Amardesh
আজঃঢাকা, শুক্রবার ৫ এপ্রিল ২০১৩, ২২ চৈত্র ১৪১৯, ২৩ জমাদিউল আউয়াল ১৪৩৪ হিজরী    আপডেট সময়ঃ রাত ১২ টায়
 
 সাধারণ বিভাগ
 বিশেষ কর্ণার
 শোক ও মৃত্যুবার্ষিকী
 সাপ্তাহিকী
 
আবহাওয়া
 
 
আর্কাইভ: --
 

সারাদেশ থেকে ঢাকায় আসতে শুরু করেছেন আলেম ওলামারা : চট্টগ্রাম থেকে যোগ দেবেন ৫ লাখ

ডেস্ক রিপোর্ট
পরের সংবাদ»
হেফাজতে ইসলামের আগামীকালের লংমার্চকে ঘিরে দেশের প্রতিটি জেলা, উপজেলা এমনকি গ্রামে পর্যন্ত ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের মাঝে এক অভূতপূর্ব জাগরণের সৃষ্টি হয়েছে। হেফাজত নেতারা একে অভিহিত করেছেন ‘মুসলিম গণজাগরণ’ হিসেবে। লংমার্চে যোগ দিতে প্রতিটি পাড়ায় যেন শুরু হয়েছে প্রতিযোগিতা। চলছে চূড়ান্ত প্রস্তুতি। এদিকে সরকারের সহায়তায় নাস্তিক সমর্থকদের ডাকা হরতাল নতুন এক মাত্রা যোগ করেছে লংমার্চের প্রস্তুতিতে। যে এলাকায় বুধবার পর্যন্ত ৫টি গাড়ি ঢাকা যাওয়ার কথা ছিল হরতাল ঘোষণার পর গতকাল সেখানে ২০টি গাড়ি ভাড়া করেছেন গ্রামবাসী। সরকারি চাপে অনেক পরিবহন মালিক গাড়ি দিতে অস্বীকৃতি জানানোয় মুসল্লিরা ঢাকা ছুটেছেন যে যার মতো করে। তবে সরকারের চাপ অগ্রাহ্য করে হেফাজতকে গাড়ি দিয়েছেন অনেকেই। সেসব গাড়িতে করে এরই মধ্যে গতকাল দিন থেকে লাখো জনতা ঢাকা অভিমুখে রওনা করেছেন।
হেফাজত নেতারা জানিয়েছেন, বৃহত্তর চট্টগ্রাম থেকে ঢাকায় ৫ লাখ লোক অংশ নিচ্ছেন। এরই মধ্যে কয়েক হাজার কর্মী ঢাকায় পৌঁছেছেন। শুক্রবার বাদ জুমা নগরীর জমিয়াতুল ফালাহ জাতীয় মসজিদ ময়দান থেকে হেফাজতে ইসলামের অবশিষ্ট নেতাকর্মীরা ঢাকার উদ্দেশে রওনা দেবেন। খুলনা থেকে যোগ দেবেন ২ লক্ষাধিক মুসল্লি। সিলেট থেকে গতকাল বিকাল ও রাতে ঢাকা পৌঁছেছে হেফাজতের অর্ধশতাধিক গাড়ি। বরিশাল, রাজশাহী, খুলনা, রংপুরসহ দেশের প্রতিটি জেলা থেকেই গতকাল অনেকে রওনা করেছেন। তবে মূল যাত্রা শুরু হবে আজ বাদ জুমা।
আমাদের প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর—
বিস্তারিত চট্টগ্রাম থেকে যোগ দিচ্ছে ৫ লাখ জনতা : হেফাজতে ইসলামের লংমার্চে বৃহত্তর চট্টগ্রাম থেকে ঢাকায় ৫ লাখ লোক অংশ নেবে বলে জানিয়েছে হেফাজত নেতারা। এরই মধ্যে কয়েক হাজার কর্মী ঢাকায় পৌঁছেছেন। শুক্রবার বাদ জুমা নগরীর জমিয়াতুল ফালাহ জাতীয় মসজিদ ময়দান থেকে হেফাজতে ইসলামের অবশিষ্ট নেতাকর্মীরা ঢাকার উদ্দেশে রওনা দেবেন। গতকাল চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে হেফাজতে ইসলামের নেতারা এসব কথা বলেন।
সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ করা হয়, কিশোরগঞ্জ, জামালপুর, বাঁশখালী, লোহাগাড়া, নরসিংদীসহ দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে হেফাজতে ইসলামের নেতাকর্মীদের পুলিশ আটক করে ভয়-ভীতি দেখাচ্ছে। সরকার যদি এসব ষড়যন্ত্র এবং দমন-পীড়ন বন্ধ না করে তবে কঠিন মূল্য দিতে হবে বলে নেতারা হুশিয়ারি দেন।
সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক আজিজুল হক ইসলামাবাদী।
উপস্থিত ছিলেন হেফাজতের নায়েবে আমির শাহ মহিবুল্লাহ বাবুনগরী, শামসুল আলম, হেফাজত নেতা এহসানউল্লাহ, মুফতি আবদুল ওহাব, ইলিয়াস ওসমানি, শাহ মো. তৈয়ব, মো. খোয়াইব প্রমুখ।
এদিকে চট্টগ্রামের বিআরটিসি বাস টার্মিনালে কোতোয়ালি থানার এসআই হারুনের নেতৃত্বে একদল পুলিশ বিভিন্ন বাস কাউন্টারে গিয়ে হেফাজতে ইসলামকে গাড়ি ভাড়া না দিতে নির্দেশ দেয়। কেউ গাড়ি ভাড়া করতে এলে থানাকে জানানোর জন্য কাউন্টারের ম্যানেজারকে নির্দেশ দেয় এসআই হারুন।
ফটিকছড়ি নানুপুর মাদরাসায় প্রস্তুতি সভা : গতকাল ফটিকছড়ির ঐতিহ্যবাহী দ্বীনি প্রতিষ্ঠান আল-জামিয়াতুল ইসলামিয়াতুল ওবাইদিয়া মাদরাসায় এক জরুরি প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত হয়। মাদরাসার মহাপরিচালক এবং হেফাজতে ইসলামের নায়েবে আমির আল্লামা শাহ ছালাহ উদ্দিন নানুপুর-এর সভাপতিত্বে সভায় উপস্থিত ছিলেন, আল্লামা শেখ আহমদ, আল্লামা মাঈনুদ্দিন, আল্লামা রফিক প্রমুখ।
পটিয়া জামেয়ার মহাপরিচালক ঢাকার পথে : পটিয়া আল জামেয়াতুল ইসলামীয়ার ভারপ্রাপ্ত মহা-পরিচালক আল্লামা মুফতি মোজাফ্ফর আহমদের নেতৃত্বে ঢাকার পথে গতরাতেই রওনা হয়েছে পটিয়ার একটি অগ্রবর্তী দল। রাত ১০টায় ৫টি বাসে দলটি ঢাকার পথে রওনা হয়েছে বলে জানিয়েছেন মুফতি খলিলুর রহমান।
এদেক লংমার্চ প্রতিরোধে ডাক দেয়ায় মুসল্লিদের মধ্যে ঢাকায় যাওয়ার উত্সাহ বেড়ে গেছে বলে জানা গেছে। তারা এটাকে চ্যালেঞ্জ হিসেবে নিয়েছেন। দক্ষিণ চট্টগ্রামের জিরি ও কৈয়াগ্রাম মাদরাসা এলাকা থেকে ৫টি বাস লংমার্চে যাওয়ার কথা থাকলেও হরতাল ডাকায় এখন সেখানকার লোক ২০টি বাস ভাড়া নিয়েছে বলে জানিয়েছেন মাওলানা মোস্তাক আহমদ। এদিকে গতকাল পটিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার রোকেয়া পারভিন লংমার্চে যোগ না দিতে মাদরাসা ও মসজিদের ইমামদের নিয়ে জরুরি বৈঠক ডাকলে স্থানীয় সরকারি মাওলানা হিসেবে পরিচিত বিতর্কিত ইমাম আবুল কাশেম নূরী ছাড়া উল্লেখযোগ্য কোনো আলেম ও ইমাম তাতে উপস্থিত হননি।
পটিয়ার বৃহত্ কওমি মাদরাসা আল জামেয়ার ভারপ্রাপ্ত মহাপরিচালক মুফতি মোজাফফর আহমদ এ প্রতিবেদককে জানিয়েছেন, তিনি ইউএনও’ থেকে কোনো আমন্ত্রণ পাননি। তবে জিরি মাদরাসার শিক্ষক মাওলানা মোস্তাক আহমদ জানান, তিনি আমন্ত্রণ পেলেও বৈঠকে যাননি।
এদিকে লংমার্চ ঠেকাতে সরকার দূরপাল্লার বাস ভাড়া না দিতে মালিক ও পরিবহন শ্রমিকদের হুশিয়ার করে দিয়েছে। সরকারের বিভিন্ন এজেন্সি থেকে পরিবহন মালিকদের রুট পারমিট বাতিলেরও হুমকি দেয়া হচ্ছে বলে হেফাজত ইসলামের নেতারা জানিয়েছেন। শুক্রবার সন্ধ্যা থেকে নগরীর জমিয়তুল ফালাহ মসজিদ ময়দান থেকে বাস ছেড়ে যাওয়ার কথা থাকলেও দূরপাল্লার বাস সরকারের নিষেধের কারণে যেতে চাচ্ছে না। তাই তারা বিকল্প ব্যবস্থায় ট্রেনে ও যাত্রীবাহী বাসে গতকাল দিন থেকেই ঢাকার পথে রওনা হয়েছেন।
আজকে জুমার খুতবায় ‘রাজনৈতিক’ বক্তব্য না দেয়ার নির্দেশ : পটিয়ার ৩ শতাধিক মসজিদের ইমাম ও মোয়াজ্জিনদের জুমার খুতবায় সরকারের বিরুদ্ধে কোনো ‘রাজনৈতিক’ বক্তব্য না দিতে পুলিশের পক্ষ থেকে মৌখিক নির্দেশ দেয়া হয়েছে। কোনো মসজিদের ইমাম যদি দেশের চলমান পরিস্থিতিতে সরকারের সমালোচনা করে কোনো বক্তব্য রাখেন তাহলে তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার হুমকি দিয়েছে পুলিশের একটি স্পেশাল ব্রাঞ্চ। একাধিক মসজিদের ইমাম জানিয়েছেন, পুলিশের পক্ষ থেকে তাদের খুত্বার বাইরে কোনো বক্তব্য না দেয়ার জন্য বলা হয়েছে।
মিরসরাই পীরের সমর্থন : লংমার্চে সমর্থন জানিয়েছেন চট্টগ্রামের মিরসরাই দরবার শরীফের পীর সাহেব ও বিশিষ্ট ইসলামি চিন্তাবিদ আলহাজ মাওলানা আবদুল মোনেম নাছরী। গতকাল তিনি এক বিবৃতিতে বলেন, নাস্তিক মুরতাদদের জন্য মৃত্যুদণ্ড আইন সংসদে বাস্তবায়ন না হওয়া পর্যন্ত আল্লামা শফীর সব কর্মসূচিতে আমার সমর্থন ব্যক্ত করছি। তিনি সবাইকে জিকিরের সঙ্গে লংমার্চে যোগ দেয়ার আহ্বান জানান।
ব্রিটেনের ১০১ আলেমের সংহতি প্রকাশ : হেফাজতে ইসলামের লংমার্চের সঙ্গে সংহতি প্রকাশ করেছে ব্রিটেন প্রবাসী বাংলাদেশের ১০১ আলেম।
এক বিবৃতিতে সংহতি প্রকাশ করে বাংলাদেশী উলামা কাউন্সিল ইউকের নেতারা আশাবাদ ব্যক্ত করে বলেন, সব ধরনের অপপ্রচার, প্রতিবন্ধকতা ও ষড়যন্ত্র প্রতিহত করে জনগণের স্বতঃস্ফূর্ত সমর্থনে এ হেফাজতে ইসলামের আন্দোলন হবে। বিবৃতিতে স্বাক্ষর করেন সংগঠনের আহ্বায়ক মাওলানা এফকেএম শাহজাহান, যুগ্ম আহ্বায়ক মাওলানা দেলওয়ার হুসেইন, মাওলানা সালেহ আহমদ, হুসাইন বেলাল, আশরাফ উদ্দিন প্রমুখ।
ঢাকার পথে সিলেট হেফাজতের একাধিক কাফেলা : হরতালের কারণে লংমার্চে অংশ নিতে সিলেট হেফাজতের প্রথম কাফেলা আগেভাগেই ঢাকার পথে রওনা করেছে। হেফাজতে ইসলাম সিলেট মহানগরীর সেক্রেটারি মুফতি ফয়জুল হক জালালাবাদী গতকাল বিকাল ৫টার দিকে ফোনে জানান, পুলিশের বাধা সত্ত্বেও বিকল্প পথ ব্যবহার করে ১০টি গাড়ি নিয়ে তাদের প্রথম কাফেলা এরই মধ্যে ঢাকার উদ্দেশে ছেড়ে গেছে।
তিনি বলেন, আমাদের প্রস্তুতি ছিল আগামীকাল জুমার পর সবাই এক সঙ্গে যাব। কিন্তু হরতালের কারণে আমরা বিভিন্ন দলে বিভক্ত হয়ে আগেই চলে যাচ্ছি। ফয়জুল হক আরও জানান, রাতের মধ্যে তাদের আরও ৫০টি গাড়ি ঢাকায় পৌঁছবে।
এদিকে গতকাল বাদ জোহর মহানগর হেফাজতে ইসলামের উদ্যোগে নগরীতে ট্রাক মিছিল, লিফলেট বিতরণ ও গণসংযোগ করা হয়। ট্রাক মিছিলের আগে কোর্টপয়েন্টে এক পথ সভায় প্রিন্সিপাল মাওলানা নাসির উদ্দিনের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন, মহানগর হেফাজতে ইসলামের সেক্রেটারি মুফতি ফয়জুল হক জালালাবাদী, মাওলানা শাহ আশরাফ আলী মিয়াজানি, মাওলানা মাশুক আহমদ ছালামি, মাওলানা হারুনুর রশিদ আল আজাদ, মাওলানা আবদুল ওয়াহিদ চৌধুরী প্রমুখ।
শাহীনুর পাশা চৌধুরীর হুশিয়ারি : বুকিং দেয়ার পরও লংমার্েচ সরকারের চাপে সুনামগঞ্জের অর্ধশত গাড়ি ‘যেতে পারব না’ বলে জানিয়েছে। সিলেট বিভাগীয় লংমার্চ বাস্তবায়ন কমিটির সদস্য সচিব ও জমিয়তে উলামায়ে ইসলামের কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট মাওলানা শাহীনুর পাশা চৌধুরী জানিয়েছেন, সুনাগগঞ্জের ৩টি থানার জমিয়ত কর্মীদের জন্য ৪৩টি গাড়ি লংমার্চে নেয়ার জন্য কথাবার্তা হয়। এমনকি গাড়ির কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কয়েক দিন যাবত যোগাযোগ করে অগ্রিম টাকাও দেয়া হয়, কিন্তু তারা বুধবার সন্ধ্যায় ৪৩টি গাড়ি লংমার্চে যাওয়া যাবে না বলে জানিয়েছে।
এ প্রসঙ্গে শাহিনুর পাশা কঠোর হুশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেছেন, মুসলিম গণজাগরণকে কেউ রুখতে পারবে না। যেসব গাড়ির চালক ও মালিক আমাদের কথা দিয়ে এখন না যাওয়ার কথা বলছেন, তাদের গাড়ি বর্জন করা হবে।
অপর দিকে লংমার্চের সমর্থনে ও সফলের লক্ষ্যে বাংলাদেশ খেলাফত মজলিস সিলেট মহানগর শাখা গতকাল সিলেট নগরীতে এক বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশে করেছে।
যশোর থেকে রাজধানীমুখী গাড়িবহর : হেফাজতে ইসলামের লংমার্চে যোগ দিতে যশোর অঞ্চল থেকে বিপুলসংখ্যক ধর্মপ্রাণ মানুষ ঢাকা যাচ্ছেন। গতকাল থেকে রাজধানীমুখী গাড়িতে লংমার্চে যোগদানেচ্ছুদের প্রাধান্য লক্ষ্য করা গেছে।
হেফাজতের যশোর শাখার নেতারা জানান, আজ সকাল থেকেই তারা সংগঠিত আকারে ঢাকা যাওয়া শুরু করবেন। এর জন্য পর্যাপ্ত গাড়ির ব্যবস্থা করা হয়েছে। যদিও গাড়ি ভাড়া দেয়ার ক্ষেত্রে সরকারি-বেসরকারি নানা প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করা হচ্ছে। যশোরের গাড়িবহরের সঙ্গে যোগ দেবে ঝিনাইদহ, মাগুরা, রাজবাড়ীসহ আশপাশের কয়েকটি জেলার গাড়িবহর।
না.গঞ্জ অচল করে দেয়ার হুমকি : হেফাজতের নারায়ণগঞ্জ জেলা শাখার নেতারা বলেছেন, লংমার্চে যদি বাধা দেয়া হয়, তবে নারায়ণগঞ্জ অচল করে দেয়া হবে। গতকাল বাদ আসর ডিআইটি বাণিজ্যিক এলাকায় এক সমাবেশে বক্তারা এ কথা বলেন। জেলা আহ্বায়ক মাওলানা আবদুল আউয়ালের সভাপতিত্বে সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন যুগ্ম আহ্বায়ক মুফতি আজিজুল হক, সদস্য সচিব মাওলানা আবদুল কাদির, যুগ্ম সচিব মুফতি শামসুজ্জোহা প্রমুখ।
বরিশালে জরুরি সভা : সরকারের ইন্ধনে দেশ ও ইসলামের শত্রু ঘাদানিক হরতাল ডাকার দুঃসাহস দেখিয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন বরিশালে হেফাজতের নেতারা। গতকাল নগরীর মাহমুদিয়া মাদরাসায় মহানগর লংমার্চ বাস্তবায়ন কমিটির এক জরুরি সভায় বক্তারা এ কথা বলেন। বক্তারা বলেন, লংমার্চে বাধা দিলে জনগণ সরকারের বিরুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়বে।
মহানগর আমির মাওলানা ওবায়দুর রহমান মাহবুবের সভাপতিত্বে সভায় বক্তৃতা করেন মাওলানা নুরুর রহমান বেগ, মাওলানা কাজী আবদুল মান্নান প্রমুখ।
অন্যদিকে খেলাফত মজলিস মহানগর শাখার নেতারা বরিশালসহ দক্ষিণাঞ্চলের ধর্মপ্রাণ মুসলমান-আলেম-ওলামা-দ্বীনদারদের লংমার্চে যোগ দেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন। গতকাল দলীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত এক সভায় বক্তারা এ আহ্বান জানান।
রাজশাহীতে সমাবেশ : শনিবারের ঢাকা লংমার্চ সফল করতে রাজশাহীতে হেফাজতে ইসলাম ও ওলামা পরিষদের সুধী সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। লংমার্চে যোগদান উপলক্ষে সর্বশেষ প্রস্তুতি হিসেবে গতকাল এ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। এদিকে সরকারের নির্দেশে লংমার্চে বাধা দেয়ার অভিযোগ করেছেন হেফাজতে ইসলামের নেতারা।
নেতারা জানিয়েছেন, রাজশাহী থেকে বিপুলসংখ্যক আলেম-ওলামা ও মসুল্লি লংমার্চে অংশ নিচ্ছেন। গতকালের সমাবেশে হেফাজতের রাজশাহী মহাসচিব হাফেজ মাওলানা আবদুল জব্বারের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন মাওলানা রুহুল আমীন, মাওলানা ইয়াকুব আলী, মাওলানা আবদুল্লাহ প্রমুখ।
মাওলানা আবদুল জব্বার জানান, লংমার্চে যোগ দেয়ার জন্য আগে থেকেই যেসব বাস ঠিক করা হয়েছিল, সেগুলোর মালিকরা এখন বাস দিতে চাচ্ছেন না। এরপরও তিনি বিকল্প পন্থায় লংমার্চে যোগ দেয়ার অঙ্গীকার ব্যক্ত করেন। তিনি জানান, এরই মধ্যে সভাপতি হাফেজ মাওলানা আবদুস সামাদ অগ্রবর্তী দল নিয়ে ঢাকায় পৌঁছেছেন।
শত নাগরিকের সমর্থন : লংমার্চে পূর্ণ সমর্থন জ্ঞাপন ও সংহতি প্রকাশ করেছে সামাজিক সংগঠন শত নাগরিক। গতকাল সংগঠনের নেতারা এক বিজ্ঞপ্তিতে এ কথা জানান।
বাধা সত্ত্বেও খুলনা থেকে যাত্রা শুরু : সব বাধা পেরিয়ে গতকাল খুলনা থেকে লংমার্চে যোগ দিতে ঢাকা রওনা করেছেন খুলনার হাজারো মুসল্লি। তবে আজ দিনের বিভিন্ন সময় মূল যাত্রা হবে। খুলনা বিভাগ থেকে ২ লক্ষাধিক ইসলামপ্রিয় তৌহিদি জনতা অংশ নিচ্ছেন বলেও হেফাজত নেতারা জানান। এদিকে গতকাল সকাল থেকেই স্ব স্ব উদ্যোগ ও ব্যবস্থায় মুসল্লিরা খুলনা থেকে ঢাকায় লংমার্চে যোগদানের উদ্দেশে রওনা করেছেন।
হেফাজতে ইসলাম খুলনার নেতা ও লংমার্চে যানবাহন ব্যবস্থাপনা শাখার দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মাওলানা নাসির উদ্দিন কাসেমী বলেন, গতকাল সারাদিন ধরে নগরীর সোনাডাঙ্গাসহ বিভিন্ন স্থানে গাড়ির কাউন্টারে যোগাযোগ করা হয়েছে, কিন্তু মালিকরা লংমার্চের জন্য গাড়ি ভাড়া দিতে অপারগতা প্রকাশ করেছেন। তারা জানিয়েছেন, লংমার্চে গাড়ি ভাড়া না দিতে প্রশাসনের নির্দেশনা রয়েছে।
কুমিল্লায় গাড়ি মিছিল : গতকাল দুপুরে হেফাজতে ইসলাম কুমিল্লা মহানগরী কমিটির উদ্যোগে লংমার্চ সফল করার লক্ষ্যে গাড়ি মিছিল বের করা হয়। এ সময় নেতারা সবাইকে লংমার্চে যোগ দেয়ার আহ্বান জানান। মিছিলে উপস্থিত ছিলেন হেফাজতে ইসলাম কুমিল্লা জেলা শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা মনিরুল ইসলাম, প্রচার সম্পাদক মুফতি সুলতান আহমদ, অর্থ সম্পাদক মাওলানা আবুল খায়ের, মাওলানা মারুফ, মাওলানা তলহা প্রমুখ। নেতারা জানান, এ লংমার্চে কুমিল্লা থেকে কমপক্ষে ১০ হাজার রাসুলপ্রেমিক অংশগ্রহণ করবেন।
গাজীপুরে বিক্ষোভ সমাবেশ : হেফাজতে ইসলাম গাজীপুর জেলা শাখার উদ্যোগে গতকাল বিকালে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। হেফাজতে ইসলাম গাজীপুর জেলা শাখার সিনিয়র সহ-সভাপতি মুফতি লেহাজ উদ্দিনের সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন মাওলানা বজলুর রহমান, মুফতি নাসির উদ্দিন, মাওলানা জাকারিয়া, মাওলান আশরাফ আলী প্রমুখ।
কালিয়াকৈরে প্রস্তুতি সভা : গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার কালামপুর মসজিদ মাঠ চত্বরে হেফাজতে ইসলামের প্রস্তুুতি সভা অনুষ্ঠিত হয় গতকাল। মুফতি ইমদাদুল হকের সভাপতিত্বে আলোচনায় অংশ নেন স্থানীয় আলেম-ওলামারা।
দিনাজপুর ২ সহস্রাধিক মুসল্লি ঢাকার পথে : হেফাজতে ইসলামের লংমার্চ নিয়ে দিনাজপুরের বিভিন্ন উপজেলা থেকে হেফাজতে ইসলামের ২ সহস্রাধিক কর্মী লংমার্চে যোগ দিচ্ছেন। এর মধ্যে গতকাল রাতের মধ্যেই প্রায় ১ হাজার নেতাকর্মী ঢাকার উদ্দেশে রওনা দিয়েছেন। আজ সকালে বাকিরাও রওনা হবেন। নেতাকর্মীদের সবার হাতেই শুকনো খাবারসহ তাসবিহ ও জায়নামাজ রয়েছে।
ফেনীতে হেফাজতের মোটর শোভাযাত্রায় বাধা : হেফাজতে ইসলাম ফেনী জেলা কমিটির পূর্ব ঘোষিত গতকালকের মোটরসাইকেল শোভাযাত্রা প্রশাসনের কঠোর অবস্থানের কারণে হতে পারেনি। সকাল ১০টায় শহরের জামেয়া ইসলামিয়া মাদরাসা থেকে এই শোভাযাত্রা বের হওয়ার কথা ছিল।
সুনামগঞ্জে সমাবেশ : আজ ও শনিবারের হরতালের প্রতিবাদে হেফাজতে ইসলাম সুনামগঞ্জ গতকাল বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে। মাওলানা আবদুল বাসিতের নেতৃত্বে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন স্থানীয় নেতারা।
ময়মনসিংহে মোটরসাইকেল শোভাযাত্রা : ময়মনসিংহে মোটরসাইকেল শোভাযাত্রা করেছেন ইত্তেফাকুল ওলামার নেতাকর্মীরা। গতকাল দুপুরে শোভাযাত্রায় অংশগ্রহণকারীরা লংমার্চ সফল করতে বিভিন্ন ধরনের স্লোগান দেন। পরে ময়মনসিংহ-টাঙ্গাইল রোডের রহমতপুরে পথসভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে বক্তব্য রাখেন আল্লামা আবদুর রহমান হাফেজ্জী, মাওলানা খালেদ সাইফুল্লাহ সাদী, মাওলান মানসুরুল হক খান প্রমুখ।
নোয়াখালীতে মোটরসাইকেল মহড়া : নোয়াখালীতে লংমার্চের সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে। এদিকে লংমার্চে যোগদানের প্রস্তুতিস্বরূপ গতকাল বিকালে জেলাব্যাপী মোটরসাইকেলে মহড়া দিয়েছে হেফাজতে ইসলামের ব্যানারে তৌহিদি জনতা। মোটরসাইকেল মহড়ায় মানুষের ঢল দেখে অনেকেই হতবাক হয়েছেন। হরতালের কারণে অনেকে গতকালই ঢাকার উদ্দেশে রওনা দিয়েছেন।
রংপুরে মিছিল-সমাবেশ : শনিবারের লংমার্চ সফল করার লক্ষ্যে গতকাল বিকালে রংপুর নগরীতে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে হেফাজতে ইসলাম। সমাবেশে বক্তব্য রাখেন সংগঠনের জেলা আহ্বায়ক মাওলানা ইউনুছ আলী, হাফেজ মাওলানা বায়েজিদ হোসাইন, মাওলানা নুরুল ইসলাম জেহাদী, মাওলানা আজগর আলী প্রমুখ।
সাতকানিয়া-লোহাগাড়ায় সভা : হেফাজতে ইসলামের চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা সভাপতি অধ্যক্ষ মাওলানা মুহাম্মদ ছরওয়ার কামাল আজিজি বলেছেন, হেফাজতে ইসলামের লংমার্চ খোদাদ্রোহী, নাস্তিক ও মুরতাদদের বিরুদ্ধে। এ কর্মসূচিতে বাধা দিলে দেশ পরিচালনায় সরকারও বাধাগ্রস্ত হবে। তিনি গতকাল সাতকানিয়া-লোহাগাড়া শাখার উদ্যোগে লংমার্চের প্রস্তুতি সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন। মাওলানা আবদুল মুবিনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বক্তব্য রাখেন আল্লামা আবুল ওফা সমসী, মাওলানা আবুল হাসান, মাওলানা শামসুল আলম প্রমুখ।
মুন্সীগঞ্জে মিছিলে বাধা : গতকাল বিকালে মুন্সীগঞ্জ শহরের উপকণ্ঠে হেফাজতে ইসলাম বিশাল বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে। সমাবেশ শেষে হেফাজতে ইসলামের নেতা-সমর্থকরা মিছিল সহকারে জেলা শহরে প্রবেশের উদ্যোগ নিলে পুলিশ তাতে বাধা দেয়। সমাবেশে আবদুল হামিদ পীর মধুপুর, হযরত মওলানা মুফতি যাইনুল আবেদিন, জেলা সেক্রেটারি মাওলানা খলিলুর রহমান, মুফতি ছিদ্দিক আহমেদ প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।
রাজনগরে প্রস্তুতি শেষ : লংমার্চে যোগ দিতে মৌলভীবাজারের রাজনগর উপজেলা থেকে হেফাজতে ইসলামের নেতৃত্বে ব্যাপক লোকসমাগমের প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে। রাজনগর উপজেলা হেফাজতে ইসলামের সেক্রেটারি মাওলানা শাহ লুত্ফুর রহমান জানান, উপজেলার প্রত্যন্ত অঞ্চল থেকে তৌহিদি জনতার কাফেলা নিয়ে আজ রাতেই বিশাল গাড়ির বহর ঢাকা অভিমুখে রওনা হবে।