড়শ’ মুরগি, আবদুল জলিলের ৪টি গরুসহ গৃহপালিত প্রায় ২০০ গবাদিপশু মারা গেছে।
আদিতমারীতে ৩ শতাধিক বাড়ি বিধ্বস্ত : লালমনিরহাটের আদিতমারী উপজেলায় কালবৈশাখী ঝড়ে ২ শতাধিক ঘরবাড়ি বিধ্বস্ত হয়েছে। গত শনিবার রাতে কমলাবাড়ী ইউনিয়নের ৫টি গ্রামের ওপর দিয়ে বয়ে যায় এই কালবৈশাখী ঝড়। ঘরবাড়ি ছাড়াও ধান, সবজি ক্ষেত ও গাছপালার ব্যাপক ক্ষতি সাধিত হয়। গতকাল ক্ষতিগ্রস্ত উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা সরেজমিন এলাকা পরিদর্শন করেন। স্থানীয়রা জানান, উপজেলার কমলাবাড়ী ইউনিয়নের শংকরটারী, বড় কমলাবাড়ী, হাজীগঞ্জ বাজার, ছোট কমলাবাড়ী ও ভাতিটারী গ্রামের ওপর দিয়ে শনিবার রাতে বয়ে যাওয়া কালবৈশাখী ঝড় ব্যাপক তাণ্ডব চালায়। ঝড়ের তাণ্ডবে এসব গ্রামের ৩ শতাধিক কাঁচা-পাকা ঘরবাড়ি ছাড়াও উঠতি বোরো ফসলের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। অনেকেই ঘরবাড়ি হারিয়ে দিশেহারা হয়ে পড়েছে।
সোনাতলায় ঘূর্ণিঝড়ে ২ গ্রাম লণ্ডভণ্ড : বগুড়ার সোনাতলার শিচারপাড়া, মোনারপটল গ্রামসহ কয়েকটি গ্রাম গতকাল রাতে ঘূর্ণিঝড়ে লণ্ডভণ্ড হয়ে গেছে। এতে কয়েকটি গ্রামের প্রায় ২শ’ পরিবারের ঘর-বাড়ি, গাছপালা, মুরগির ফার্ম ও বিদ্যুত্ সংযোগ খুঁটি ভেঙে ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। শিচার গ্রামের ফজলুল করিম মতি সরকার জানান, তার কয়েকটি গাছ ও বাড়ির সামনে থাকা বিদ্যুতের খুঁটি ভেঙে সংযোগ বিচ্ছন্ন হয়েছে। গ্রাম ঘুরে জানা গেছে, ইউপি মেম্বার শহিদুল হক মুকুল, আবুল কালাম, আফজাল, সায়েদজামান, গফুর, গ্রামপুলিশ রবিদাস, ফুল মিয়া, রঞ্জু, সবুজসহ প্রায় শতাধিক পরিবারের গাছপালা, ঘর-বাড়ি, মুরগির ফার্ম ভেঙে গেছে। মোনারপটল গ্রামের বুলবুল, মঞ্জু মণ্ডলসহ ১৫ জনের একই ধরনের ক্ষতি হয়েছে। উপজেলা নির্বাহী অফিসার উত্তম কুমার ও স্থানীয় ইউপি চোয়ারম্যান গোলাম রব্বানি ক্ষতিগ্রস্ত স্থানগুলো পরিদর্শন করেছেন।
কসবায় ঘূর্ণিঝড়ে ৪ গ্রাম লণ্ডভণ্ড : ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা উপজেলার মূলগ্রাম ইউনিয়নের ওপর দিয়ে শনিবার সন্ধ্যায় আবারও প্রচণ্ড ঘূর্ণিঝড়ে মূলগ্রাম, ময়দাগঞ্জ, কান্দারপাড় ও পুকুরপাড় গ্রামে শতাধিক কাঁচা ঘর-বাড়ি বিধ্বস্ত হয়েছে। বহু গাছপালা বিনষ্ট হয়েছে। ঝড়ে ইউপি সদস্য অনু মিয়াসহ ৩০ আহত হয়েছেন। আহতদের প্রাথমিক চিকিত্সা দেয়া হয়েছে। উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ রুহুল আমিন ভূঁইয়া বকুল, উপজেলা নির্বাহী অফিসার জালাল সাইফুর রহমান, অফিসার ইনচার্জ কসবা থানা মো. বদরুল আলম তালুকদার ও মূলগ্রাম ইউপি চেয়ারম্যান মো. ময়নুল হোসেন ওই রাতেই ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শন করেছেন। এদিকে গতকাল বিকালে মূলগ্রাম উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে ক্ষতিগ্রস্ত ৫১টি পরিবারের মাঝে সরকারিভাবে ২০ কেজি করে চাল এবং কসবা-আখাউড়া ইউপি চেয়ারম্যান ফোরাম প্রতিটি পরিবারকে ১ হাজার টাকা করে বিতরণ করেছে।
গাবতলীতে ঝড়ে কোটি টাকার ক্ষতি : বগুড়ার গাবতলীতে ঝড়ে শতাধিক ঘরবাড়ি, গাছপালা ও ফসলের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। গত শনিবার বৈশাখী ঝড়ে উপজেলার বালিয়াদীঘি ইউনিয়নের পূর্ব কালাইহাটা গ্রামের শতাধিক পরিবারের ২ শতাধিক টিনশেডের ঘর, বিভিন্ন ধরনের গাছপালা ও ফসলের ক্ষতি হয়েছে। উত্তর দিক থেকে বয়ে যাওয়া ঝড়ে এ এলাকায় প্রায় কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মাহবুবুর রহমান জানিয়েছেন। অনেক পরিবার খোলা আকাশের নিচে বসবাস করছে। চেয়ারম্যান দ্রুত সরকারিভাবে সাহায্যের জন্য প্রশাসনের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।