Amardesh
আজঃঢাকা, শনিবার ১৮ মে ২০১৩, ২০১৩, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২০, ৭ রজব ১৪৩৪ হিজরী    আপডেট সময়ঃ রাত ১২.০০টা
 
 সাধারণ বিভাগ
 বিশেষ কর্ণার
 শোক ও মৃত্যুবার্ষিকী
 সাপ্তাহিকী
 
আবহাওয়া
 
 
আর্কাইভ: --
 

বাংলাদেশের ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান দ্য হিউম্যানিটারিয়ান অ্যান্ড সেভিং লাইভস ট্রাস্টের

« আগের সংবাদ
পরের সংবাদ»
গতকাল যুক্তরাজ্যের ইস্ট লন্ডনের একটি রেস্টুরেন্টে দ্য হিউম্যানিটেরিয়ান অ্যান্ড সেভিং লাইভস ট্রাস্টের প্রথম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী ও কমিউনিটি কনফারেন্স অনুষ্ঠিত হয়। সংগঠনের সভাপতি মো. আশিকুর রহমানের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসোবে উপস্থিত ছিলেন ব্রিটিশ শ্যাডো অ্যামপ্লয়মেন্ট মন্ত্রী ও পার্লামেন্ট মেম্বার স্টিফেন টিমস।
বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন লন্ডন ওয়েস্টহ্যাম আসনের এমপি লিন ব্রাউন ও টাওয়ার হ্যামলেট কাউন্সিলের স্পিকার রাজিব আহমেদ। অনুষ্ঠানে আরও অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সাংবাদিক মোখলেসুর রহমান চৌধুরী, টাওয়ার হ্যামলেটের ডেপুটি মেয়র অহিদ আহমেদ। ব্রিটিশ-বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্সের সাবেক চেয়ারম্যান শাহগীর বখত ফারুক, বৃহত্তর সিলেট এডুকেশন ট্রাস্টের চেয়ারম্যান মুহিবউদ্দিন, সেক্রেটারি মো. জামাল উদ্দিন, কাউন্সিলর আয়শা চৌধুরী, কাউন্সিলর রহিমা রহমান, কাউন্সিলর মাহিদুর রহমান, কাউন্সিলর খলিল কাজী, আশা ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান মো. সদরুজ্জামান খান, বেতার বাংলার চেয়ারম্যান নাজিম চৌধুরী প্রমুখ।
এছাড়া উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ডেভেলপমেন্ট ইনিশিয়েটিভের প্রেসিডেন্ট মনোয়ার হোসেন বদরুদ্দোজা, কেএমএক্সের চেয়ারম্যান কয়সার খান, রয়াল রিজেন্সির পরিচালক আবদুল বারি, ইমপ্রেশন হলের পরিচালক মঈনউদ্দিন আনছার, সাংবাদিক শামসুল আলম লিটন, সাংবাদিক মো. জাকির হোসেন, সংগঠনের ট্রাস্টি মো. মানিকুর রহমান, হাফিজ আবদুল আহাদ, মো. বেলাল উদ্দিন, সংগঠনের চিফ উপদেষ্টা মাহিদুর রহমানসহ কমিউনিটির বিশিষ্ট ব্যক্তিরা।
অনুষ্ঠান উপস্থাপনা করেন সংগঠনের সেক্রেটারি আহমেদ মাদানী। সংগঠনের চিফ ম্যানেজার পল্লবী দাসগুপ্ত ও সিনিয়র অ্যাডমিন অফিসার আমেনা নিলম সংগঠনের বিভিন্ন কার্যক্রমের ওপর পাওয়ার প্রেজেন্টেশন করেন। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সভাপতি মো. আশিকুর রহমান।
প্রধান অতিথি ব্রিটিশ শ্যাডো মন্ত্রী স্টেফেন টিমস বলেন, যুক্তরাজ্যের সরকার ও বিভিন্ন ডোনার এজেন্সি এবং বিভিন্ন কোম্পানির মালিকদের বাংলাদেশের মতো দরিদ্র মানুষের উন্নয়নের জন্য এগিয়ে আশা প্রয়োজন। তিনি বলেন, আমরা এ সব সংগঠনের মাধ্যমে বাংলাদেশের অসহায় মানুষের পাশে সার্বিক সহযোগিতার জন্য সচেষ্ট থাকব। এমপি লিন ব্রাউন বলেন, আমরা বাংলাদেশ সম্পর্কে যা জেনেছি তাতে বাংলাদেশের মতো দরিদ্র দেশের মানুষের ভাগ্যোন্নয়নের জন্য এসব সংগঠনের মাধ্যমে এগিয়ে আসা অত্যন্ত প্রয়োজন। আমি আমার সরকারের কাছে বাংলাদেশের মানুষের জন্য বেশি করে সাহায্য দেয়ার উদাত্ত আহ্বান জানাব। স্পিকার রাজিব আহমেদ বলেন, বাংলাদেশের অসহায় মানুষের উন্নয়নের জন্য আমি আমার ব্যক্তিগত ও কাউন্সিলের পক্ষ থেকে সর্বাত্মক সহযোগিতা থাকবে।