Amardesh
আজঃঢাকা, শনিবার ১৮ মে ২০১৩, ২০১৩, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২০, ৭ রজব ১৪৩৪ হিজরী    আপডেট সময়ঃ রাত ১২.০০টা
 
 সাধারণ বিভাগ
 বিশেষ কর্ণার
 শোক ও মৃত্যুবার্ষিকী
 সাপ্তাহিকী
 
আবহাওয়া
 
 
আর্কাইভ: --
 

ফিরে আসছে কাঠের গাড়ি

ডেস্ক রিপোর্ট
« আগের সংবাদ
পরের সংবাদ»
ইস্পাতের বদলে কাঠ ব্যবহার করে গাড়ির ওজন কমানোর প্রচেষ্টা চলছে জার্মানিতে। পরীক্ষা সফল হলে জ্বালানি সাশ্রয় ও বায়ুদূষণ কিছুটা হলেও কমানো সম্ভব হবে। ঘোড়ার গাড়ি কাঠ দিয়ে তৈরি। ১৮৮৫ সালে জার্মানির গটলিব ডাইমলার ঘোড়াবিহীন গাড়ি তৈরি করার সময়ও কাঠ ব্যবহার করেছিলেন। তাই প্রথম দিকে বেশিরভাগ মোটরগাড়িও মূলত কাঠ দিয়েই তৈরি করা হতো।
তারপর দিনকাল বদলে গেছে। এখন গাড়ি মানেই ইস্পাত। কিন্তু আবার ফিরছে কাঠের দিন। না, গোটা গাড়ি কাঠ দিয়ে তৈরি হচ্ছে না। বাড়ছে গাড়ি তৈরি করার সময় কাঠের ব্যবহার। এবারও পথ দেখাচ্ছে জার্মানি। হানোফার শহরে আয়োজিত ‘লিগনা’ মেলায় কাঠের এই পুনর্জন্মের আভাস পাওয়া গেল। জার্মানির প্রথম সারির ফ্রাউনহোফার গবেষণা প্রতিষ্ঠান কাঠের নতুন ব্যবহারের চমকপ্রদ দিশা তুলে ধরেছে এই মেলায়।
এমনকি ইস্পাতের বদলে কাঠই গাড়ির মূল কাঠামো তৈরির কাজে ব্যবহার করা যাবে বলে গবেষকরা মনে করছেন। কারণ কাঠ অত্যন্ত টেকসই। সে সঙ্গে হাল্কাও। বিশেষ করে প্রযুক্তির উন্নতির সঙ্গে সঙ্গে গাড়ির ওজনও বেড়ে চলায় কাঠের ব্যবহার নিয়ে ভাবনা-চিন্তা হচ্ছে। যেমন জার্মানির সবচেয়ে জনপ্রিয় গাড়ি ফক্সওয়াগেনের কথাই ধরা যাক। প্রথম সংস্করণের ওজন ছিল মাত্র ৮০০ কিলোগ্রাম। এখন সেই ওজন প্রায় ৫০ শতাংশ বেড়ে গেছে। এর কারণ অবশ্যই অনেক বাড়তি গুণাগুণ। যেমন নিরাপত্তা বাড়াতে এয়ারব্যাগসহ নানা উপাদান যোগ করা হয়েছে। বিলাসিতার মালমশলাও বেড়েছে। বেড়েছে আকার-আয়তনও। তেলের খরচ ও কার্বন নির্গমনের মাত্রা কমানোর চাপ সত্ত্বেও গাড়ির ওজন কমানো সম্ভব হচ্ছে না।
জার্মানির বিজ্ঞান ও গবেষণা মন্ত্রণালয়ের সহায়তায় ফক্সওয়াগেনসহ একাধিক প্রতিষ্ঠান দুই বছরের একটি প্রকল্প চালাচ্ছে। ইস্পাতের বদলে গাড়ির কাঠামোয় বিচ গাছের কাঠ ব্যবহার করে নানা পরীক্ষা-নিরীক্ষা চালানো হচ্ছে। প্রথম ধাপে স্থির করা হচ্ছে, কোনো অংশে আদৌ কাঠের ব্যবহার সম্ভব। শুধু দরজা ও গাড়ির ভিতরের প্যানেল নয়, একে একে আরও অংশেও কাঠ ব্যবহার করা সম্ভব হবে বলে গবেষকরা মনে করছেন। আরেকটি সুবিধা হলো, গাড়ি বাতিল হয়ে গেলে তার কাঠ ‘রিসাইকেল’ করা যাবে। জার্মানিতে অঢেল বিচ গাছ রয়েছে। ফলে কাঁচামালের অভাব হবে না।
তবে এই গবেষণার ফল কী হবে, তা কেউ জানে না। অতএব অদূর ভবিষ্যতে গাড়ির মধ্যে কাঠের ব্যবহার শুরু হয়ে যাবে, এমনটা হলফ করে বলা যাচ্ছে না। পরীক্ষা সফল হলে তবেই এই সম্ভাবনা বাস্তবে প্রয়োগের উপযোগী হয়ে উঠতে পারে। সূত্র : ডিডব্লিউ