Amardesh
আজঃঢাকা, রোববার ২৫ নভেম্বর ২০১২, ১১ অগ্রহায়ণ ১৪১৯, ১০ মহররম ১৪৩৪ হিজরী    আপডেট সময়ঃ রাত ১২ টা
 
 সাধারণ বিভাগ
 বিশেষ কর্ণার
 শোক ও মৃত্যুবার্ষিকী
 সাপ্তাহিক
 
আবহাওয়া
 
 
আর্কাইভ: --
 

নিউ মার্কেটে গণধোলাইয়ের শিকার সাংগঠনিক সম্পাদকসহ ছাত্রলীগের অর্ধশতাধিক নেতাকর্মী

বিশ্ববিদ্যালয় রিপোর্টার
« আগের সংবাদ
পরের সংবাদ»
বেল্ট কিনতে গিয়ে দর কষাকষির একপর্যায়ে ব্যবসায়ীদের হাতে গণধোলাইয়ের শিকার হয়েছেন ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদকসহ অর্ধশতাধিক কর্মী। ছাত্রলীগের ওই নেতার নাম আনোয়ার হোসেন আনু। গতকাল রাতে রাজধানীর নিউ মার্কেটে ব্যবসায়ীদের হাতে ওই নেতাসহ তার কর্মীরা গণধোলাইয়ের পর ঘণ্টাব্যাপী অবরুদ্ধ থাকায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ও বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নিউ মার্কেট থানা পুলিশের সহযোগিতায় তাদের উদ্ধার করেন।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, রাত ৮টার দিকে নিউ মার্কেট বেল্ট কিনতে যায় এস এম হলের ছাত্র সুমন মিলন। বেল্টের দরদাম নিয়ে ব্যবসায়ীদের সঙ্গে কথাকাটাকাটির সময় তারা নিজেদের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রলীগের কর্মী বলে হুমকি দেয়। টাকা না দিয়েই বেল্ট নেবে বলে চড়াও হয়। পরে ব্যবসায়ীরা তাদের অবরুদ্ধ করে রাখে। অবরুদ্ধ ছাত্ররা ছাত্রলীগ সাংগঠনিক সম্পাদক ও এস এম হলের সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন আনুকে ফোন করে। পরে আনু তার অর্ধশতাধিক কর্মী নিয়ে মার্কেটে ব্যবসায়ীদের ওপর আক্রমণের চেষ্টা করলে ব্যবসায়ীরা সম্মিলিত হয়ে তাদের গণধোলাই দেয়। পরে খবর পেয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. আমজাদ আলী ও ঢাবি শাখার ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ওমর শরীফ নিউ মার্কেট পুলিশের সহায়তায় তাদের উদ্ধার করে। এ ব্যাপারে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ সম্পাদক ওমর শরীফ জানান, বিশ্ববিদ্যালয়ের কিছু ছাত্র ব্যবসায়ীদের কাছে অবরুদ্ধ আছে এমন সংবাদ পেয়ে নিউ মার্কেট গিয়ে পুলিশের সহায়তায় তাদের উদ্ধার করা হয়। তবে বড় কোনো দুর্ঘটনা ঘটেনি।
এ ব্যাপারে নিউ মার্কেট থানার এসআই মো. আলাউদ্দীন জানান, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়। ছাত্রলীগের এক নেতার বেল্ট কিনাকে কেন্দ্র করে এ ঘটনা ঘটেছে। এ সময় উভয়পক্ষের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া হয়। এতে নিউ মার্কেট এলাকায় দোকানপাট বন্ধ হয়ে যায় এবং আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। তবে এ ঘটনায় কাউকে আটক বা কোনো মামলা হয়নি।