Amardesh
আজঃঢাকা, সোমবার ২০ মে ২০১৩, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২০, ৯ রজব ১৪৩৪ হিজরী    আপডেট সময়ঃ ১২ টা
 
 সাধারণ বিভাগ
 বিশেষ কর্ণার
 শোক ও মৃত্যুবার্ষিকী
 সাপ্তাহিকী
 কার্টুন
 
আবহাওয়া
 
 
আর্কাইভ: --
 

মহিলা দলে পাঁচ নতুন মুখ

স্পোর্টস রিপোর্টার
পরের সংবাদ»
আগামীকাল শুরু হচ্ছে এএফসি মহিলা এশিয়া কাপ ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপ বাছাইয়ের ‘বি’ গ্রুপের ম্যাচ। গ্রুপে স্বাগতিক বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ র্যাংকিংয়ে বেশ এগিয়ে থাকা থাইল্যান্ড (২৯), ইরান (৫৩) ও ফিলিপাইন (৮৩)। তাদের বিপক্ষে ম্যাচ তিনটি হবে ২১, ২৩ ও ২৫ মে সন্ধ্যা ৭টায় বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে। গতকাল এ প্রতিযোগিতা উপলক্ষে ২২ সদস্যের জাতীয় দল ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন (বাফুফে)। ২২ সদস্যের দলে প্রথমবারের মতো সুযোগ পেয়েছেন পাঁচ ফুটবলার। এদের মধ্যে টুম্পা মনি, সাজেদা খাতুন, লাবনী আক্তার ও ঝুমুু আক্তার শানু খেলেছেন অনূর্ধ্ব-১৯ দলে। অনূর্ধ্ব-১৪ দল থেকে সরাসরি জাতীয় দলের সুযোগ মিলেছে মনিকা চাকমার। ৩৫ জনের প্রাথমিক দল থেকে দেড় মাসের নিবিড় অনুশীলনের মাধ্যমে দলটি তৈরি করেছেন প্রথমবারের মতো মহিলা দলের দায়িত্ব পাওয়া কোচ সৈয়দ গোলাম জিলানী। দলটির সাম্প্রতিক পারফরম্যান্স ও অংশগ্রহণকারী দলগুলোর শক্তির তারতম্য দেখে স্বাভাবিকভাবে এদের টপকে মূলপর্বে খেলার স্বপ্ন দেখছেন এ কোচ। তবে গতকাল দল ঘোষণার আনুষ্ঠানিক সংবাদ সম্মেলনে কোচ প্রতিশ্রুতি দিলেন ‘স্বাগতিকের সুবিধা কাজে লাগিয়ে ভালো খেলা’র। সৈয়দ গোলাম জিলানী বলেন, ‘প্রথম কিছুদিন দম ও শক্তির ওপর কাজ করেছি। শেষ কয়েক দিনে লক্ষ্য ছিল ট্যাকটিক্যাল বিষয় নিয়ে কাজ করা। সেগুলোও ভালোভাবে গুছিয়ে এনেছি আমি।’ র্যাংকিংয়ে অন্যরা বাংলাদেশের চেয়ে অনেক ওপরে থাকলেও খেলার মধ্যে থাকায় ভালো ফলের আশা করেন জিলানী। ভালো করার প্রত্যাশা বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের (বাফুফে) মহিলা উইংয়েরও। ডেপুটি-চেয়ারম্যান মাহফুজা আকতার কিরন বললেন, নিজেদের মাঠে খেলা। সুযোগটা কাজে লাগানো উচিত। দলগুলো শক্ত, তাদের বিপক্ষে জিততে না পারলেও ভালো খেলা উপহার দিতে চাই।’ তাই ম্যাচ প্র্যাকটিসের ঘাটতি মেটাতে দল পশ্চিমবঙ্গে পাঠানো হয়েছিল। প্রথম দুটিতে ৬-১ ও ৪-১ ব্যবধানে জিতলেও তৃতীয়টি ড্র করে গোলশূন্য। প্র্যাকটিস ম্যাচ খেলে আসার পর আত্মবিশ্বাসও বেড়ে গেছে সুইনু প্রু মারমা, মাইনু মারমা, সাবিনা আকতার, তৃষ্ণা চাকমাদের। কোচের সুরে সুর মিলিয়ে একই আশাবাদ ব্যক্ত করেন অধিনায়ক সুইনু প্রু মারমা ও সহ-অধিনায়ক সাবিনা খাতুন। এরই মধ্যে পশ্চিমবঙ্গ সফর দিয়ে অধিনায়ক হিসেবে অভিষেকও হয়ে গেছে দেশসেরা এই মিডফিল্ডারের। প্রস্তুতি ম্যাচের অভিজ্ঞতা কাজে লাগিয়ে ভালো খেলতে চান তিনি। বললেন, প্রতিপক্ষ তিন দলের বিপক্ষে খেলার অভিজ্ঞতা নেই। তবে থাইল্যান্ড বর্তমান এশিয়ান কাপ চ্যাম্পিয়ন। তাদের হারানো খুব কঠিন। আমরা সর্বোচ্চ চেষ্টা করব ভালো করার। জয় না পেলেও অন্তত ড্র করার আশা করছি।’ সাবিন নিজের কাছে দেশবাসীর প্রত্যাশার কথা উল্লেখ করে বলেন, আমি আমার সর্বোচ্চ সামর্থ্য দিয়ে চেষ্টা করবো ভালো করার।

মহিলা ফুটবল দল
গোলরক্ষক : সাবিনা খাতুন, মুসলিমা আক্তার মলি, রওশন আরা।
ডিফেন্ডার : খালেদা খাতুন, বেলি খাতুন, সুরভি আক্তার ইতি, আয়শা খাতুন বীথি, তৃষ্ণা চাকমা, সুইনু চিং মারমা, টুম্পা মনি, সাজেদা খাতুন, লাবনী আক্তার।
মিডফিল্ডার : শারমিন আক্তার রূপা, মাইনু মারমা, মিরোনো, ঝুমু আক্তার শানু, নুবাই চিং মারমা, সুইনু প্রু মারমা (অধিনায়ক), মনিকা চাকমা।
স্ট্রাইকার : সাবিনা খাতুন (সহ-অধিনায়ক), অম্রা চিং মারমা, মুনমুন আক্তার।
সৈয়দ গোলাম জিলানি (হেড কোচ), মাহাবুবুর রহমান লিটু (সহকারী কোচ), শামসুজ্জামান ইউসুফ (গোলরক্ষক কোচ)।