Amardesh
আজঃঢাকা, রোববার ৬ জানুয়ারি ২০১৩, ২৩ পৌষ ১৪১৯, ২৩ সফর ১৪৩৪ হিজরী    আপডেট সময়ঃ রাত ১২ টা
 
 সাধারণ বিভাগ
 বিশেষ কর্ণার
 শোক ও মৃত্যুবার্ষিকী
 সাপ্তাহিক
 
আবহাওয়া
 
 
আর্কাইভ: --
 

ঢাকা এশায়াত সম্মেলনে ছৈয়্যদ মুহাম্মদ মুনির উল্লাহ আহমদী : গাউসুল আজমের তরিকত সিরাতুল মোস্তাকিমের প্রকৃত সোপান

« আগের সংবাদ
পরের সংবাদ»
চট্টগ্রাম কাগতিয়া আলিয়া গাউসুল আজম দরবার শরিফের মোর্শেদে আজম শায়খ ছৈয়্যদ মুহাম্মদ মুনির উল্লাহ আহমদী বলেছেন, গাউসুল আজমের তরিকত হচ্ছে সিরাতুল মোস্তাকিমের প্রকৃত সোপান।
পাপী নয়, পাপকে ঘৃণা কর—এ নীতি অনুসরণের মাধ্যমে দেশে-বিদেশে অগণিত যুবক আজ আলোর পথে ফিরে এসেছে। তিনি বলেন, এ থেকে প্রমাণিত হয়—কোরআন-সুন্নাহর আলোকে সঠিক দিকনির্দেশনা ও আধ্যাত্মিক চেতনায় উজ্জীবিত করতে পারলে কোনো যুবক আর বিপথগামী হবে না।
তিনি গতকাল বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদ চত্বরে মুনিরিয়া যুব তবলিগ কমিটি বাংলাদেশের উদ্যোগে ঐতিহাসিক এশায়াত সম্মেলনে উপস্থিত লাখো জনতার উদ্দেশে এসব কথা বলেন। ছৈয়্যদ মুহাম্মদ মুনির উল্লাহ আহমদী আরও বলেন, ভ্রান্ত পথে চলা যুবকদের আমরা আলোর পথে ফিরে আসার জন্য অরাজনৈতিক ও আধ্যাত্মিক সংগঠন মুনিরিয়া যুব তবলিগ কমিটি বায়লাদেশ প্রতিষ্ঠা করেছি। এ সংগঠনের কার্যক্রম আজ যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্যসহ বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে ছড়িয়ে পড়েছে। তিনি যুবকদের এ সংগঠনের ছায়াতলে আশ্রয় নেয়ার আহ্বান জানান।
বাংলাদেশ জমিয়াতুল মোদাররেছিনের সভাপতি ও দৈনিক ইনকিলাব সভাপতি আলহাজ এ এম এম বাহাউদ্দীনের সভাপতিত্বে সম্মেলনে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ জমিয়াতুল মোদাররেছিনের মহাসচিব ও কুষ্টিয়া ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় সিন্ডিকেট সদস্য আল্লামা শাব্বীর আহমদ মোমতাজী, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় মাইক্রোবায়লজি বিভাগের সাবেক চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. মুহাম্মদ আবুল মনছুর প্রমুখ।
সভাপতির বক্তব্যে দৈনিক ইনকিলাব সভাপতি আলহাজ এ এম এম বাহাউদ্দীন বলেন, যুগশ্রেষ্ঠ ওলিয়ে কামেল কাগতিয়ার গাউসুল আজমের আদর্শ অনুসৃত তরিকতের ঝান্ডা হাতে নিয়ে তার একমাত্র খলিফা আল্লামা অধ্যক্ষ ছৈয়দ মুহাম্মদ মুনির উল্লাহ আহমদী এ দরবার তথা মুনিরিয়া যুব তবলিগ কমিটির মাধ্যমে ইসলামের শাশ্বত সুন্দর বাণী বিশ্বময় পৌঁছে দিতে যে নিরলস প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন, তা সত্যিই প্রশংসনীয়। তার চেষ্টায় এ তরিকতের প্রচার প্রসার দ্রুত হচ্ছে।
প্রধান আলোচকের বক্তব্যে সংগঠনের মহাসচিব অধ্যাপক মুহাম্মদ ফুরকান বলেন, কাগতিয়া গাউসুল আজমের দর্শন সম্পূর্ণ রুহানি প্রযুক্তিভিত্তিক স্বতন্ত্র মহিমাসম্পন্ন—যা হতাশাগ্রস্ত যুবসমাজকে অপকর্ম ও অপসংস্কৃতির ছোবল থেকে আলোর দিকনির্দেশনা দেবে।
ড. হারুন-অর রশীদ বলেন, মানবকল্যাণে সামাজিক নিরাপত্তা ও অর্থনৈতিক উন্নয়নে ইসলামের যথার্থ অনুসরণ ও বিধিবিধান পালনের কোনো বিকল্প নেই। আর এক্ষেত্রে কাগতিয়ার গাউসুল আজমের আদর্শ ও দর্শন অত্যন্ত ফলপ্রসূ ভূমিকা পালন করছে।
আল্লামা শাব্বীর আহমদ মোমতাজী বলেন, যুবসমাজের অবক্ষয়ের এ যুগে এ দরবারের হাজার হাজার যুবকের ধর্মকর্ম পালনে নিষ্ঠা দেখে আমি সত্যিই মুগ্ধ হই।
অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন আল্লামা মুফতি মুহামদ ইব্রাহীম হানফি, উপাধ্যক্ষ বদিউল আলম আহমদী, আল্লামা আনোয়ারুল আলম সিদ্দীকী, আল্লামা আশেকুর রহমান, আল্লামা এমদাদুল হক মুনিরী, আল্লামা সেকান্দর আলী ও আল্লামা মুহাম্মদ ফোরকান। বিজ্ঞপ্তি