Amardesh
আজঃঢাকা, শনিবার ২৪ নভেম্বর ২০১২, ১০ অগ্রহায়ণ ১৪১৯, ৯ মহররম ১৪৩৪ হিজরী    আপডেট সময়ঃ রাত ১২.০০টা
 
 সাধারণ বিভাগ
 বিশেষ কর্ণার
 শোক ও মৃত্যুবার্ষিকী
 সাপ্তাহিক
 
আবহাওয়া
 
 
আর্কাইভ: --
 

ছাত্র ও যুবলীগকে দিয়ে রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাস উস্কে দিচ্ছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী : জলিল

স্টাফ রিপোর্টার
« আগের সংবাদ
পরের সংবাদ»
জামায়াত-শিবিরকে প্রতিহত করা প্রসঙ্গে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ড. মহীউদ্দীন খান আলমগীরের বক্তব্যের তীব্র সমালোচনা করে আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য ও সাবেক মন্ত্রী আবদুল জলিল বলেছেন, জামায়াত-শিবিরকে প্রতিহত করতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অধীনে পুলিশ, র্যাব, বিডিআর ও প্রশাসন রয়েছে। সেখানে ছাত্র ও যুবলীগকে জামায়াত-শিবির প্রতিহত করতে বলে রাষ্ট্রীয়ভাবে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির আহ্বান করা হয়েছে। ছাত্র ও যুবলীগ নেতাকর্মীদের উদ্দেশ করে দলের সাবেক এ সাধারণ সম্পাদক বলেন, জামায়াত-শিবিরের সঙ্গে যুদ্ধে লিপ্ত হয়ে নয়; বরং মানুষের কাছে গিয়ে গণজাগরণের মাধ্যমে তাদের প্রতিহত করতে হবে। মানুষকে জামায়াত-শিবিরের কর্মকাণ্ড ও উদ্দেশ্য সম্পর্কে সচেতন করতে হবে।
গতকাল ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে বঙ্গবন্ধু একাডেমি আয়োজিত এক আলোচনা সভায় আবদুল জলিল আরও বলেন, প্রশাসন থাকতে এভাবে কাউকে কল (ডাক দেয়া) করাটা রাজনৈতিক বিবেচনায় গ্রহণযোগ্য হতে পারে না। জামায়াত-শিবিরকে পুলিশ প্রশাসন দিয়ে প্রতিহত করতে হবে।
খালেদা জিয়া-তারেকের মতো দুর্নীতিবাজের প্রশংসা করলেই তারেক পরিষ্কার হয়ে যাবে না মন্তব্য করে জলিল বলেন, তারেকের দুর্নীতি ও খালেদা সরকারের হাওয়া ভবন সম্পর্কে জনগণ জানে। খালেদা জিয়া যতই বলুক না কেন, জনগণ তা গ্রহণ করবে না। সুযোগ দিন দেশের চেহারা পাল্টে দেবে—এ প্রসঙ্গে বর্ষীয়ান এ নেতা বলেন, বিএনপির অতীত কর্মকাণ্ড ও বর্তমান সরকারের সফলতার কথা বিবেচনা করে কাকে সুযোগ দেবে, সে বিষয়ে স্বিদ্ধান্ত নেবে জনগণ।
এদিকে জাতীয় প্রেস ক্লাবে অপর এক অনুষ্ঠানে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতা মোহাম্মদ নাসিম বলেন, বিএনপি ক্ষমতায় এলে দেশে আবার জঙ্গি, সন্ত্রাস ও হাওয়া ভবনের সৃষ্টি হবে। আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এলে জঙ্গি ও সন্ত্রাস দমন করা হবে। জনগণকেই সিদ্ধান্ত নিতে হবে, আগামী দিনে তারা কাকে ক্ষমতায় বসাবে।
দেশের জনগণকে উদ্দেশ করে নাসিম বলেন, আমরা পথ দেখাতে পারি। দেশের জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাস, দুর্নীতির মাধ্যমে কোটি কোটি টাকা বিদেশে পাচার করতে চাইলে বিএনপিকে বেছে নিতে হবে। অন্যদিকে উন্নয়ন, শান্তি চাইলে আওয়ামী লীগকে ভোট দিয়ে পুনর্বার ক্ষমতায় বসাতে হবে। তিনি বলেন, পাঁচ বছরের মানুষের সব চাহিদা পূরণ করা সম্ভব নয়। তারপরও বিদ্যুত্ সঙ্কট সমাধানের পথে, বিশ্বমন্দা থাকা সত্ত্বেও বাংলাদেশ অর্থনীতি প্রবৃদ্ধিতে পঞ্চম স্থান অধিকার করেছে।
তারেক রহমানকে নিয়ে খালেদা জিয়ার বক্তব্যের সমালোচনা করে তিনি বলেন, দু’দিন আগে এক ছেলেকে সত্ বলে সার্টিফিকেট দিলেন। তার পরই আরেক ছেলের পাচার করা টাকা ফেরত এলো। লজ্জা-শরম থাকলে দেশের মানুষের কাছে ক্ষমা চান।
শেখ হাসিনা বঙ্গবন্ধুর পলাতক খুনিদের একমাত্র টাগের্ট—মন্তব্য করে তিনি বলেন, শেখ হাসিনা এমন একজন নেত্রী, যিনি পিতা-মাতাকে হারিয়ে দেশের জনগণের জন্য কাজ করছেন। জীবনের ঝুঁকি নিয়ে বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচার শুরু করেছেন। ঘাতকের বুলেট প্রতিনিয়ত শেখ হাসিনাকে তাড়া করে বেড়াচ্ছে। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর বেশ কয়েকজন খুনি বিদেশে পালিয়ে আছে। তারা দেশে-বিদেশে নানা রকম চক্রান্ত করছে।