Amardesh
আজঃঢাকা, মঙ্গলবার ৮ জানুয়ারি ২০১৩, ২৫ পৌষ ১৪১৯, ২৫ সফর ১৪৩৪ হিজরী    আপডেট সময়ঃ রাত ১২ টা
 
 সাধারণ বিভাগ
 বিশেষ কর্ণার
 শোক ও মৃত্যুবার্ষিকী
 সাপ্তাহিক
 
আবহাওয়া
 
 
আর্কাইভ: --
 

নারী নির্যাতন : মহেশপুরে হাসপাতালে ধর্ষিত সেবিকা, পালিয়েছে মালিক : বাঘা বরিশাল তানোরে ইজ্জত হারালেন আরও তিনজন

ডেস্ক রিপোর্ট
« আগের সংবাদ
পরের সংবাদ»
এবার ঝিনাইদহের মহেশপুরে হাসপাতালেই রাতে দায়িত্ব পালনকালে ধর্ষিত হয়েছেন এক সেবিকা। ঘটনায় পালিয়েছে ওই হাসপাতালের মালিক তরিকুল ইসলাম। ধর্ষিত সেবিকা তার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছেন। মামলায় বলা হয়েছে, ২৫ ডিসেম্বর রাতে হাসপাতালে দায়িত্ব পালনকালে মালিক তরিকুল ইসলাম ওই সেবিকাকে ওষুধ খাইয়ে অচেতন করে উপর্যুপরি ধর্ষণ করে। এতে গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েন ওই সেবিকা। সুস্থতার পর রোববার তিনি মালিক তরিকুলের বিরুদ্ধে থানায় মামলা করেছেন। মামলা দায়েরের পর এলাকা ছেড়ে পালিয়েছেন তরিকুল। এ ঘটনায় এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। হাসপাতাল মালিক তরিকুলকে গ্রেফতারের প্রতিবাদে উত্তপ্ত পরিবেশ বিরাজ করছে ওই এলাকায়।
এদিকে রাজশাহীর বাঘায় ধর্ষণের পর বিষ খাইয়ে মেধাবী কলেজছাত্রীকে হত্যার চেষ্টা চালিয়েছে এক বখাটে। বরিশালে গৃহবধূকে ধর্ষণের দায়ে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল আদালতে মামলা দায়ের করা হয়েছে। এছাড়া রাজশাহীর বাঘায় কিশোরীকে ধর্ষণের দায়ে পুলিশ গ্রেফতার করেছে এক বখাটেকে। বিস্তারিত আমাদের প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর :
মহেশপুরে সেবিকাকে অচেতন করে ধর্ষণ : ঝিনাইদহের মহেশপুরে হাসপাতালে রাতে দায়িত্ব পালনকালে ধর্ষিত হয়েছেন এক সেবিকা। সালেহা ক্লিনিক নামে ওই হাসপাতালের মালিক তরিকুল ইসলাম ওই সেবিকাকে কৌশলে ঘুমের ট্যাবলেট খাইয়ে অচেতনের পর ধর্ষণ করে। এ ঘটনায় মহেশপুর থানায় একটি ধর্ষণ মামলা হয়েছে ।
মহেশপুর থানার ওসি আনোয়ার হোসেন জানান, গত ২৫ ডিসেম্বর রাতে ওই সেবিকা ক্লিনিকের সিস্টার রুমে ঘুমিয়ে ছিল। মালিক তরিকুল ইসলাম পরিকল্পিতভাবে তাকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। অবশ্য ঘুমানোর আগে ২২টি ঘুমের ট্যাবলেট তরল পানির সঙ্গে খাইয়ে তাকে অচেতন করে ধর্ষণ করে। পরে ধর্ষিতা সেবিকার বাবা মেয়েকে উদ্ধার করে মহেশপুর হাসপাতালে ভর্তি করে। ধর্ষিতা সুস্থ হয়ে গত রোববার নিজেই বাদী হয়ে মহেশপুর থানায় একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন। ঘটনার পর থেকে সালেহা ক্লিনিকের মালিক তরিকুল ইসলাম পালিয়ে রয়েছেন। ঘটনা জানাজানি হলে ধর্ষকের বিচার দাবিতে মহেশপুরজুড়ে উত্তপ্ত পরিবেশ বিরাজ করছে। ওসি আনোয়ার হোসেন বলেন, আসামিকে গ্রেফতারের জোর চেষ্টা চলছে।
বাঘায় কলেজ ছাত্রীকে ধর্ষণের পর হত্যার চেষ্টা : রাজশাহীর বাঘায় এক মেধাবী কলেজ ছাত্রীকে ধর্ষণের পর মুখে বিষ ঢেলে হত্যা চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় ওই ছাত্রী নিজে বাদী হয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে একটি মামলা করেছেন।
মামলা সূত্রে জানা যায়, উপজেলার মোজাহার হোসেন মহিলা ডিগ্রি কলেজের ওই ছাত্রীর সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক ছিল উপজেলার ঢাকা চন্দ্রগাথি গ্রামের আবদুুর আলিমের ছেলে ও ইসলামী একাডেমি স্কুল অ্যান্ড কলেজের প্রথম বর্ষের ছাত্র শিমুল আহাম্মেদ রুমনের। রুমন ওই ছাত্রীকে বিয়ের প্রলোভনে ৩১ ডিসেম্বর দুপুর ১২টায় গাওপাড়া গ্রামের এক বন্ধুর বাড়িতে নিয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। তাকে বিয়ে করার জন্য অনুরোধ করলে রুমন মুখে বিষ ঢেলে হত্যার চেষ্টা করে পালিয়ে যায়। পরে রুমনের চাচাতো ভাই পিযুষ তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ভর্তি করে।
রোববার রুমনকে আসামি করে বাঘা থানায় ধর্ষণের অভিযোগে একটি মামলা দায়ের করেছে ধর্ষিতা। বাঘা থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) হামিদুর রশিদ জানান, আসামি গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।
বরিশালে গৃহবধূকে ধর্ষণের অভিযোগে মামলা : নগরীর কেডিসি এলাকায় এক গৃহবধূকে ধর্ষণের ঘটনায় বরিশাল নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে মামলা দায়ের করা হয়েছে। বিচারক ধর্ষিতার ডাক্তারি পরীক্ষাসহ আগামী সাত কার্যদিবসের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের জন্য কোতোয়ালি মডেল থানার ওসিকে নির্দেশ দিয়েছেন।
নগরীর কেডিসি এলাকার বাসিন্দা ধর্ষিতা ওই গৃহবধূ সাংবাদিকদের জানান, তার স্বামী পটুয়াখালীতে একটি প্লাস্টিকের কারখানায় কর্মরত আছেন। এ সুযোগে বখাটে যুবক কায়েস আহমেদ ৫ জানুয়ারি রাতে তাকে ধর্ষণ করে। এ ঘটনায় ধর্ষক কায়েস ও তার সহযোগী সাজ্জাতকে অভিযুক্ত করে রোববার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে মামলা দায়ের করা হয়েছে।
তানোরে কিশোরি ধর্ষণ-থানায় মামলা : রাজশাহীর তানোরে এক কিশোরী ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় ওই কিশোরী বাদী হয়ে গত রোববার রাতে দু’জনকে আসামি করে তানোর থানায় একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেছেন। মামলার প্রেক্ষিতে পুলিশ রোববার রাতে দুলাল চন্দরের ছেলে তপনকে আটক করে জেলহাজতে পাঠিয়েছে।
রামুতে সংখ্যালঘু নারীকে হত্যার অভিযোগে ইউএনও’র কার্যালয় ঘেরাও : কক্সবাজারের রামু উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা দেবী চন্দের মানসিক নির্যাতনে এক সংখ্যালঘু গৃহবধূর মৃত্যুর অভিযোগে ইউএনও কার্যালয় ও বাসভবন ঘেরাও করে বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে বিক্ষুব্ধ হাজার হাজার নারী-পুরুষ। গতকাল বিকাল ৪টায় এ কর্মসূচি পালিত হয়। বিক্ষোভ চলাকালে বিজিবি ও পুলিশ সদস্যরা অপ্রীতিকর পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা চালায়। সমাবেশে ইউএনও’র বিরুদ্ধে গৃহবধূ জ্যোতিকা বড়ুয়াকে হত্যার অভিযোগ এনে এ ঘটনার বিচার বিভাগীয় তদন্ত দাবি দাবি করা হয়েছে।
টাঙ্গাইলে স্কুলছাত্রী ধর্ষণের প্রতিবাদে ডিসি অফিস ঘেরাও : টাঙ্গাইলে স্কুলছাত্রী ধর্ষণের প্রতিবাদে ও আসামিদের বিচার দাবিতে জেলা প্রশাসকের কার্যালয় ঘেরাও কর্মসূচি পালন করেছে ভূমিহীন সমিতি। একই সঙ্গে তারা জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারের কাছে স্মারকলিপি দিয়েছে। গতকাল দুপুরে জেলা প্রশাসক কার্যালয় ঘেরাও কর্মসূচি পালন করা হয়। এর আগে ভূমিহীন সমিতির উদ্যোগে ধর্ষিত স্কুলছাত্রীর গ্রাম সদর উপজেলার শিবপুর থেকে সহস্রাধিক লোকের একটি মিছিল বের হয়ে জেলা প্রশাসক কার্যালয় অভিমুখে রওনা হয়। জেলা প্রশাসকের পক্ষে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক(সার্বিক) মাহবুবুল আলম স্মারকলিপি গ্রহণ করেন।
কোটালীপাড়ায় প্রতিবন্ধীকে ধর্ষণের প্রতিবাদে মানববন্ধন : গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়ায় এক প্রতিবন্ধী তরুণীকে ধর্ষণের প্রতিবাদে এবং দোষীদের গ্রেফতার ও শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়েছে। উপজেলার সোনাটিয়া গ্রামবাসী এ মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করে।
গতকাল কোটালীপাড়া উপজেলা পরিষদের সামনের রাস্তায় বেলা ১১টা থেকে ১২টা পর্যন্ত ঘণ্টাব্যাপী মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়। এ সময় দোষীদের গ্রেফতার ও শাস্তির দাবিতে বিভিন্ন স্লোগান দেয় মানববন্ধনকারীরা। মানববন্ধন শেষে ওই ধর্ষিতার বোন সাংবাদিকদের জানায়, তার প্রতিবন্ধী বোনকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে একই গ্রামের ইউসুফ আলী শাহর ছেলে রূপচান শাহ তার দুই সহযোগী নিয়ে গত ২২ এপ্রিল ধর্ষণ করে। সে বর্তমানে ৮ মাসের অন্তঃসত্ত্বা। ধর্ষিত ওই প্রতিবন্ধী যুবতীকে উন্নত চিকিত্সার জন্য গতকাল দুপুরে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।
কোটালীপাড়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. তোতা মিয়া জানান, গত ৩ জানুয়ারি ধর্ষিতার ভাই বাদী হয়ে গোপালগঞ্জ আদালতে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা দায়ের করেন।