Amardesh
আজঃঢাকা, শনিবার ২৪ নভেম্বর ২০১২, ১০ অগ্রহায়ণ ১৪১৯, ৯ মহররম ১৪৩৪ হিজরী
 
 সাধারণ বিভাগ
 বিশেষ কর্ণার
 শোক ও মৃত্যুবার্ষিকী
 সাপ্তাহিক
 
আবহাওয়া
 
 
 
আর্কাইভ: --
 

কোকোকে বিচারের সম্মুখীন করা হবে : মুহিত : কে কী বলল তাতে কমিশন চিন্তিত নয় : দুদক চেয়ারম্যান

স্টাফ রিপোর্টার
« আগের সংবাদ
পরের সংবাদ»
অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেছেন, সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার ছোট ছেলে আরাফাত রহমান কোকোর পাচার করা টাকা সিঙ্গাপুর থেকে দেশে ফেরত আনা হয়েছে। এখন কোকোকে দেশে ফিরিয়ে এনে বিচারের সম্মুখীন করা হবে। গতকাল সিলেটে অর্থমন্ত্রী একথা বলেন। সাংবাদিকদের তিনি জানান, ওই টাকা দুর্নীতিবিরোধী কাজে ব্যয় করা হবে।
এদিকে দুর্নীতি দমন কমিশন-দুদক চেয়ারম্যান গোলাম রহমান বলেছেন, ‘দুদক কারও আজ্ঞাবহ নয়। কমিশন আইনি কাঠামো অনুযায়ী কাজ করছে।
দুদকের কাজে কে কী বলল তাতে কমিশন চিন্তিত নয়।’ গতকাল আরাফাত রহমান কোকোর অর্থ ফেরত আনা প্রসঙ্গে বিএনপি নেতাদের বক্তব্যের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন।
বৃহস্পতিবার দুদক চেয়ারম্যান গোলাম রহমান দাবি করেন, সোনালী ব্যাংকের মাধ্যমে বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার ছোট ছেলে আরাফাত রহমান কোকোর নামে সিঙ্গাপুরের ইউনাইটেড ওভারসিস ব্যাংকে থাকা ২০ লাখ ৪১ হাজার ডলার ফেরত এনেছে দুদক।
দুদক চেয়ারম্যানের এ দাবির পর তার বক্তব্যের কড়া সমালোচনা করেন বিএনপি নেতারা। বিএনপির আইনজীবী মাহবুব উদ্দিন খোকনের দাবি, ওই অর্থ কোকোর নয়। দুদকের বক্তব্য বিভ্রান্তিমূলক ও উদ্দেশ্যপ্রণোদিত। বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, অর্থ ফেরত আনার নামে ষড়যন্ত্র চলছে। বর্তমান দুদক সরকারের এজেন্ডা বাস্তবায়ন করতে বিএনপি নেতাদের চরিত্র হনন করছে। এসব বক্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে দুদক চেয়ারম্যান এক টেলিভিশন সাক্ষাত্কারে বলেন, কমিশন এই প্রথম বিদেশে পাচার করা অর্থ ফেরত নিয়ে এসেছে। কমিশন তার আইন অনুযায়ী স্বাধীনভাবে কাজ করছে। দুদক সরকার বা অন্য কারও আজ্ঞাবহ নয়। দুদকের কাজে কে কী বলল তাতে কমিশন চিন্তিত নয়।