মেঘনা-গোমতী সেতুর মেরামতকাজ শুরু বেড়ে গেছে দ্রব্যমূল্য

দাউদকান্দি (কুমিল্লা) প্রতিনিধি « আগের সংবাদ
পরের সংবাদ» ২১ জুন ২০১৫, ২:৫৮ অপরাহ্ন

শনিবার ভোরে মেঘনা-গোমতী (দাউদকান্দি) সেতুর মেরামতকাজ শুরু হয়েছে। প্রথম পর্যায়ে মেঘনা ও মেঘনা-গোমতী সেতুর ৩টি করে ৬টি এক্সপানশন জয়েন্ট এবং হিঞ্জ বেয়ারিংয়ের কাজ করা হবে বলে সড়ক ও জনপথ বিভাগ সূত্রে জানা যায়।
চান্দিনার পূর্বাঞ্চলের জনগণ ময়নামতি এবং বি.বাড়িয়া, ভৈরব হয়ে ট্রেন ও বাসে ঢাকা পৌঁছলেও চান্দিনার পশ্চিম দিকের মানুষজন লোকাল বাস এবং সিএনজিচালিত ট্যাক্সিযোগে দাউদকান্দি ঘাটে পৌঁছে। সেখান থেকে প্রায় দেড় কিলোমিটার দীর্ঘ মেঘনা-গোমতী (দাউদকান্দি) সেতু হেঁটে পাড়ি দিয়ে বাউশিয়া পৌঁছে। বাউশিয়া ঘাট থেকে আবার লোকাল বাস বা সিএনজিচালিত ট্যাক্সিযোগে মেঘনা ঘাটে পৌঁছে সেখান থেকে ইঞ্জিনচালিত নৌকায় নদী পার হয়ে ওপারে গিয়ে সেখান থেকে বাসযোগে ঢাকা পৌঁছে।
সেতু দুটি মেরামতকারী প্রকল্পের ইঞ্জিনিয়ারিং কোরের উপ-পরিচালক লে. কর্নেল আনোয়ার উদ্দিনের সঙ্গে আলাপকালে তিনি বলেন, সেতু মেরামতের জন্য যে যন্ত্রপাতি ও জনবলের প্রয়োজন, তার সবই আছে। তবে এক্সপানশন জয়েন্টের পুরনো ঢালাইগুলো খুবই মজবুত, তাই আধুনিক যন্ত্রপাতি ছাড়া তা ভাঙা সম্ভব নয়। তারপরও আমাদের কাছে বর্তমান পুরনো দিনের যন্ত্রপাতি ব্যবহার করে তা ভাঙা হচ্ছে। মেঘনা সেতু দিয়ে ট্রলার দিয়ে যাত্রী পারাপার অব্যাহত রয়েছে, কিন্তু মেঘনা-গোমতী নদী দিয়ে ট্রলার চলাচলের ব্যবস্থা না থাকায় মেরামত কাজ চলাকালে সেতুর ওপর দিয়ে যাত্রীদের চলাচল নিষেধাজ্ঞা থাকা সত্ত্বেও জনগণের দুর্ভোগ দেখে ছেড়ে দেয়া হচ্ছে। এদিকে পরিবহন সমস্যার কারণে দাউদকান্দি, চান্দিনা, মুরাদনগর, মতলব, কচুয়া হোমনা, তিতাস ও মেঘনা উপজেলার হাটবাজারগুলোতে শাকসবজি এবং অন্য মালামালের মূল্য বেড়ে গেছে।

শেষের পাতা এর আরও সংবাদ

সাপ্তাহিকী


উপরে