ফেরত আনা টাকা কোকোর নয় : ব্যারিস্টার খোকন

নোয়াখালী প্রতিনিধি « আগের সংবাদ
পরের সংবাদ» ২৩ নভেম্বর ২০১২, ১২:০৫ অপরাহ্ন

সিঙ্গাপুর থেকে ফেরত আনা টাকা কোকোর নয় বলে উল্লেখ করেছেন তার আইনজীবী ব্যারিস্টার মাহবুবউদ্দিন খোকন। তিনি বলেন, আরাফাত রহমান কোকোকে নিয়ে দুদকের দেয়া বক্তব্য অসত্য ও বিভ্রান্তিকর। আওয়ামী লীগের বক্তব্যের সঙ্গে তাল মিলিয়ে দুদক এ বক্তব্য দিয়েছে। এটা সরকারের রাজনৈতিক এজেন্ডা বাস্তবায়নের অপচেষ্টা। গতকাল দুপুরে কোকোর আইনজীবী ব্যারিস্টার মাহাবুব উদ্দিন খোকন নোয়াখালী প্রেস ক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন।
ব্যারিস্টার খোকন বলেন, ১/১১-এর সেনাসমর্থিত সরকার কোকোকে ২০০৭ সালের ৩ সেপ্টেম্বর গ্রেফতার করে। ২০০৮ সালের শেষের দিকে তাকে প্যারোলে মুক্তি দিয়ে চিকিত্সার জন্য বিদেশে পাঠানো হয়। বিদেশি কোম্পানি ইউনাইটেড ওভারসিজ ২০০৭ সালের ১৬ নভেম্বর ব্যাংক অ্যাকাউন্ট ওপেন করে। ওই তারিখে নিউইয়র্ক সিটি ব্যাংক থেকে সিঙ্গাপুর ব্যাংকে ২০ লাখ ১৩ হাজার ৪৮৬ টাকা জমা হয় অথবা স্থানান্তর করা হয। সে কোম্পানিতে কোকোর মালিকানা, শেয়ার কিংবা কোনো সম্পৃক্ততা নেই। অথচ কোকো প্যারোলে মুক্তি নিয়ে বিদেশে চিকিত্সাধীন অবস্থায় দুদক ২০০৯ সালের ১৭ মার্চ কাফরুল থানায় কোকোর বিরুদ্ধে মামলা করে। কিন্তু কাফরুল থানায় কোকোর বিরুদ্ধে দায়ের করা এজাহারের কোথাও এটি নেই। দুদকের বক্তব্যের আলোকে কোকো জেলে থাকাকালীন এ টাকা তার অ্যাকাউন্টে জমা হয়েছে। সুতরাং এ ঘটনার সঙ্গে কোকোর কোনো সম্পৃক্ততা নেই। এটি দুদকের অসত্য ভ্রান্ত ও উদ্দেশ্যপ্রণোদিত মামলা।
সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য অ্যাডভোকেট আবদুর রহিম, নোয়াখালী বারের সাবেক সভাপতি অ্যাডভোকেট আবদুর রহমান, সোনাইমুড়ী থানা বিএনপি সভাপতি আনোয়ারুল হক কামাল, অ্যাডভোকেট আজম খান, অ্যাডভোকেট আবদুর রহিম চুন্নু, অ্যাডভোকেট আবদুল কাইয়ুম দিদার প্রমুখ।

প্রথম পাতা এর আরও সংবাদ

সাপ্তাহিকী


উপরে

X