Amardesh
আজঃঢাকা, সোমবার ২০ মে ২০১৩, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২০, ৯ রজব ১৪৩৪ হিজরী    আপডেট সময়ঃ ১২ টা
 
 সাধারণ বিভাগ
 বিশেষ কর্ণার
 শোক ও মৃত্যুবার্ষিকী
 সাপ্তাহিকী
 কার্টুন
 
আবহাওয়া
 
 
আর্কাইভ: --
 

হেফাজতকে রাজনৈতিক ও সহিংস সংগঠনরূপে চিত্রিত করার অপচেষ্টা চলছে : আল্লামা শাহ আহমদ শফী

খোরশেদ আলম শিমুল হাটহাজারী, চট্টগ্রাম
« আগের সংবাদ
পরের সংবাদ»
বর্তমান উদ্ভূত পরিস্থিতিতে করণীয় ও দিক-নির্দেশনা দিয়ে গতকাল সংবাদপত্রে এক বিবৃতি দিয়েছেন হেফাজতে ইসলামের আমির, দারুল উলূম হাটহাজারী মাদরাসার মহাপরিচালক পীরে কামেল আল্লামা শাহ আহমদ শফী। তিনি বলেন, বর্তমানে কোনো কোনো মহল থেকে হেফাজতে ইসলামকে রাজনৈতিক ও সহিংস সংগঠনরূপে চিত্রিত করার অপচেষ্টা চলছে। আমরা এর তীব্র প্রতিবাদ জানিয়ে বলছি, হেফাজতে ইসলাম প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই শান্তিপূর্ণ উপায়ে তার লক্ষ্য-উদ্দেশ্য ও নীতিকে সামনে রেখে কাজ করে যাচ্ছে। আমাদের সব কর্মসূচিই শুধু ইসলাম ও মুসলিম স্বার্থসংশ্লিষ্ট, দেশাত্মবোধক, শান্তিপূর্ণ এবং অরাজনৈতিক। চলমান নাস্তিক বিরোধী প্রতিবাদ কর্মসূচি চলাকালীন সময়েও আমাদের শান্তিপূর্ণ অরাজনৈতিক অবস্থান সম্পর্কে জাতি পূর্ণ অবগত। সুতরাং এখানে কোনো ধরনের অপপ্রচারের সুযোগ নেই।
তিনি ওলামায়ে কেরামকে উদ্দেশ্য করে বলেন, অরাজনৈতিক ও অহিংস সংগঠন হেফাজতে ইসলামকে যাতে কোনো সুবিধাবাদী মহল রাজনৈতিক হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করতে না পারে, সেজন্য সবাইকে সতর্ক থাকতে হবে। হেফাজতে ইসলাম অতীতেও যেমন কোনোরূপ রাজনৈতিক ও সহিংস ভূমিকা পালন করেনি, ভবিষ্যতেও কোনোভাবেই এমন কিছুতে জড়াবে না।
বিবৃতিতে আল্লামা শাহ আহমদ শফী আরও বলেন, হেফাজতে ইসলাম তার লক্ষ্য-উদ্দেশ্য থেকে কখনও বিচ্যুত হবে না। আগামী কয়েক সপ্তাহ পরই দেশের হাজার হাজার কওমি মাদরাসার বার্ষিক সমাপনী পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। তাই ওলামায়ে কেরাম ও মাদরাসার ছাত্রদের পরীক্ষার পূর্ণপ্রস্তুতির ব্যাপারে যথেষ্ট মনোযোগী হতে হবে। তিনি আলেম সমাজের প্রতি সব প্রতিকূলতায় সবর তথা ধৈর্যধারণের প্রতি গুরুত্বারোপ করে বলেন, যারা মজলুম এবং যারা ধৈর্যধারণ করে, আল্লাহ তাদের সঙ্গেই থাকেন। তারা কখনও বিফল হবেন না। তিনি উলামায়ে কেরামকে হতাশ না হয়ে মাদরাসা ছাত্রদের পড়ালেখা ও পরীক্ষার প্রস্তুতির প্রতি বিশেষ মনোযোগী হওয়ার পরামর্শ দেন।
আল্লামা শাহ আহমদ শফী হেফাজতে ইসলামের মহাসচিব দারুল উলূম হাটহাজারী মাদরাসার প্রখ্যাত মুহাদ্দিস আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরীকে মুক্তি দেয়ার জন্য সরকারের প্রতি উদাত্ত আহ্বান জানিয়ে বলেন, জুনায়েদ বাবুনগরী জীবনভর মাদরাসায় কুরআন-হাদিসের ব্যাখ্যামূলক জটিল জটিল গ্রন্থগুলোর ক্লাসদানে রত ছিলেন। তিনি এদেশের জনপ্রিয় একজন ইসলামী ব্যক্তিত্ব। তিনি কখনও প্রচলিত রাজনীতি ও সহিংসতার সঙ্গে জড়িত ছিলেন না। তার বিরুদ্ধে অন্যায়ভাবে করা সব মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার করে অবিলম্বে তার মুক্তির ব্যবস্থা করুন।
দেশের বিভিন্ন স্থানে মসজিদের ইমাম-খতিব ও বিভিন্ন মাদরাসায় হামলা ও ভয়ভীতি প্রদর্শন প্রসঙ্গে আল্লামা শাহ আহমদ শফী বিবৃতিতে বলেন, প্রতিটি স্বাধীন ও গণতান্ত্রিক সরকারের দায়িত্ব ও কর্তব্য যে, স্বাধীনভাবে সবার পূর্ণ নাগরিক অধিকার নিশ্চিত করা। তিনি বলেন, ওলামায়ে কেরাম, মাদরাসার ছাত্র ও তৌহিদি জনতাকে তাদের স্বাভাবিক কার্যক্রম চালাতে দিতে হবে। ওলামায়ে কেরামের প্রতি যে কোনো ধরনের ভয়ভীতি প্রদর্শন বন্ধ করতে হবে। এটা তাদের সাংবিধানিক নাগরিক অধিকার। এ অধিকার নিশ্চিত করার দায়িত্ব রাষ্ট্রের। আমি আশা করব, দেশব্যাপী ওলামায়ে কেরাম ও তৌহিদি জনতার বিরুদ্ধে করা সব মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার করে সরকার দেশের স্বাভাবিক অবস্থা ফিরিয়ে আনবে।
বিবৃতিতে তিনি আরও বলেন, হেফাজতে ইসলামের ১৩ দফা দাবি নিয়ে কোনো ধরনের অপপ্রচার ও অপব্যাখ্যার সুযোগ নেই। বিভিন্ন শান্তিপূর্ণ কর্মসূচির মাধ্যমে এদেশের কোটি কোটি মানুষ সরকারের প্রতি এ ১৩ দফা বাস্তবায়নের ব্যাপারে দাবি জানিয়ে আসছিল। আমি আশা করব, সরকার এ ব্যাপক গণমতের প্রতি সম্মান দেখিয়ে হেফাজতে ইসলামের ১৩ দফা ঈমানী দাবির শান্তিপূর্ণ সমাধানে কার্যকর পদক্ষেপ নেবে।