Amardesh
আজঃঢাকা, বৃহস্পতিবার ২৭ ডিসেম্বর ২০১২, ১৩ পৌষ ১৪১৯, ১৩ সফর ১৪৩৪ হিজরী    আপডেট সময়ঃ রাত ১২ টা
 
 সাধারণ বিভাগ
 বিশেষ কর্ণার
 শোক ও মৃত্যুবার্ষিকী
 সাপ্তাহিক
 
আবহাওয়া
 
 
আর্কাইভ: --
 

রাখাইন-রোহিঙ্গা শান্তি স্থাপনে কাজ করতে আগ্রহী সু চি

রয়টার্স
« আগের সংবাদ
পরের সংবাদ»
মিয়ানমারে রাখাইন ও রোহিঙ্গা সম্প্রদায়ের মধ্যে শান্তি প্রতিষ্ঠায় কাজ করার আগ্রহ প্রকাশ করেছেন দেশটির বিরোধী দলীয় নেতা ও গণতান্ত্রিক আন্দোলনের নেতা অং সান সু চি। ব্রিটিশ দৈনিক গার্ডিয়ানের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, সু চি সম্প্রতি যুক্তরাজ্যের পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী হুগো স্যুয়ারের কাছে এই আগ্রহের কথা জানান। স্যুয়ারের বরাত দিয়ে প্রতিবেদনে বলা হয়, মিয়ানমার সরকার প্রস্তাব দিলে রাখাইন-রোহিঙ্গা সঙ্কট সমাধানে সহায়তা করতে রাজি আছেন সু চি। সম্প্রতি স্যুয়ারের মিয়ানমার সফরে এক সংক্ষিপ্ত বৈঠকে সু চি এই আগ্রহ দেখান বলে ব্রিটিশ প্রতিমন্ত্রী জানান। ‘এ বিষয়ে সু চির অবস্থান অত্যন্ত স্পষ্ট—তিনি খুবই ব্যস্ত। তিনি দেশের সবকিছু করতে পারেন না। তাকে আনুষ্ঠানিকভাবে এ বিষয়ে সম্পৃক্ত হওয়ার আমন্ত্রণ জানালে তিনি খুবই আগ্রহের সঙ্গে তা করবেন বলে আমার কাছে ইঙ্গিত দিয়েছেন।’ এই সফরে রাখাইন প্রদেশে দাঙ্গায় গৃহহীনদের বেশ কয়েকটি আশ্রয় শিবির ঘুরে দেখেন স্যুয়ার তিনি বলেন, ‘এখনও রাখাইন প্রদেশের অবস্থা উদ্বেগজনক এবং জরুরি পদক্ষেপ না নেয়া হলে সংশ্লিষ্ট সব পক্ষেরই দুর্ভোগ আরও বাড়বে।’ গত মে মাসে রাখাইনে এক বৌদ্ধ নারীকে ধর্ষণ ও খুনের ঘটনার পর জুনে রোহিঙ্গা মুসলিম ও বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বী রাখাইনদের জাতিগত দাঙ্গায় অন্তত ৮০ জনের মৃত্যু হয়। ঘরবাড়ি ছেড়ে পালাতে বাধ্য হয় কয়েক হাজার মানুষ। ওই সংঘাতময় পরিস্থিতিতেও নিশ্চুপ ছিলেন শান্তিতে নোবেল জয়ী মিয়ানমারের গণতন্ত্রের আইকন অং সান সু চি। তার এই নীরবতা নিয়ে গার্ডিয়ানের প্রতিবেদনে প্রশ্ন তোলা হয়, ‘অং সান সু চি যাকে আন্তর্জাতিকভাবে মিয়ানমারের সবচেয়ে জনপ্রিয় রাজনৈতিক নেতা হিসেবে আন্তর্জাতিকভাবে মনে করা হয় এবং যিনি এর আগে বিভিন্ন জাতিগোষ্ঠীর অধিকার রক্ষার দাবি জানিয়েছেন, তিনি রোহিঙ্গা সঙ্কট নিয়ে কোনো কথা বলেননি এবং এক্ষেত্রে তিনি কেন কোনো ভূমিকা রাখেননি তা এখনও স্পষ্ট নয়।’