Amardesh
আজঃঢাকা, রোববার ২৫ নভেম্বর ২০১২, ১১ অগ্রহায়ণ ১৪১৯, ১০ মহররম ১৪৩৪ হিজরী    আপডেট সময়ঃ রাত ১২ টা
 
 সাধারণ বিভাগ
 বিশেষ কর্ণার
 শোক ও মৃত্যুবার্ষিকী
 সাপ্তাহিক
 
আবহাওয়া
 
 
আর্কাইভ: --
 

আইডিয়াল স্কুল শিক্ষকদের রমরমা কোচিং বাণিজ্য : কাগজে-কলমে সরকার গঠিত মনিটরিং কমিটি

রিয়াজ চৌধুরী
« আগের সংবাদ
পরের সংবাদ»
নীতিমালা অমান্য করে কোচিং বাণিজ্য চালিয়ে যাচ্ছেন আইডিয়াল স্কুলের অধিকাংশ শিক্ষক। তারা শিক্ষা মন্ত্রণালয় ও এর অধীনস্থ কোনো সংস্থার সিদ্ধান্ত আমলেই নিচ্ছেন না বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। অন্যদিকে কোচিং বাণিজ্য বন্ধে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে শাস্তির দাবি জানিয়েছেন অভিভাবকরা।
অভিভাবকরা বলছেন, সরকার গত ২০ জুন নীতিমালা জারি করে কোচিং বাণিজ্য বন্ধ করলেও তারা নীতিমালাকে কোনো বিষয়ই মনে করছেন না। অন্যদিকে নীতিমালা জারি এবং মনিটরিং কমিটি গঠন করেই সরকার দায়িত্ব শেষ করেছে, কিন্তু মনিটরিং কমিটি কোনো কাজই করছে না। এই সুযোগে আইডিয়াল স্কুলের শিক্ষকরা দিনের পর দিন কোচিং বাণিজ্য চালিয়ে যাচ্ছেন। তারা নানা কৌশলের আশ্রয় নিয়েছেন। কেউ কেউ বাসা পরিবর্তন করেছেন।
আবার কেউ বাসায় না পড়িয়ে গোপনে অন্য কোথায় বাসা ভাড়া নিয়ে শিক্ষার্থী পড়াচ্ছেন। আবার নিয়ম না মেনে এমপিওভুক্ত শিক্ষকরা আলাদা ভবন ভাড়া নিয়ে স্কুল পরিচালনার নামে করছেন কোচিং সেন্টার।
তথ্য অনুযায়ী আইডিয়াল স্কুলে ৪৫০ জন শিক্ষক রয়েছেন। এর মধ্যে স্কুলের মূল শখায় প্রভাতী ও দিবা শাখায় ১৫৮ জন, ইংরেজি ভার্সনে ৪৩ জন, কলেজ শাখায় ৫৭ জন, বনশ্রী শাখায় ১৩৬ জন এবং মুগদা শাখায় ৫৬ জন শিক্ষক রয়েছেন। শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের সঙ্গে কথা বলে সরেজমিন দেখা গেছে, প্রায় দুশ’ শিক্ষক ন্যূনতম ৫০ থেকে শুরু করে ৮শ’ শিক্ষার্থীকে কোচিং প্রাইভেট পড়ান। এছাড়া ১০ থেকে শুরু করে ৪৯ জন শিক্ষার্থী পড়ান অবশিষ্ট প্রায় সব শিক্ষক।
সরেজমিন গিয়ে দেখা গেছে, বনশ্রীর প্রভাতী শাখার ইংরেজি শিক্ষক এসএম কেরামত আলী তরুর রয়েছে তিনটি কোচিং সেন্টার। প্রথমটি বনশ্রীর ‘সি’ ব্লকের ২নং রোডে, দ্বিতীয়টি শান্তিনগরের ৪৩/২ চামেলীবাগ দ্বিতীয় লেন (নিচতলা), তৃতীয়টি ৭৯৪ দক্ষিণ শাহজাহানপুরে (দ্বিতীয় তলা)। তিনি স্কুলে পাঠদানে আন্তরিক নন বলে অভিযোগ রয়েছে।
মতিঝিল দিবা শাখার সামাজিক বিজ্ঞানের শিক্ষক সাখাওয়াত সোহেল ৩৩৭, উত্তর শাহজাহানপুরে (দ্বিতীয় তলা) চার শতাধিক ছাত্রছাত্রীকে কোচিং করান। একইভাবে মতিঝিল শাখার কমার্সের শিক্ষক মো. কামরুজ্জামান ৩৪৪, উত্তর শাহজাহানপুরে (দ্বিতীয় তলা ডান পাশ) তিন শতাধিক শিক্ষার্থীকে পড়ান।
বনশ্রীর ‘ই’ ব্লকের ১নং রোডের ৩১নং ভবনটি টিচার্স কোয়ার্টার নামে পরিচিত। এ ভবনের প্রতিটি ফ্ল্যাটে থাকেন আইডিয়াল স্কুলের বনশ্রী শাখার ৫ জন শিক্ষক। এর মধ্যে মতিউর রহমান পড়ান ইংরেজি, মতিয়ার রহমান পড়ান গণিত, শাহানাজ পারভীন পড়ান বাংলা, ইদ্রিস আলী পড়ান জীববিদ্যা এবং মোসলে উদ্দিন পড়ান ধর্ম। প্রতিবেশী ও শিক্ষার্থীদের তথ্য অনুযায়ী এ ভবনটিতে প্রতিদিন গড়ে দেড় হাজার শিক্ষার্থী আসা-যাওয়া করে। এসব শিক্ষার্থী আইডিয়াল স্কুলের।
অনুসন্ধানে জানা যায়, বনশ্রীর ‘সি’ ব্লকের ৪নং রোডের ৩নং বাসায় থাকছেন আমিনুল বারী। তিনি গণিত বিষয়ে শতাধিক শিক্ষার্থী পড়ান। একই ব্লক ও রোডের ৬নং বাসায় ইংরেজি বিষয় পড়াচ্ছেন হামিদুর রহমান। একই এলাকার ‘বি’ ব্লকের ৪নং রোডের ৬নং বাসাটি শাহীনুর ভিলা। এই বাসাটি আইডিয়াল স্কুুলের শিক্ষক আবদুল কাদিরের। বাসার নিচতলা ও দ্বিতীয় তলায় তিনি গণিত, রসায়নসহ বিজ্ঞানের বিষয় পড়াচ্ছেন। তথ্য অনুযায়ী তিনি ৩ শতাধিক শিক্ষার্থী পড়ান।
একই এলাকার ‘সি’ ব্লকের ২নং রোডের ১২নং বাসায় থাকছেন আবদুর রশীদ। বাসার নিচতলায় তিনি বাংলা বিষয় পড়াচ্ছেন। ৭৯৪নং দক্ষিণ শাহজাহানপুরের শিল্পী হোটেলের গলির বাসাটিতে কোচিং বাণিজ্য করছেন ৫ জন শিক্ষক। তারা সবাই আইডিয়াল স্কুলের শিক্ষক। এই বাসায় প্রতিষ্ঠানের মুগদা শাখার সহকারী প্রধান শিক্ষক কাজল কান্তি বড়ুয়া পড়ান গণিত, রসায়ন ও পদার্থবিদ্যা, রফিকুল ইসলাম পড়ান সমাজ, মো. জিয়াদ এবং এসএম কে আলী পড়ান ইংরেজি। গোলাম মোস্তফা থাকছেন ৫০৬, উত্তর শাহজাহানপুরে। তিনি পড়ান গণিত ও ইংরেজি। শিক্ষার্থীদের দেয়া তথ্য অনুযায়ী তিনি দেড় শতাধিক ছাত্র পড়ান।
২৮৬, উত্তর শাহজাহানপুরে একটি বাসায় নুরুল আমিন পড়ান গণিত, পদার্থ ও রসায়ন। ৮৯৯, শহীদবাগে বাংলা পড়ান রোকনুজ্জামান রতন। ৩৩৭, উত্তর শাহজাহানপুরে একটি বাসার দ্বিতীয় তলায় ইংরেজি পড়ান শরীফ শামছুজ্জোহা পেনু। ৬৮৬, উত্তর শাহজাহানপুরে ইংরজি পড়ান নিজাম উদ্দিন কামাল। তিনি তিন শতাধিক শিক্ষার্থী পড়ান। ৫৯২, উত্তর শাহজাহানপুরে গণিত পড়ান মোফাজ্জল হোসেন। ৪৯৪, শাহজাহানপুরে ধর্ম পড়ান খায়রুল হাসান। তারা সবাই প্রায় একশ’ শিক্ষার্থী পড়ান। ৫৯১/১, শাহজাহানপুরে (উত্তরা ব্যাংকের গলি) গণিত পড়ান আলী নেওয়াজ করিম, এজিবি কলোনির ১৪নং ভবনের ৯নং গেটের নিচতলায় গণিত পড়ান ফিদা হোসেন। তিনি শতাধিক শিক্ষার্থী পড়ান।
আইডিয়াল স্কুলের ৩ জন শিক্ষক ইংরেজির আবুল কালাম আজাদ, সমাজের মহসিন হাওলাদার, গণিত ও রসায়নের সুভাস চন্দ্র পোদ্দার ও উপ-সহকারী প্রকৌশলী আতিকুর রহমান খান মিলে ৩৪৬, উত্তর শাহজাহানপুরে তৈরি করেছেন রিয়েল আইডিয়াল স্কুল। এটি মূল একটি কোচিং সেন্টার। এখানে রয়েছে ৮টি রুম। দিনের বিভিন্ন সময় এখানে শিক্ষার্থীরা এসে কোচিং করে। এছাড়াও সুভাষ চন্দ্র পোদ্দার ৩৪৫, উত্তর শাহজাহানপুরের একটি ফ্ল্যাটের দ্বিতীয় তলায় প্রায় ৫শ’ শিক্ষার্থীকে কোচিং করান।
বনশ্রীর রিপন আহমেদ খান ও গৌতম কুমার সিকদার পড়ান ইংরেজি, আবদুর রহিম ও তার স্ত্রী সালেহা পড়ান হিসাব বিজ্ঞান ও ফরিদ উদ্দিন পড়ান গণিত। আবদুস সালাম ইংরেজি বিষয় পড়ান। ইংরেজি ভার্সনের মোকসেদুল ইসলাম পড়ান ইংরেজি, জাহাঙ্গীর আলম পড়ান সমাজ, রিয়াজুল করিম ও ইদ্রিস খান পড়ান গণিত।
বনশ্রীর ইংরেজি শিক্ষক এনামুল হক বনশ্রীর ‘সি’ ব্লকের ৪নং রোডের ৯নং বাড়ি ভাড়া করে তিন শতাধিক শিক্ষার্থীকে কোচিং করান। একই শাখার বাংলা শিক্ষক আল আমিন বনশ্রীর ‘ডি’ ব্লকের ৫নং রোডের ৫নং বাড়িতে চার শতাধিক শিক্ষার্থীকে পড়ান। ইংরেজি শিক্ষক ফরিদুজ্জামান বনশ্রীর ‘সি’ ব্লকের ৪নং রোডের একটি বাড়িতে তিন শতাধিক শিক্ষার্থীকে কোচিং করান। গণিত শিক্ষক মিজানুর রহমান বনশ্রীর ‘ডি’ ব্লকের ৫নং রোডের একটি বাড়িতে তিন শতাধিক শিক্ষার্থীকে পড়ান। গণিত শিক্ষক জসিম উদ্দিন একই ব্লকের ২নং রোডের একটি বাড়িতে তিন শতাধিক শিক্ষার্থীকে কোচিং করান। ইংরেজি শিক্ষক মল্লিক আমিরুল ইসলাম বনশ্রী ‘সি’ ব্লকের ৪নং রোডের একটি বাড়িতে দুই শতাধিক ছাত্রছাত্রী পড়ান।
মতিঝিল দিবা শাখার বাংলা শিক্ষক ফজলুল হক খান, গণিত শিক্ষক শেখ শামসুদ্দিন ও ইসলাম ধর্মের শিক্ষক এনায়েত হোসাইন ৪৯১, উত্তর শাহজাহানপুরে (নিচতলা) দুই থেকে তিন শতাধিক করে ছাত্রছাত্রী পড়ান। গণিত শিক্ষক জহুরুল ইসলাম ৬০৬, উত্তর শাহজাহানপুরে (দ্বিতীয় তলা) তিন শতাধিক শিক্ষার্থীকে কোচিংয়ে পড়ান।