Amardesh
আজঃঢাকা, রোববার ২৫ নভেম্বর ২০১২, ১১ অগ্রহায়ণ ১৪১৯, ১০ মহররম ১৪৩৪ হিজরী    আপডেট সময়ঃ রাত ১২ টা
 
 সাধারণ বিভাগ
 বিশেষ কর্ণার
 শোক ও মৃত্যুবার্ষিকী
 সাপ্তাহিক
 
আবহাওয়া
 
 
আর্কাইভ: --
 

ঢাকা ও চাঁপাইয়ে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষ, বাকৃবি রাবিতে তিন নেতাকে কুপিয়েছে ছাত্রলীগ : সারাদেশে আরও অর্ধশত জামায়াত-শিবির নেতাকর্মী গ্রেফতার

ডেস্ক রিপোর্ট
« আগের সংবাদ
পরের সংবাদ»
দেশব্যাপী জামায়াত-শিবিরের নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে পুলিশের গণগ্রেফতার অভি-যানের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে চলছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের ছত্রছায়ায় ছাত্রলীগ ক্যাডারদের হামলার ঘটনা। এসব হামলা ও গ্রেফতার থেকে রেহাই পাচ্ছেন না সংবাদিক, সাধারণ নাগরিক, শিক্ষার্থীরা। বিশেষ করে শিক্ষাঙ্গনগুলোতে শিবির সন্দেহে সাধারণ শিক্ষার্থীদের ওপর ছাত্রলীগের বেপরোয়া হামলার ঘটনা বেড়েই চলেছে। গতকাল ময়মনসিংহের বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় (বাকৃবি) ও রাজশাহী বিশ্ববিদ্যলয়ে পরীক্ষার হল থেকে বের করে ছাত্রশিবিরের নেতা তিন ছাত্রকে বেদম পিটিয়ে ও কুপিয়ে জখম করেছে ছাত্রলীগ ক্যাডাররা। পুলিশ ও বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাস-নের সামনেই তাদের ওপর ছাত্রলীগ এ হামলা চালায়। তবে পুলিশ হামলাকারীদের কাউকে নয়, উল্টো গ্রেফতার করেছে গুরুতর আহত ওই তিন ছাত্রকে। এ ঘটনায় বাকৃবি ও রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসজুড়ে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে।
এদিকে রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে গতকাল জামায়াত-শিবিরের নেতাকর্মীদের সঙ্গে পুলিশের ব্যাপক সংঘর্ষ হয়েছে। পুলিশ জামায়াত-শিবিরের কেন্দ্রঘোষিত মিছিল-সমাবেশে বাধা দিলে এসব সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এসব বিক্ষোভ সমাবেশ থেকে পুলিশ গতকালও অর্ধশতাধিক নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করেছে। আহত হয়েছেন আরও অন্তত অর্ধশত নেতাকর্মী। রাজধানীর উত্তরা, মালিবাগ, চাঁপাইনবাবগঞ্জের নাচোল, কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম, বরিশাল, গাজীপুর, সাতক্ষীরায় এসব বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।
রাজধানীর উত্তরায় গতকাল বিকালে জামায়াতের মিছিলে পুলিশ বেপরোয়া লাঠিচার্জ ও টিয়ারশেল নিক্ষেপ করতে থাকলে বিক্ষুব্ধ নেতাকর্মীরা ইটপাটকেল নিক্ষেপ করতে থাকে। এ সময় উভয় পক্ষের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষে পুলিশসহ অন্তত ২০ জন আহত হয়েছেন। এ সময় পুলিশের বেপরোয়া লাঠিচার্জ থেকে সাধারণ পথচারী ও ব্যবসায়ীরাও রক্ষা পাননি। পরে পুলিশ সেখান থেকে অন্তত ৩০ জনকে আটক করেছে। এছাড়া সকালে মালিবাগে শিবিরের আরেকটি মিছিল থেকে আটক করেছে আরও ১০ নেতাকর্মীকে। কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে জামায়াত-শিবিরের মিছিলের কথা শুনে ফাঁকা গুলি করতে করতে ছুটে যায় পুলিশ। তবে পুলিশ কাউকে না পেয়ে দুই পথচারীর পায়ে গুলি করে। এ ঘটনার ছবি তুলতে গেলে পুলিশ আমার দেশ-এর প্রতিনিধি এমদাদ উল্লাহকে বেদম পিটিয়ে থানায় ধরে নিয়ে যায়। পরে সাংবাদিকদের ক্ষেভের মুখে তাকে ছেড়ে দিতে বাধ্য হয় পুলিশ।
সারাদেশে জামায়াত-শিবিরের সঙ্গে সংঘর্ষ এবং পুলিশ-ছাত্রলীগের হমলা ও গ্রেফতার নিয়ে বিস্তারিত খবর পাঠিয়েছেন আমার দেশ-এর রিপোর্টার, আঞ্চলিক অফিস ও প্রতিনিধিরা:
রাজধানীর উত্তরায় জামায়াত-পুলিশ সংঘর্ষ : রাজধানীর উত্তরায় পুলিশের সঙ্গে জামায়াত শিবিরের ব্যাপক সংঘর্ষ হয়েছে। বিকালে উত্তরা রাজলক্ষ্মী এলাকা থেকে ঢাকা মহানগর জামায়াত একটি মিছিল বের করলে পুলিশ টিয়ারশেল ও রাবার বুলেট নিক্ষেপ শুরু করে। এ সময় বিক্ষুব্ধ জামায়াত-শিবির কর্মীরাও পুলিশের ওপর ইটপাটকেল নিক্ষেপ করতে থাকে। এতে পুলিশ ও পথচারীসহ জামায়াত-শিবিরের ২০ নেতাকর্মী আহত হয়। সংঘর্ষ চলাকালে ওই এলাকায় যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায় ও পুরো এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। পরে পুলিশ ঘটনাস্থল ও আশপাশের বিভিন্ন জায়গায় তল্লাশি চালিয়ে জামায়াত-শিবিরের অন্তত ৩০ জনকে আটক করে। এদিকে সকালে রাজধানীর মালিবাগ চৌধুরীপাড়া এলাকায় বিক্ষোভ মিছিল করে ইসলামী ছাত্রশিবির। সেখানে কোনো সংঘর্ষ না হলেও পুলিশ ১০ জনকে আটক করে নিয়ে যায়। এছাড়া দেশের বিভিন্ন স্থানে পুলিশি বাধার মধ্য দিয়ে বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করেছে জামায়াতে ইসলামী।
কেন্দ্রঘোষিত কর্মসূচি পালনের সময় রাজধানীসহ বিভিন্ন স্থানে পুলিশ, আওয়ামী লীগ ও অঙ্গসংগঠনের বাধা এবং বহু নেতাকর্মীকে গ্রেফতারের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন জামায়াতে ইসলামীর ভারপ্রাপ্ত সেক্রেটারি জেনারেল ডা. শফিকুর রহমান এবং ঢাকা মহানগর আমির মাওলানা রফিকুল ইসলাম খান।
সংশ্লিষ্ট সূত্রমতে, জামায়াতের শীর্ষ নেতাদের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার ও নিঃশর্ত মুক্তি, রিমান্ডে নিয়ে নির্যাতন বন্ধ, জনদুর্ভোগ লাঘব এবং তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে জাতীয় নির্বাচনের দাবিতে কেন্দ্রঘোষিত কর্মসূচির অংশ হিসেবে গতকাল বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে উত্তরার রাজলক্ষ্মী এলাকা থেকে একটি মিছিল বের করে ঢাকা মহানগর জামায়াত। দলের ঢাকা মহানগর সেক্রেটারি নুরুল ইসলাম বুলবুলের নেতৃত্বে মিছিলটি শুরু হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে পুলিশ টিয়ারশেল ও রাবার বুলেট ছুড়তে থাকে। জামায়াত-শিবির কর্মীরাও এ সময় পুলিশকে লক্ষ্য করে ইটপাটকেল ছুড়তে থাকে। এ সময় পুলিশ ও জামায়াত-শিবির কর্মীদের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ায় ওই এলাকায় ব্যাপক আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। প্রাণভয়ে সবাই ছোটাছুটি করেন। পুলিশি হামলা সত্ত্বেও মিছিলটি জসিমউদ্দিন সরণিতে এসে সংক্ষিপ্ত সমাবেশের মাধ্যমে শেষ হয়। পুলিশ এ সময় মিছিলকারীদের ধরতে রাস্তার পাশের বিভিন্ন দোকান ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে তল্লাশি ও ভাংচুর করে আরও আতঙ্ক সৃষ্টি করে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ সময় ব্যবসায়ী ও পথচারীসহ জামায়াত-শিবিরের অন্তত ৩০ জনকে আটক করা হয় বলে দলীয় সূত্র জানিয়েছে।
মহানগর জামায়াতের এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, পুলিশি হামলা, লাঠিচার্জ, টিয়ারশেল, রাবার বুলেট নিক্ষেপে ১০ জন নেতাকর্মী আহত হয়েছে। গ্রেফতার করা হয় নিরপরাধ পথচারীসহ ৩০ জন জামায়াত-শিবির নেতাকর্মীকে।
তবে উত্তরার পুলিশের উপ-কমিশনার নিশারুল আরিফ সাংবাদিকদের জানান, বিকালে উত্তরার চার নম্বর সেক্টরের সি-সেল রেস্তোরাঁ গলি থেকে জামায়াত-শিবির একটি মিছিল বের করে। পুলিশ সদস্যদের দেখামাত্র তারা ইট ছুড়তে থাকে। এ সময় পুলিশ তাদের ধাওয়া দিয়ে কয়েক রাউন্ড কাঁদানে গ্যাস ও রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে। আশপাশে অভিযান চালিয়ে জামায়াত-শিবিরের কয়েক জন কর্মীকে আটক করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।
এদিকে মিছিল-পরবর্তী সমাবেশে ঢাকা মহানগর জামায়াতের সেক্রেটারি নূরুল ইসলাম বুলবুল বলেছেন, সরকার দেশ পরিচালনায় সার্বিকভাবে ব্যর্থ হয়ে জনগণের দৃষ্টিকে ভিন্ন খাতে প্রবাহে কথিত মানবতাবিরোধী অপরাধের বিচারের নামে প্রহসন করে নিজেরাই মানবতাবিরোধী অপরাধ ও মানবাধিকারের চরম লঙ্ঘন করছে। সমাবেশে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মহানগরী জামায়াতের সহকারী সেক্রেটারি সেলিম উদ্দীন, কর্মপরিষদ সদস্য এ এস এম আলাউদ্দীন, উত্তরা থানা আমির অ্যাডভোকেট জাকির হোসাইন, সেক্রেটারি মাহমুদুর রহমান প্রমুখ।
শিবিরের বিক্ষোভ, আটক ১০ : এদিকে সকাল ১০টার দিকে কেন্দ্রীয় সভাপতি মো. দেলাওয়ার হোসেনের নেতৃত্বে রাজধানীর মালিবাগে মিছিল করেছে ছাত্রশিবির। চৌধুরীপাড়া থেকে মিছিলটি শুরু হয়ে রামপুরা টিভি ভবনের সামনে গিয়ে সমাবেশের মাধ্যমে শেষ হয়। এ সময় পুলিশ পথচারীসহ ১০ জনকে আটক করে।
জামায়াতের প্রতিবাদ : বিভিন্ন দাবিতে জামায়াতে ইসলামীর পক্ষ থেকে ঘোষিত প্রতিবাদ কর্মসূচিতে সারাদেশে পুলিশ, আওয়ামী লীগ ও তাদের অঙ্গ সংগঠনের সন্ত্রাসীদের বাধাদানের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন দলের ভারপ্রাপ্ত সেক্রেটারি জেনারেল ডা. শফিকুর রহমান।
এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, কর্মসূচি পালনে বাধা দিয়ে শনিবারও পুলিশ ঢাকা মহানগরীসহ দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে জামায়াত-শিবিরের নেতাকর্মীদের গ্রেফতার করেছে।
বাকৃবিতে পরীক্ষার হলে ঢুকে ২ শিবির নেতাকে পিটিয়ে জখম : এবার পরীক্ষার হলে ঢুকে ছাত্রশিবিরের সাধারণ সম্পাদকসহ দুই নেতাকে কুপিয়ে ও পিটিয়ে মারাত্মক জখম করেছে ছাত্রলীগ ক্যাডাররা। গতকাল দুপুরে ময়মনসিংহের কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে এ ঘটনা ঘটে। আশঙ্কাজনক অবস্থায় ওই শিবির নেতাকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ছাত্রলীগ ক্যাডাররা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর, শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের সামনেই শিবিরের ওই দুই নেতার ওপর হামলা চালালেও পুলিশ উল্টো তাদের গ্রেফতার দেখিয়েছে। ছাত্রলীগ ক্যাডাররা প্রথমে তাদের লক্ষ্য পিস্তল দিয়ে গুলি করার পর রড, সাইকেলের চেইন দিয়ে বেদম পেটায় এবং ধারালো অস্ত্র দিয়ে কোপাতে থাকে।
প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, গতকাল সকাল ১১টার দিকে বাকৃবি শাখা ছাত্রশিবিরের সাধারণ সম্পাদক এরশাদুল হক এবং পাঠাগার ও ক্রীড়া সম্পাদক আশরাফুল ইসলাম মাস্টার্স প্রথম সেমিস্টারের পোলট্রি ফার্ম এনভায়রনমেন্ট কোর্সের ক্লাস টেস্ট পরীক্ষা দিতে কৃষি প্রকৌশল অনুষদের কংক্রিট ও ম্যাটেরিয়াল টেস্টিং ল্যাবে যান। এ খবর শুনে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা ওই ল্যাবের সামনে জড়ো হয়। বেলা ১টার দিকে দায়িত্বরত শিক্ষক পরীক্ষা নেয়া শেষ করে চলে গেলে ছাত্রলীগ ক্যাডাররা ল্যাবে ঢোকার চেষ্টা করে। এ সময় সেখানে দায়িত্বরত কর্মচারীরা ল্যাবের দরজায় তালা ঝুলিয়ে দেন। একপর্যায়ে প্রক্টরের সামনেই ছাত্রলীগের বাকৃবি শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক শফিক, খোকা, পাঠাগার সম্পাদক রায়হান, রোকন, রেজা, শোভন, তানভীর, প্রিন্স, রতনসহ ৩০-৩৫ জন নেতাকর্মী দরজার তালা ভেঙে ল্যাবের ভেতরে প্রবেশ করে ওই দুই শিবির নেতাকে খুঁজতে থাকে। শিবির নেতারা ভয়ে ল্যাবের ভেতরে আশ্রয় নিলে সেখান থেকে ছাত্রলীগের ক্যাডাররা টেনেহিঁচড়ে বের করে আনে। এ সময় ছাত্রলীগের একজন তাদের লক্ষ্য করে গুলি ছুড়লে তা লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়। পরে তাদের ওপর লাঠি, রড, হকিস্টিক, সাইকেলের চেইন ও ধারালো অস্ত্র নিয়ে হামলা চালানো হয়। আধঘণ্টাব্যাপী এ হামলা চলতে থাকে। এতে শিবিরের সাধারণ সম্পাদকের হাত-পা ভেঙে যায় এবং মাথায় মারাত্মক জখম হয়।
প্রক্টোরিয়াল বডির সদস্যরা পুলিশের সহায়তায় আশঙ্কাজনক অবস্থায় ওই শিবির নেতাদের উদ্ধার করে দ্রুত ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করান। হামলায় আহত আশরাফুলের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানিয়েছেন কর্তব্যরত চিকিত্সক। শিবিরের সাধারণ সম্পাদকের ওপর ছাত্রলীগের হামলার তীব্র নিন্দা জানিয়েছে শাখা ছাত্রদলের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক।
এ বিষয়ে বাকৃবি ছাত্রশিবিরের সভাপতি সুলাইমান হোসাইন বলেন, প্রশাসনের প্রত্যক্ষ মদতে ছাত্রলীগ ক্যাডাররা ছাত্রশিবিরের ওপর ন্যক্কারজনক হামলা চালিয়েছে। এ ঘটনার সুষ্ঠু বিচার দাবিও করেন তিনি।
এ বিষয়ে বাকৃবির ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর সহযোগী অধ্যাপক সাজ্জাদ হোসেন বলেন, ঘটনার সময় আমি উপস্থিত হয়ে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের ফেরানোর চেষ্টা করি। কিন্তু আমাকে সেখানে ভিড়তে দেয়া হয়নি।
নাচোলে পুলিশের সঙ্গে জামায়াত কর্মীদের সংঘর্ষে ওসিসহ আহত ১৫ : চাঁপাইনবাবগঞ্জের নাচোলে পুলিশের সঙ্গে জামায়াত-শিবির কর্মীদের সংঘর্ষে ওসিসহ ১৫ জন আহত হয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে নাচোল উপজেলা জামায়াতের আমির ইয়াহিয়া খালেদ ও স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান এনায়েতুল্লাহসহ জামায়াতের পাঁচ নেতাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এছাড়া বিকালে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা শহরের বড় ইন্দারা মোড় এলাকায়ও বিক্ষোভ মিছিল করেছে জামায়াত কর্মীরা।
রাবিতে শিবির সন্দেহে পরীক্ষার্থীকে ছাত্রলীগের পিটুনি : রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) শিবির সন্দেহে এক শিক্ষার্থীকে পরীক্ষার হল থেকে বের করে এনে পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকতাদের সামনে বেধড়ক পিটিয়ে জখম করে করেছে ছাত্রলীগ। ওই শিক্ষার্থীর নাম মাসুদ শেখ। সে বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা বিভাগের চতুর্থ বর্ষের প্রথম সেমিস্টারের শিক্ষার্থী। গতকাল দুপুর সাড়ে বারোটার দিকে বিশ্বদ্যািলয় রবীন্দ্র কলা ভবনের ভেতরে এ ঘটনা ঘটে। পুলিশ আহত শিক্ষার্থী মাসুদকে আটক করলেও তার ওপর হামলাকারী কোনো ছাত্রলীগ নেতাকে আটক করেনি বলে জানা যায়।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ছাত্রলীগ ক্যাডার তুহিন, আতিক, সোহেল, শেখ মারুফ এবং রিদয়ের নেতৃত্বে ১০-১২ জন এ ঘটনা ঘটিয়েছে। সেখানে পুলিশের রাজশাহী মতিহার জোনের এসি আবুল হাসনা, ওসি সানাউল হকসহ প্রায় শতাধিক পুলিশের উপস্থিতিতে ওই শিক্ষার্থীকে বেধড়ক পেটানো হয়।
চমেক হাসপাতাল অচল করে দেয়ার হুমকি শিবিরের : হল থেকে গ্রেফতার ৪০ নেতাকর্মীর মুক্তি, ক্যাম্পাস ও ছাত্রাবাসে মতাবলম্বীদের সহাবস্থান ও ছাত্রলীগ সন্ত্রাসীদের তাণ্ডবে ক্ষতিগ্রস্ত শিক্ষার্থীদের ক্ষতিপূরণের দাবিতে তিন দিনের আলটিমেটাম দিয়েছে ইসলামী ছাত্রশিবির চমেক শাখা। নির্ধারিত সময়ের মধ্যে দাবি আদায় না হলে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজসহ হাসপাতাল অচল করে দেয়ার হুমকি দিয়েছে সংগঠনটি। গতকাল সংগঠনের পক্ষ থেকে এ সংক্রান্ত স্মারকলিপি পৌঁছে দেয়া হয় চমেক প্রশাসনের কাছে।
ইসলামী ছাত্রশিবির চমেক শাখার দফতর সম্পাদক নুরুল ইসলাম স্বাক্ষরিত স্মারকলিপিটি গতকাল চমেক অধ্যক্ষ সেলিম মোহাম্মদ জাহাঙ্গীরের হাতে পৌঁছে দেয় সংগঠনের নেতাকর্মীরা।
চৌদ্দগ্রামে পুলিশের প্রকাশ্যে গুলি, আমার দেশ প্রতিনিধিসহ গ্রেফতার ৫, গুলিবিদ্ধ ৩ : কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে পুলিশ অতর্কিত হামলা চালিয়ে ব্যাপক মারধর শেষে সাংবাদিকসহ ৫ জনকে আটক করেছে। আটককৃতদের ৩ জনকে প্রকাশ্যে গুলি করে পুলিশ। গতকাল দুপুরে চৌদ্দগ্রাম পৌর সদরে এ ঘটনা ঘটে।
প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, গতকাল দুপুর ২টায় জামায়াত কর্মীরা ওয়াপদা রোডে জড়ো হচ্ছে সংবাদ শুনে পুুলিশ কয়েক রাউন্ড ফাঁকা গুলি বর্ষণ করে। খবর পেয়ে দৈনিক আমার দেশ পত্রিকার চৌদ্দগ্রাম প্রতিনিধি মো. এমদাদ উল্লাহসহ কয়েকজন সাংবাদিক সোনালী ব্যাংকের সামনে গিয়ে দাঁড়ায়। সেখানে থানার এসআই নুরুল আলম দুই পথচারী মিজান ও মেহেদী হাসানকে আটক করে কয়েক গজ সামনে থেকে তাদের পায়ে গুলি করে। এ দৃশ্য ক্যামেরাবন্দি হয়েছে মনে করে ওসি মোজাম্মেল হোসেন, এসআই নুরুল আলম ও এএসআই শাহীন সাংবাদিক এমদাদ উল্লাহর শার্টের কলার ধরে টেনে হিঁচড়ে মহাসড়কের ওপর নিয়ে বেধড়ক লাঠিপেটা করে থানায় নিয়ে যায়। গুরুতর আহত সাংবাদিক এমদাদ উল্লাহকে চৌদ্দগ্রাম সরকারি হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিত্সা শেষে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় সাংবাদিকসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতারা তীব্র ক্ষোভ ও প্রতিবাদ জানান।
বোয়ালিয়া মডেল থানার এসআই ক্লোজড : রাজশাহী মহানগরীর সাহেববাজার জিরোপয়েন্টে গত ৬ নভেম্বর পুলিশের সঙ্গে শিবিরের সংঘর্ষের সময় দায়িত্বে অবহেলার দায়ে বোয়ালিয়া মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) শহিদুল ইসলামকে পুলিশ লাইনে ক্লোজড করা হয়েছে। একই সঙ্গে তাকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেয়া হয়েছে।
নবীগঞ্জে গ্রেফতার ২ : হবিগঞ্জের নবীগঞ্জে ২ জামায়াত-শিবির কর্মীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তারা হলেন, ইউনিয়ন জামায়াত সেক্রেটারি কামরুল ইসলাম ও সামছুল ইসলাম।
গফরগাঁওয়ে জামায়াত নেতা আটক : ময়মনসিংহের গফরগাঁও পৌরসভা জামায়াতে ইসলামীর আমির ও গফরগাঁও শিবগঞ্জ দারুল ইকমা কিন্ডার গার্ডেন মাদরাসার প্রিন্সিপাল মাওলানা মো. ইমদাদুল হককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গতকাল তাকে ওই মাদরাসার ভেতর থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।
বরিশালে জামায়াতের বিক্ষোভ : জামায়াতের শীর্ষ নেতাদের মুক্তি ও দেশব্যাপী জামায়াত-শিবিরের ওপর পুলিশের নগ্ন হামলা ও নির্যাতনের প্রতিবাদে নগরীতে বিক্ষোভ মিছিল করেছে জামায়াত। গতকাল সকালে পোর্ট রোড এলাকা থেকে মহানগর জামায়াতের আমির অ্যাডভোকেট মোয়াজ্জম হোসাইন হেলালের নেতৃত্বে এ বিক্ষোভ মিছিল বের করা হয়।
গাজীপুরে জামায়াতের বিক্ষোভ মিছিল : গাজীপুর সদর উপজেলা জামায়াতের উদ্যোগে গতকাল সকালে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। সদর উপজেলা জামায়াতের আমির হোসেন আলীর নেতৃত্বে বিক্ষোভ মিছিলে উপস্থিত ছিলেন গাজীপুর পৌর আমির মো. খায়রুল হাসান ও সদর উপজেলা সেক্রেটারি মো. আজাহরুল ইসলাম, শিবিরের ডুয়েট শাখার সভাপতি আবদুল্লাহ আল মারুফ ও সেক্রেটারি বাহাদুর হোসেন প্রমুখ।
সাতক্ষীরায় বিক্ষোভ : ট্রাইব্যুনাল বাতিল ও প্রহসনমূলক গ্রেফতার জামায়াতের শীর্ষ নেতাদের মুক্তির দাবিতে সাতক্ষীরায় বিক্ষোভ মিছিল করেছে জামায়াত। গতকাল বিকালে মিছিলটি শহরের আমতলা মোড় থেকে টেক্সটাইল মিল বাজার পর্যন্ত গিয়ে শেষ হয়।
খুলনায় ইসলামী ব্যাংক হাসপাতাল কর্মকর্তা আটক : খুলনার টুটপাড়া কবরস্থান মোড় থেকে গতকাল সকালে পুলিশ খুলনা ইসলামী ব্যাংক হাসপাতালের প্রশাসনিক কর্মকর্তা আবদুর রাজ্জাককে গ্রেফতার করেছে। খুলনা থানার এসআই আহমেদ আনোয়ার জানান, তার বিরুদ্ধে পুলিশের ওপর হামলা ও সরকারি কাজে বাধা সৃষ্টি করার মামলা রয়েছে।