Amardesh
আজঃঢাকা, সোমবার ২০ মে ২০১৩, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২০, ৯ রজব ১৪৩৪ হিজরী    আপডেট সময়ঃ ১২ টা
 
 সাধারণ বিভাগ
 বিশেষ কর্ণার
 শোক ও মৃত্যুবার্ষিকী
 সাপ্তাহিকী
 কার্টুন
 
আবহাওয়া
 
 
আর্কাইভ: --
 

জিতে ফুটবলকে অশ্রুসিক্ত বিদায় ডেভিড বেকহ্যামের

স্পোর্টস ডেস্ক
« আগের সংবাদ
পরের সংবাদ»
মাত্র পাঁচ মাসের জন্য প্যারিস সেইন্ট জার্মেইনে এসেছিলেন ডেভিড বেকহ্যাম। অল্প সময় হলেও বিদায়বেলায় ফ্রান্সের ফুটবল ভক্তদের কাছে আপন হতে সময় লাগেনি এ বিশ্বতারকার। শনিবার ব্রেস্টের বিপক্ষে পিএসজির শেষ হোম ম্যাচে ৩-১ গোলের জয়ের দিনে অশ্রুসিক্ত না হয়ে পারলেন না ইংল্যান্ডের সাবেক এ অধিনায়ক। এ মৌসুম শেষে আন্তর্জাতিক ফুটবলকে বিদায় জানানোর ঘোষণা দেন বেকহ্যাম। তার অবসরের সিদ্ধান্তে ফুটবল বিশ্ব আবেগী হয়ে পড়েছিল। শেষ ম্যাচে পিএসজি ভক্তরা শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত বেকহ্যামের স্তুতি গাইল। ম্যানেজার কার্লোস আনচেলত্তি এদিন ইংলিশ তারকার কাঁধে নেতৃত্বের দায়িত্ব দিয়েছিলেন।
জল্গাতান ইব্রাহিমোভিচের জোড়া গোলে দারুণ জয় পেল বেকহ্যামের পিএসজি। কর্নার থেকে দুর্দান্ত এক শটে ব্লেইস মাতৌদিকে গোলও বানিয়ে দেন এই ৩৮ বছর বয়সী। ম্যাচ শেষ হওয়ার ১০ মিনিট আগে আনচেলত্তি তুলে নেন বেকহ্যামকে। মাঠ ছাড়ার সময় ভক্তদের কাছ থেকে উচ্ছ্বসিত সংবর্ধনা পান তিনি। সতীর্থরা, এমনকি প্রতিপক্ষ খেলোয়াড়রাও তাকে অভিবাদন জানান। ফ্রান্সের সাবেক প্রেসিডেন্ট নিকোলাস সারকোজিও ছিলেন বেকহ্যামের বিদায়ী ম্যাচে। ম্যানইউ, রিয়াল মাদ্রিদ, এসি মিলান, এলএ গ্যালাক্সির সাবেক এ তারকা ম্যাচ শেষে বললেন, ‘প্যারিসের প্রত্যেককেই আমি ধন্যবাদ জানাতে চাই। আমার সতীর্থ, দলের স্টাফ, ভক্ত সবাইকে। এখানে আমার ক্যারিয়ার শেষ হওয়া বিশেষ কিছু। এর চেয়ে বিশেষ মুহূর্ত আর হয় না। আমি কৃতজ্ঞ এই ক্লাব, সমর্থক ও এর স্টাফদের কাছে। এখানে অবসর নিতে পেরে আমি গর্ববোধ করছি।’ প্রত্যুত্তরে ভক্তরাও আবেগের স্রোতে ভাসিয়েছেন বেকহ্যামকে। এই ‘স্পাইস বয়’কে প্লেকার্ড ও ফেস্টুনে ধন্যবাদ জানিয়েছে পিএসজি সমর্থকরা। ম্যাচ শেষে ল্যাপ অব অনার দিয়েছে দুই দলের ফুটবলাররা। ক’দিন আগেই পিএসজি ১৯ বছরের শিরোপা খরা কাটায়। এ সফলতায় অন্যতম অবদান আছে বেকহ্যামেরও। এ নিয়ে চারটি দেশের ঘরোয়া লিগ শিরোপা জিতে অনন্য রেকর্ডও গড়েছেন বিশ্বের এই শীর্ষ ধনী ফুটবলার।