Amardesh
আজঃ শনিবার ১৯ জানুয়ারি ২০১৩, ৬ মাঘ ১৪১৯, ৬ রবিউল আউয়াল ১৪৩৪    আপডেট সময়ঃ রাত ১২ টা
 
 সাধারণ বিভাগ
 বিশেষ কর্ণার
 শোক ও মৃত্যুবার্ষিকী
 সাপ্তাহিক
 বিশেষ আয়োজন
 
আবহাওয়া
 
 
আর্কাইভ: --
 

ইজতেমার দ্বিতীয় পর্বে জুমার নামাজে মুসল্লিদের ঢল

গাজীপুর প্রতিনিধি
« আগের সংবাদ
পরের সংবাদ»
টঙ্গীর তুরাগ নদীর তীরে গতকাল (১৮ জানুয়ারি) শুরু হয়েছে ৩ দিনব্যাপী বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় দফা। ভারতের মাওলানা মো. ইসমাইল হোসেন গোদরার বাদ ফজর বয়ানের মাধ্যমে বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় দফার মূল কাজ শুরু করেন। তার বয়ান বাংলায় তরজমা করেন বাংলাদেশের মাওলানা নুরুর রহমান। বাংলার পাশাপাশি বিভিন্ন ভাষায় মূল বয়ান তরজমা করা হচ্ছে। গতকাল দুপুরে বৃহত্তম জুমার নামাজ অনুষ্ঠিত
হয়েছে। এতে লাখ লাখ মুসল্লি অংশ নেন। গতকাল দুপুর পর্যন্ত ইজতেমায় আসা আরও ৪ মুসল্লির মৃত্যু হয়েছে। এদিকে ইজতেমার অন্যতম আকর্ষণ যৌতুকবিহীন বিয়ে আজ অনুষ্ঠিত হবে।
রোববার (২০ জানুয়ারি) আখেরি মোনাজাতের মধ্য দিয়ে শেষ হবে এবারের বিশ্ব ইজতেমা। মোনাজাতের আগপর্যন্ত তাবলিগ জামাতের শীর্ষস্থানীয় মুরব্বিরা পর্যায়ক্রমে আখলাক, ঈমান ও আমলের ওপর বয়ান পেশ করবেন।
বৃহত্তম জুমার নামাজ অনুষ্ঠিত : বিশ্ব ইজতেমার শুরুর দিন জুমা বার হওয়ায় ইজতেমা মাঠে অনুষ্ঠিত হয়েছে এ যাবত্কালের বৃহত্তম জুমার জামাত। দুপুর দেড়টায় ওই নামাজ শুরু হয়। এতে ইমামতি করেন (কাকরাইল মসজিদের ইমাম) হাফেজ জোবায়ের। ইজতেমায় যোগদানকারী মুসল্লি ছাড়া জুমার নামাজে অংশ নিতে ঢাকা-গাজীপুরসহ আশপাশ এলাকার লাখ লাখ মুসল্লি ইজতেমায় হাজির হন। ভোর থেকেই রাজধানীসহ আশপাশের এলাকা থেকে ইজতেমা মাঠের দিকে মানুষের ঢল নামে। দুপুর ১২টার দিকে ইজতেমা মাঠ উপচে আশপাশের খোলা জায়গাসহ সবস্থান জনসমুদ্রে পরিণত হয়। মাঠে স্থান না পেয়ে মুসল্লিরা মহাসড়ক ও অলিগলিসহ যে যেখানে পেরেছেন হোগলা পাটি, চটের বস্তা, খবরের কাগজ বিছিয়ে জুমার নামাজে শরিক হয়েছেন। এবারের ইজতেমার প্রথম পর্বের তুলনায় দ্বিতীয় পর্বের জুমায় বেশিসংখ্যক মুসল্লি শরিক হয়েছেন।
দ্বিতীয় দফার প্রথম দিনের বয়ানকারী : দ্বিতীয় দফার প্রথম দিনে বাদ ফজর, ভারতের মাওলানা মো. ইসমাইল হোসেন গোদরা, বাদ জুমা বাংলাদেশী মাওলানা মো. হোসেন বাদ আসর, ভারতের মাওলানা মো. জোবায়রুল হাসান ও বাদ মাগরিব, ভারতের মাওলানা সা’দ বয়ানকারীদের তালিকায় রয়েছেন বলে জানান বিশ্ব ইজতেমার শীর্ষ মুরব্বি মো. গিয়াস উদ্দিন।
প্রথম দিনের বয়ান : যতদিন দীন থাকবে, ততদিন দুনিয়া থাকবে। আর দীন টিকে থাকবে দাওয়াতের মাধ্যমে। যুগে যুগে নবী-রাসুলরা দ্বীনের দাওয়াতের কাজ করে গেছেন। ফেরাউনের কাছেও দীনের দাওয়াত পৌঁছে দিতে আল্লাহ হজরত মুসা (আ.) কে পাঠিয়েছিলেন। নবী-রাসুলদের আল্লাহ নিজের পরিবার ও বিভিন্ন গোত্রের মানুষের কাছে দীনের দাওয়াত দেয়ার জন্য পাঠিয়েছেন। হজরত মুহাম্মদ (সা.)-কে সারা দুনিয়ায় দীনের দাওয়াত দেয়ার জন্য পাঠিয়েছিলেন। আজ তিনি নেই। এ কাজের জিম্মাদারি এখন তার উম্মতের ওপর।
বয়ানে আরও বলা হয়, জুমার দিন একটি পবিত্র দিন। সবচেয়ে উত্তম দিন হলো জুমার দিন। এটি হলো সবচেয়ে বড় ও সম্মানী দিন। এটি দু’ ঈদের চেয়েও ফজিলতপূর্ণ। এদিনে হজরত আদম (আ.)-কে সৃষ্টি করা হয়। এদিনই দুনিয়া ধ্বংস হবে।
এদিনে আল্লাহর কাছে যা চাইবে, আল্লাহ তা তাকে দেবেন। জুমার নামাজ আদায়ের লক্ষ্যে গোসল, ওজু করে মসজিদের উদ্দেশে রওনা হওয়ার পর থেকে তার নেকি লেখা হয়। আমরা যা করব আল্লাহকে রাজি করার জন্য করব। আল্লাহ পাকের হুকুম মতো আমরা যেন সারাজীবন চলতে পারি সে চেষ্টা করতে হবে। এখান থেকে শিক্ষা নিয়ে দেশে ও সারা দুনিয়ায় মানুষের মাঝে দীন কায়েম করার জন্য ছড়িয়ে পড়তে হবে।
বয়ানের তাত্ক্ষণিক অনুবাদ : বিশ্ব ইজতেমায় বাংলাদেশ, ভারত ও পাকিস্তানের তাবলিগ মারকাজের ১৫-২০ জন শূরা সদস্য ও বুজুর্গ বয়ান পেশ করবেন। মূল বয়ান উর্দুতে হলেও বাংলা, ইংরেজি, আরবি, তামিল, মালয়, তুর্কি ও ফরাসি ভাষায় তাত্ক্ষণিক অনুবাদ হচ্ছে। বিদেশি মেহমানদের জন্য মূল বয়ান মঞ্চের উত্তর, দক্ষিণ ও পূর্বপাশে হোগলা পাটিতে বসেন। বিভিন্ন ভাষাভাষি মুসল্লিরা আলাদা আলাদা বসেন এবং তাদের মধ্যে একজন করে মুরব্বি মূল বয়ানকে তাত্ক্ষণিক অনুবাদ করেন।
আরও ৪ মুসল্লির মৃত্যু : বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় পর্বে বৃহস্পতিবার বিকাল থেকে গতকাল সকাল পর্যন্ত হৃদরোগ, শ্বাসকষ্ট ও বার্ধক্যজনিতরোগে ৪ মুসল্লি মারা গেছেন। তারা হলেন, বগুড়ার ধনুট থানার হাতিয়াপাড়া এলাকার হাজী আফজাল হোসেন (৬০), কুমিল্লা সদরের হোসেনপুর সাতবাড়ি এলাকার মো. নাজির আহমদ (৫৫), গোপালগঞ্জ টঙ্গীপাড়ার নীল্ফা এলাকার মো. বাদল ফকির (৭০) ও খুলনা সদরের সোনাডাঙ্গা গ্রামের শামসুল হক (৭২)। বিশ্ব ইজতেমার মাসলেহাল (সমস্যা সমাধান) জামাতের সদস্য আদম আলী এসব তথ্য জানান। এ নিয়ে বিশ্ব ইজতেমায় মোট ১৭ মুসল্লির মৃত্যু হয়েছে। এর আগে বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্বে আরও ১৩ মুসল্লির মৃত্যু হয়।
টঙ্গী হাসপাতালে চিকিত্সা : টঙ্গী হাসপাতাল ও সিভিল সার্জনের তত্ত্বাবধানে পরিচালিত ৩টি মেডিকেল ক্যাম্পে গতকাল সকাল ৮টা পর্যন্ত গত দু’দিনে বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত ৩ হাজার ৮২৭ জন মুসল্লি চিকিত্সা নিয়েছেন। এদের মধ্যে শ্বাসকষ্ট ও হৃদরোগজনিত ১৪ জনকে ঢাকায় রেফার্ড করা হয়েছে এবং ১৫ জন টঙ্গী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন গাজীপুরের সিভিল সার্জন সৈয়দ হাবিব উল্লাহ। এছাড়া ইজতেমার আশপাশে প্রায় অর্ধশত ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্পে কয়েক হাজার মুসল্লি চিকিত্সা নিয়েছেন।
ভ্রাম্যমাণ আদালতের জরিমানা : ইজতেমাস্থল ও আশপাশের খাবারের দোকান ও হোটেলে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার বিকাল থেকে গতকাল দুপুর পর্যন্ত অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে খাদ্য পরিবেশন ও ভেজাল খাদ্য বিক্রয়ের অভিযোগে বিভিন্ন খাবারের দোকান ও হোটেল মালিকদের বিরুদ্ধে ৯টি মামলা ও ৬৪ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করেছেন বলে জানিয়েছেন ইজতেমাস্থলে গাজীপুর জেলা নিয়ন্ত্রণ কক্ষে দায়িত্বরত কর্মকর্তা জামালপুরের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. আকরাম আলী।
প্রথম দিনে বিভিন্ন দেশের আড়াই হাজার বিদেশি মুসল্লি : ইজতেমার দ্বিতীয় পর্বের প্রথম দিন আমেরিকা, আরব, ইংল্যান্ডসহ বিশ্বের ৭৭টি দেশের প্রায় আড়াই হাজার মুসল্লি ইজতেমায় অংশ নিয়েছেন। বিভিন্ন ভাষাভাষী ও মহাদেশ অনুসারে ইজতেমা ময়দানে বিদেশি মেহমানদের জন্য মোট ৩টি ট্যান্ট নির্মাণ করা হয়েছে। সেখানে তাদের জন্য প্রয়োজনীয় সুযোগ-সুবিধার ব্যবস্থা রাখা হয়েছে বলে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক জিম্মাদার জানিয়েছেন। এছাড় দ্বিতীয় দফার ইজতেমায় দেশের ৩৩টি জেলার মুসল্লিরা অংশ নিয়েছেন।
ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্পে চিকিত্সা : গতকাল সকাল থেকে ইজতেমা ময়দান সংলগ্ন ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্পগুলোতে মুসল্লিদের চিকিত্সা নিতে ভিড় দেখা গেছে। মুসল্লিদের স্বাস্থ্যসেবা প্রদানের জন্য ময়দানের আশপাশে ও মূল নগর এলাকায় বাংলাদেশ হোমিওপ্যাথি পরিষদ, হোমিওপ্যাথি অনুশীলন, র্যাব’র ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প, গাজীপুর সিভিল সার্জন অফিস, হামদর্দ ওয়াক্ফ, ইবনে সিনা, ইন্টারন্যাশনাল মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, এপেক্স বাংলাদেশ, টঙ্গী থানা প্রেস ক্লাব, ইসলামিক ফাউন্ডেশন, আঞ্জুমান মফিদুল ইসলাম ও পাকিজাগ্রুপ, টঙ্গী ওষুধ ব্যবসায়ী কল্যাণ সমিতিসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের প্রায় অর্ধশত ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্পে চিকিত্সকরা সেবা দিচ্ছেন। বাংলাদেশ হোমিওপ্যাথি পরিষদে কর্মরত চিকিত্সক মো. নূরুল হক জানান, এলোপ্যাথি ছাড়া মুসল্লিরা হোমিওপ্যাথি চিকিত্সা নিতে তাদের ক্যাম্পে ভিড় করেছেন। তাদের অধিকাংশই হলেন ঠাণ্ডা, সর্দি, কাশি, আমাশয়, শ্বাসকষ্টের রোগী।
৯ পকেটমার গ্রেফতার : টঙ্গী থানার উপ-পরিদর্শক মালেকা বানু জানান, বৃহস্পতিবার বিকাল থেকে গতকাল দুপুর পর্যন্ত ইজতেমাস্থল ও আশপাশে অভিযান চালিয়ে পুলিশ ৯ পকেটমারকে গ্রেফতার করেছে। তিনি আরও জানান, পকেটমার-ছিনতাইকারী গ্রেফতারে ইজতেমা এলাকায় পুলিশের ২০টি টিম এবং হকার উচ্ছেদে ৮টি টিম কাজ করছে।
শনিবার যৌতুকবিহীন বিয়ে : ইসলামিক শরিয়া অনুযায়ী আজ বাদ আসর যৌতুকবিহীন বিয়ে অনুষ্ঠিত হবে। গতকাল সকাল থেকে ওইসব বিয়ের জন্য বয়ান মঞ্চের কক্ষেই বর-কনের নাম তালিকাভুক্ত করা হয়।
ইজতেমার ইতিহাস : ইজতেমার মুরব্বিদের দেয়া তথ্যমতে, ১৯৪৬ সালে প্রথম কাকরাইল মসজিদে ইজতেমার আয়োজন শুরু করা হয়। তারপর ১৯৪৮ সালে চট্টগ্রামের হাজী ক্যাম্পে ও ১৯৫৮ সালে নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জে ইজতেমা অনুষ্ঠিত হয়। এরপর লোকসংখ্যা বেড়ে যাওয়ায় ১৯৬৬ সালে গাজীপুরের টঙ্গীর তুরাগ নদীর তীরে বর্তমানস্থল স্থানান্তর করা হয়েছে। পরে সরকারিভাবে তুরাগ তীরের ১৬০ একর জমি স্থায়ীভাবে ইজতেমার জন্য বরাদ্দ দেয়া হয়।