Amardesh
আজঃঢাকা, সোমবার ২০ মে ২০১৩, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২০, ৯ রজব ১৪৩৪ হিজরী    আপডেট সময়ঃ ১২ টা
 
 সাধারণ বিভাগ
 বিশেষ কর্ণার
 শোক ও মৃত্যুবার্ষিকী
 সাপ্তাহিকী
 কার্টুন
 
আবহাওয়া
 
 
আর্কাইভ: --
 

সিআইএ ও মোসাদ চরদের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করল ইরান

রয়টার্স, ইরনা
« আগের সংবাদ
পরের সংবাদ»
আমেরিকা ও ইসরাইলের দুই গুপ্তচরের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করেছে ইরান। রাজধানী তেহরানের একটি বিপ্লবী আদালত তাদের মৃত্যুদণ্ড দিয়েছিল এবং গতকাল ভোরে সে দণ্ড কার্যকর করা হয়। ইহুদিবাদী ইসরাইলি গোয়েন্দা সংস্থা মোসাদের গুপ্তচর মোহাম্মাদ হায়দারির বিরুদ্ধে ইরানের গুরুত্বপূর্ণ গোপন তথ্য পাচারের অভিযোগ প্রমাণিত হয়েছে। তিনি এসব তথ্য পাচারের জন্য ইরানের বাইরে মোসাদ কর্মকর্তাদের সঙ্গে বেশ কয়েকবার বৈঠক করেছেন। এসব তথ্যের বিনিময়ে হায়দারি মোসাদের কাছ থেকে বিপুল অঙ্কের অর্থ পেয়েছিলেন। অপর মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামি কুরোশ আহমাদি মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থা সিআইএ’র গুপ্তচর হিসেবে ইরানের অনেক গোপন তথ্য আমেরিকাকে সরবরাহ করেছিলেন। এদিকে তুরস্কের প্রধানমন্ত্রী রজব তাইয়্যেব এরদোগান বলেছেন, আমরিকার চাপ সত্ত্বেও ইরান থেকে তার দেশ জ্বালানি তেল কেনা বন্ধ করবে না। তিনি জানান, তেহরান-আঙ্কারা জ্বালানি সহযোগিতা বন্ধের বিষয়ে এখনও কোনো সিদ্ধান্ত নেয়া হয়নি। ওয়াশিংটনের ব্রুকিং ইনস্টিটিউটে এক বক্তৃতায় গত শুক্রবার এরদোগান বলেন, ইরান থেকে তেল আমদানির পরিমাণ তুরস্কের চাহিদার ওপর নির্ভর করছে। গত ৭ ডিসেম্বর ইরান থেকে তেল কেনার বিষয়ে তুরস্ককে ১৮০ দিনের ছাড় দিয়েছে আমেরিকা। এ সম্পর্কে তুর্কি প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা তেল আমদানি কমানোর দিকে আর ফিরে যাব কিনা তা এখনও নিশ্চিত নয়। এ বিষয়ে কি করব তা সময়ই বলে দেবে।’ তেল কেনার তথ্য-উপাত্ত থেকে গত ৩ মে দেখা গেছে, তুরস্ক এপ্রিল মাসে প্রতিদিন গড়ে ১ লাখ ৪০ হাজার ব্যারেল অপরিশোধিত তেল কিনেছে, যা ছিল গত আট মাসের মধ্যে সবচেয়ে বেশি। গত বছরের সেপ্টেম্বর থেকে চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি মাস পর্যন্ত মার্কিন নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও তুরস্ক এ সময় ইরান থেকে গড়ে প্রতিদিন এক লাখ ব্যারেল তেল কিনত। মার্চে তেল কেনার পরিমাণ বেড়ে দাঁড়ায় ১ লাখ ১৪ হাজার ব্যারেলে। ইরানের সামরিক বাহিনীর ডেপুটি চিফ অব স্টাফ মেজর জেনারেল মাসুদ জাযায়েরি বলেছেন, সিরিয়ার কৌশলগত গোলান মালভূমি ইহুদিবাদী ইসরাইলের দখল থেকে মুক্ত করা অসম্ভব নয় এবং শিগগিরই এ অঞ্চলে মৌলিক পরিবর্তন ঘটবে। তিনি বলেন, ‘আগামী কয়েক মাসের মধ্যে আমরা এ এলাকায় মৌলিক পরিবর্তন দেখতে পাব যার পরিপ্রেক্ষিতে নতুন সিরিয়া দেখা যাবে।’ জেনারেল মাসুদ জাযায়েরি আরও বলেন, ‘নতুন সিরিয়া শত্রুর বিরুুদ্ধে নতুন করে প্রতিরোধ শুরু করবে এবং আঞ্চলিক দেশগুলোর জন্য স্থিতিশীলতার বার্তা বহন করবে।’ গোলান মালভূমি মুক্ত করার প্রস্তুতি চলছে বলে লেবাননের ইসলামি প্রতিরোধ আন্দোলন হিজবুল্লাহ’র মহাসচিব সাইয়্যেদ হাসান নাসরুল্লাহ ঘোষণা দেয়ার কয়েকদিন পর জেনারেল মাসুদ জাযায়েরি এসব মন্তব্য করলেন। ১৯৬৭ সালে ছয় দিনের যুদ্ধে ইহুদিবাদী ইসরাইল গোলান মালভূমি দখল করে নেয়। সে সময় ইহুবাদী বাহিনী ফিলিস্তিনের পশ্চিম তীর ও গাজা উপত্যকারও নিয়ন্ত্রণ নেয়।