Amardesh
আজঃঢাকা, রোববার ৬ জানুয়ারি ২০১৩, ২৩ পৌষ ১৪১৯, ২৩ সফর ১৪৩৪ হিজরী    আপডেট সময়ঃ রাত ১২ টা
 
 সাধারণ বিভাগ
 বিশেষ কর্ণার
 শোক ও মৃত্যুবার্ষিকী
 সাপ্তাহিক
 
আবহাওয়া
 
 
আর্কাইভ: --
 

নাসিরের সেঞ্চুরি : সোহাগের ঘূর্ণিতে সাউথকে হারাল ইস্ট

স্পোর্টস রিপোর্টার
« আগের সংবাদ
পরের সংবাদ»
বাংলাদেশ ক্রিকেট লিগের (বিসিএল) দ্বিতীয় রাউন্ডের ম্যাচে ইসলামী ব্যাংক ইস্ট জোনের বিপক্ষে চমক দেখিয়েছে প্রাইম ব্যাংক সাউথ জোন। শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে পরাজয়ের সম্ভাবনায় থাকা দলটি গতকাল ম্যাচের চতুর্থ ও শেষদিন ৩৭ রানের জয় নিয়ে মাঠ ছেড়েছে। চলতি লিগে এটি কোনো দলের প্রথম জয়। মূলত ম্যাচটিতে জয় পাওয়ার সম্ভাবনায় ছিল ইসলামী ব্যাংক ইস্ট জোন। গতকাল ম্যাচের চতুর্থ ও শেষদিন জয়ের জন্য দলটির প্রয়োজন ছিল ১২৭ রান। হাতে ছিল ৮ উইকেট। কিন্তু গতকাল ম্যাচের শেষদিন সাউথ জোনের অফস্পিনার সোহাগ গাজীর ঘূর্ণিতে ব্যাটসম্যানরা খেই হারিয়ে ফেলায় পরাজয়ের বিকল্প থাকেনি ইস্ট জোনের।
এদিকে বগুড়ার শহীদ চান্দু স্টেডিয়ামে দু’দলই ভালো ব্যাট করায় বিসিবি নর্থ জোন-ওয়ালটন সেন্ট্রাল জোনের ম্যাচটি নিষ্প্রাণ ‘ড্র’ হয়েছে। ম্যাচটিতে প্রথম ইনিংসের পর দ্বিতীয় ইনিংসেও ভালো ব্যাট চালিয়েছে নর্থ জোন। দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে দুর্দান্ত এক সেঞ্চুরি করেছেন দলটির মিডল অর্ডার নাসির হোসেন (১৩১)।
ইস্ট জোনের দারুণ জয় : প্রাইম ব্যাংক সাউথ জোনকে হারানোর জন্য ইসলামী ব্যাংক ইস্ট জোনের ৮ উইকেটে ১২৭ রানের প্রয়োজন ছিল। গতকাল শেষদিন দলের স্কোরে ১৬ রান জমা পড়তেই তৃতীয় উইকেট হারায় ২ উইকেটে ১৩৮ রান নিয়ে আগের দিন শেষ করা ইস্ট জোন। মমিনুল হককে আবদুর রাজ্জাকের ক্যাচে পরিণত করেন সোহাগ গাজী। এ অফস্পিনারের ঘূর্ণিতে অল্প সময়েই এলোমেলো হয়ে যায় ইস্ট শিবির। সোহাগের সঙ্গে জ্বলে ওঠেন সতীর্থ আরেক স্পিনার আবদুর রাজ্জাক। এ দুই স্পিনারের কৌশলী বোলিংয়ের সামনে রীতিমত আত্মসমর্পণ করেন ইস্ট জোনের ব্যাটসম্যানরা।
গতকাল ৩০ ওভার ২ বল খেলে দলের স্কোরে আরও ৮৯ রান জমা পড়তেই গুঁড়িয়ে যায় ইস্ট। দলের পক্ষে ৩৮ রান করেন আগের দিন ৩৬ রানে অপরাজিত থাকা রাজিন সালেহ। অন্যদের মধ্যে ধীমান ঘোষ ২৮, নাবিল সামাদ ১৭ রান করেন।
দ্বিতীয় ইনিংসে সাউথ জোনের বোলারদের মধ্যে ২৮ ওভার বল করে ৮ মেডেনসহ ৭৩ রান দিয়ে ৫টি উইকেট নেন অফস্পিনার সোহাগ গাজী। দুটি করে উইকেট নেন আবদুর রাজ্জাক ও পেসার রবিউল ইসলাম। দুই ইনিংসে ১১টি উইকেট নেয়ায় ম্যাচসেরা হন সাউথ জোনের সোহাগ গাজী।
‘ড্র’ হলো নর্থ জোন-সেন্ট্রাল জোনের ম্যাচ : বগুড়ায় শহীদ চান্দু স্টেডিয়ামে দু’দলই সমানতালে ব্যাট করায় চারদিন শেষে নিষ্প্রাণ ‘ড্র’ হয়েছে বিসিবি নর্থ জোন ও ওয়ালটন সেন্ট্রাল জোনের দ্বিতীয় রাউন্ডের ম্যাচ। নর্থ জোনের ৩৬১ রানের জবাবে গতকাল ৯ উইকেটে ৪৩৬ রানে প্রথম ইনিংস ঘোষণা করে আগের দিন ৮ উইকেটে ৪৩৪ রানে তৃতীয় দিন শেষ করা সেন্ট্রাল জোন। এতে প্রথম ইনিংসে ৭৫ রানের লিড পায় দলটি।
প্রথম ইনিংসে পিছিয়ে থেকে গতকাল দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নামে বিসিবি নর্থ জোন। ৮৪ ওভার ব্যাট করে ৬ উইকেটে ৩৯৭ রান করতেই শেষ হয়ে যায় নির্ধারিত চারদিনের খেলা। দ্বিতীয় ইনিংসে নর্থ জোনের পক্ষে সর্বোচ্চ ১৩১ রানের ইনিংস খেলেন মিডল অর্ডার নাসির হোসেন। ১১২ বলে গড়া তার ইনিংসটিতে ৯টি চার ও ৪টি ছক্কার মার রয়েছে। ৮৪ বলে ১১টি চারসহ ৭৭ রান নিয়ে অপরাজিত থাকেন ফরহাদ রেজা। ৭৩ রান করে উইকেটছাড়া হন ওপেনার মাইশুকুর রহমান। অন্যদের মধ্যে নাঈম ইসলাম ২৫, অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম ২৪ ও সোহরাওয়ার্দী শুভ ২২* রান করেন। সেন্ট্রাল জোনের বোলারদের মধ্যে ৬৫ রানে ৩টি উইকেট নেন মোহাম্মদ আশরাফুল। এর আগে প্রথম ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে ১৩৩ রানের ইনিংস খেলায় ম্যাচসেরা হন তিনি।
সংক্ষিপ্ত স্কোর
সাউথ জোন-ইস্ট জোন
সাউথ জোন ১ম ইনিংস : ২৪৮/১০ (৭৩ ওভার)।
ইস্ট জোন ১ম ইনিংস : ২৩২/১০ (৬৫.৩ ওভার)।
সাউথ জোন ২য় ইনিংস : ২৪৮/১০ (৯১ ওভার)।
ইস্ট জোন ২য় ইনিংস : ২২৭/১০ (৭২.১ ওভার)।
ফল : সাউথ জোন ৩৭ রানে জয়ী।
নর্থ জোন-সেন্ট্রাল জোন
নর্থ জোন ১ম ইনিংস : ৩৬১/১০ (১১১.৫ ওভার)।
সেন্ট্রাল জোন ১ম ইনিংস : (ঘোষণা) ৪৩৬/৯ (১৫৭.১ ওভার)।
নর্থ জোন ২য় ইনিংস : ৩৯৭/৬ (৮৪ ওভার)।
ফল : ড্র।