Amardesh
আজঃঢাকা, শনিবার ১৮ মে ২০১৩, ২০১৩, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২০, ৭ রজব ১৪৩৪ হিজরী    আপডেট সময়ঃ রাত ১২.০০টা
 
 সাধারণ বিভাগ
 বিশেষ কর্ণার
 শোক ও মৃত্যুবার্ষিকী
 সাপ্তাহিকী
 
আবহাওয়া
 
 
আর্কাইভ: --
 

ছোট পর্দার নায়িকার বড় পর্দা জয়

রকিব হোসেন
পরের সংবাদ»
রুমানা এখন বড় পর্দার কাজ নিয়ে নিজের মনে বড় করে ছবি আঁকেন। এ মাধ্যমে তার পথচলা খুব বেশি দিনের না হলেও এরই মধ্যে তিনি নিজের অভিনয় দিয়ে চলচ্চিত্র দর্শকদের মনে জায়গা করে নিয়েছেন। দেশীয় ফিল্মপাড়ায় একটা কথা প্রচলিত ছিল, টিভি নাটকের নায়ক-নায়িকারা নাকি চলচ্চিত্রে এসে হোঁচট খায়। তারা এ মাধ্যমে জায়গা করে নিতে পারেন না। কিন্তু রুমানা সে কথাটি ভুল প্রমাণ করেছেন। তৌকীর আহমেদের ‘জয়যাত্রা’ চলচ্চিত্রে ছোট্ট একটা চরিত্রে কাজের মাধ্যমে বড় পর্দায় অভিষেক হয়েছিল রুমানার। পরে পিএ কাজল পরিচালিত ‘এক টাকার বউ’ চলচ্চিত্রে কাজ করে রুমানা প্রমাণ করেছেন বাণিজ্যিক চলচ্চিত্রেও টিভি নাটকের মতো তার সাফল্যের যাত্রা শুরু হয়েছে। এই চলচ্চিত্রে তার বিপরীতে ছিলেন শাকিব খান। এতে তিনি ও শাবনূর প্যারালাল রোলে অভিনয় করেছেন। এরপর তিনি শাহিন সুমন পরিচালিত ‘বিয়ে বাড়ি’ চলচ্চিত্রে কাজ করে নিজেকে নিয়ে দর্শকদের মনে নতুন আলো জ্বেলেছেন। টিভি নাটকের নায়িকা থেকে চিত্রনায়িকায় নিজেকে রূপান্তরের গল্প নিয়ে রুমানা বললেন, ‘টিভিতে কাজ করা নায়ক-নায়িকা চলচ্চিত্রে কাজ করে সফল হয় না বা তারা এ মাধ্যমে জায়গা করে নিতে পারে না—ফিল্মপাড়ায় এক সময়কার প্রচলিত এ কথাটি আমি আগেও আমলে নেইনি, এখনও নিচ্ছি না। আমার মনে হয়েছে, যে পারে সে সবখানেই পারে। যে টিভি নাটকে কাজ করে নিজের একটি জায়গা তৈরি করতে পেরেছে, সে ইচ্ছে করলেই শ্রম ও সাধনা দ্বারা চলচ্চিত্রেও ভালো করতে পারে। এখানে ইচ্ছেটা গুরুত্বপূর্ণ। তবে আমি তা পেরেছি কি-না সেটা দর্শকরাই বলবেন। কিন্তু আমার চেষ্টার কোনো কমতি নেই। এক টাকার বউ ছবির মাধ্যমে আমি বাণিজ্যিক ছবির নায়িকা হিসেবে যে পরিচিতি অর্জন করেছিলাম, সেটা ছাড়িয়ে যাওয়ার একটা চেষ্টা আমি করেছি। আর এ কারণে আমি বিয়ে বাড়ি ছবিতে নিজের অভিনয় প্রতিভার সর্বোচ্চ ঢেলে দিয়ে কাজ করেছি। দর্শকরাও আমার সেই পরিশ্রমের মর্যাদা দিয়েছেন। স্বামী-স্ত্রীর ওয়াদা, ভালোবাসলেই ঘর বাঁধা যায় না ইত্যাদি ছবিগুলোয় কাজ করে আমিও তাদের সেই মর্যাদা ধরে রাখার চেষ্টা করেছি। আগামীতে আরও ভালো ভালো ছবিতে কাজের মাধ্যমে চলচ্চিত্রে আমার সুন্দর অবস্থান তৈরির স্বপ্ন দেখছি। আমি আসলে বরাবরই বাণিজ্যিক ছবির পক্ষে। কারণ, এ মাধ্যমেই সুন্দর একটি ছবি নির্মাণ করা যায়। দর্শক নিজের পকেটের টাকা খরচ করে সিনেমা হলে আসেন। তাদের পরিপূর্ণ বিনোদন দিতে পারে কেবল বাণিজ্যিক ছবিই।’ টিভি এরিনা থেকে চলচ্চিত্রে কাজ করতে গিয়ে কেউ কেউ একটু প্রতিকূল পরিবেশে পড়েন, রুমানার ক্ষেত্রে তেমনটি মোটেও ঘটেনি। এখানে কাজ করতে এসে তিনি বড় পর্দার মানুষগুলোর বড় মনের পরিচয় পেয়েছেন। এ প্রসঙ্গে রুমানা বলেন, ‘আমি চলচ্চিত্রে কাজ করতে এসে শুরুতেই সবার দারুণ সহযোগিতা পেয়েছি। আমার প্রথম বাণিজ্যিক ছবির পরিচালক পিএ কাজল আমাকে এ মাধ্যমে কাজের সুন্দর একটি পরিবেশ তৈরি করে দিয়েছেন। শাবনূর ও শাকিব খান সহশিল্পী হিসেবে আমাকে অল্প সময়েই অনেক আপন করে নিয়েছেন, সহযোগিতাও করেছেন। এই মাধ্যমে কাজের বিষয়ে আমি তাদের কাছ থেকে অনেক পজেটিভ ধারণা পেয়েছি।’ ১৯৯৯ সালে মোহন খানের ‘গাঙচিলের গান’ নাটকের মাধ্যমে রুমানার অভিনয় জীবন শুরু হয়েছিল। ২০০৪ সালে এনটিভিতে প্রচারিত সালাহউদ্দিন লাভলু পরিচালিত ‘রঙের মানুষ’ ধারাবাহিকে কাজ করে তিনি নিজেকে জানান দেন ভিন্নভাবে। এই ধারাবাহিকে রুমানার অভিনয়শৈলী তাকে দর্শকমহলে ব্যাপক আলোচিত করে। তার অভিনীত আলোচিত অন্যান্য নাটকের মধ্যে রয়েছে—ফেরদৌস হাসানের ‘সম্পূর্ণ রঙিন’, আফসানা মিমির ‘কাছের মানুষ’, আবুল হায়াতের ‘শুকনো ফুল রঙিন ফুল’, মনিরুল হাসানের ‘ঝুট ঝামেলা’ ইত্যাদি। উল্লিখিত নাটকে কাজের অভিজ্ঞতা নিয়ে রুমানা বলেন, ‘এই নাটকগুলোয় কাজ করে আমি অভিনয় শিখেছি। পাশাপাশি দর্শকপ্রিয়তাও অর্জন করেছি। এতে আমি প্রতিটি নাটকে ভিন্ন ভিন্ন চরিত্রে কাজের সুযোগ পেয়েছি। একেকটি চরিত্রে কাজ করতে গিয়ে আমি একেক রকম স্বাদ পেয়েছি। চরিত্রগুলো অনেক মজার ছিল। আমি প্রতিটি কাজই দারুণ উপভোগ করেছি। টিভি নাটকে কাজ করতে গিয়ে আমি যেমন নিজের চরিত্র ও নাটকের গল্প নিয়ে সচেতন ছিলাম, এখন চলচ্চিত্রের কাজের বেলায়ও সেই ভাবনা অব্যাহত রয়েছে। আমি আসলে নাটক ও চলচ্চিত্র দুই মাধ্যমেই কাজ করতে চাই। তবে চলচ্চিত্রের প্রতি এখন আমার আলাদা একটি টান তৈরি হয়েছে।’ মডেল ও অভিনেত্রী রুমানা যে গান গাইতে পারেন—এটা অনেকেরই জানা। বেশ কয়েক বছর আগে একটি ব্যান্ডদলও গড়েছিলেন তিনি। অভিনেত্রী তিশাও সেই দলের সদস্য ছিলেন। মাঝে এক সময় শওকত আলী ইমনের সুরে একটি চলচ্চিত্রে গানও গেয়েছেন রুমানা। এখন তিনি চলচ্চিত্রে অভিনয় করছেন। এ মাধ্যমে নতুন গানে আপনাকে পাওয়া যাবে কী? এমন প্রশ্নের জবাবে রুমানা বললেন, ‘গান আমার অনেক পছন্দের বিষয়। এক সময় গাইতাম। এখনও আনমনে গান গেয়ে উঠি। তবে সেটা একান্ত নিজের জন্য। কিন্তু চলচ্চিত্রে গান করার কথা এখন ভাবছি না। অভিনয়টাই করতে চাই মনপ্রাণ দিয়ে।’