নারী নির্যাতন : নালিতাবাড়ী সীমান্তে অপহরণের পর কিশোরীকে গণধর্ষণ

নালিতাবাড়ী (শেরপুর) প্রতিনিধি « আগের সংবাদ
পরের সংবাদ» ২১ জুন ২০১৫, ২:৫৮ অপরাহ্ন

গতকাল রাতে শেরপুরের নালিতাবাড়ীর সীমান্তবর্তী পানিহাতা গ্রাম থেকে ১৪ বছর বয়সী এক কিশোরীকে অপহরণের পর পাহাড়ের গহীন বনে নিয়ে রাতভর পালাক্রমে ধর্ষণ করেছে ৫ বখাটে। ওই কিশোরী আত্মীয় বাড়ি যাচ্ছিল। বখাটেরা তাকে মোটরসাইকেলে অপহরণ করে। ধর্ষক বখাটেরা এখন ওই কিশোরীর পরিবারকে হুমকি দিচ্ছে।
কিশোরী জানায়, গতকাল সন্ধ্যার আগ মুহূর্তে সে আত্মীয় বাড়ি যাওয়ার জন্য নানার বাড়ি থেকে বের হয়। পথে প্রতিবেশী মোটরসাইকেল চালক জাহিদুল ও অপর প্রতিবেশী ফারুক আত্মীয় বাড়ি পৌঁছে দেয়ার কথা বলে জোরপূর্বক মোটরসাইকেলে তুলে নেয়। রাস্তায় সন্ধ্যা ঘনিয়ে এলে ওই কিশোরীকে নিয়ে পাহাড়ের গহীন অরণ্যে ঢুকে চোখ বেঁধে ফেলে তারা। পরে এ দুই বখাটে পালাক্রমে একাধিকবার ধর্ষণের পর মোবাইল ফোনে ৩ সদস্যের অপর একটি বখাটে চক্রের হাতে ১০ হাজার টাকা তুলে দিয়ে চলে যায়। পরে ওই বখাটেরা পাহাড়ের একটি পরিত্যক্ত ঘরে কিশোরীকে ধর্ষণ করে। পরে বাথরুমের কথা বলে ওই কিশোরী দৌড়ে পালিয়ে আসে।
এদিকে ঘটনা জানাজানি হলে প্রতিবেশী ধর্ষকরা জীবননাশের হুমকি দিচ্ছে কিশোরীর পরিবারকে। স্থানীয় ইউপি সদস্য আবদুল জুব্বার জানান, বিষয়টি গুরুতর অপরাধ বিধায় আমি তাদের আইনের আশ্রয় নিতে বলেছি।
এদিকে নালিতাবাড়ী থানার সেকেন্ড অফিসার এসআই মোখলেছুর রহমান জানান, ঘটনা শুনিনি। থানায় অভিযোগ এলে আমরা আইনি ব্যবস্থা নেব।

শেষের পাতা এর আরও সংবাদ

সাপ্তাহিকী


উপরে