Amardesh
আজঃঢাকা, শনিবার ২৪ নভেম্বর ২০১২, ১০ অগ্রহায়ণ ১৪১৯, ৯ মহররম ১৪৩৪ হিজরী    আপডেট সময়ঃ রাত ১২.০০টা
 
 সাধারণ বিভাগ
 বিশেষ কর্ণার
 শোক ও মৃত্যুবার্ষিকী
 সাপ্তাহিক
 
আবহাওয়া
 
 
আর্কাইভ: --
 

রাবি ভিসির বুলি : ‘আগে আপনারা দুর্নীতি করেছেন তাই এখনও হবে!’

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি
« আগের সংবাদ
পরের সংবাদ»
বিভিন্ন অনিয়ম-দুর্নীতি ও নিয়োগবাণিজ্যের ঘটনায় বাংলাদেশী জাতীয়তাবাদ ও ইসলামী মূল্যবোধে বিশ্বাসী শিক্ষক গ্রুপ সাদা দলের শিক্ষকদের তোপের মুখে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর এম আবদুস সোবহান বলেছেন, আগে আপনার এগুলো করেছেন, এখনও হবে। এ সময় তিনি শিক্ষকদের বিভিন্ন অভিযোগ অবলীলায় অস্বীকার করলে শিক্ষকরা ‘এই ভিসি মিথ্যুক, নিয়োগবাণিজ্যের হোতা’ বলে হৈচৈ করে উঠেন। গতকাল সন্ধ্যায় সিন্ডিকেট বৈঠক চলাকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের অনিয়ম-দুর্নীতি ও নিয়োগবাণিজ্যের প্রতিবাদ করতে গেলে তিনি এমন মন্তব্য করেন।
এ সময় সেখানে ভিসির সঙ্গে প্রোভিসি প্রফেসর মুহম্মদ নুরুল্লাহ, সিন্ডিকেট সদস্য চৌধুরী জুলফিকার মতিন সেখানে উপস্থিত ছিলেন।
জানা যায়, গতকাল বিকাল চারটায় ভিসির বাসভবনে সিন্ডিকেট বৈঠক শুরু হয়। ওই বৈঠকে বেশ কয়েকটি বিভাগের শিক্ষক নিয়োগ, সমাজকর্ম বিভাগে প্ল্যানিং কমিটি ছাড়াই শিক্ষক নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি দেয়াসহ বিভিন্ন বিষয়ে সিদ্ধান্ত হওয়ার কথা ছিল। খবরে গতকাল সন্ধ্যার দিকে সাদা দলের আহ্বায়ক প্রফেসর মু. আজহার আলীর নেতৃত্বে শতাধিক শিক্ষক ভিসির সঙ্গে সাক্ষাত্ করতে তার বাসভবনে যান। এ সময় শিক্ষকরা গত প্রায় চার বছরে তিনশ’রও বেশি দলীয় শিক্ষক নিয়োগ, মেধাবীদের বাদ দিয়ে তুলনামূলক কম যোগ্যদের অগ্রাধিকার দেয়া, নিয়োগবাণিজ্য করা, সমাজকর্ম বিভাগে প্রয়োজন না থাকলেও প্ল্যানিং কমিটির সিদ্ধান্ত ছাড়াই সিন্ডিকেটে শিক্ষক নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের সিদ্ধান্ত নেয়া, সরকারদলীয় ছাত্র সংগঠন কর্তৃক ক্যাম্পাসে শিক্ষকদের লাঞ্ছিত করা, অস্ত্রের প্রদর্শনসহ ভিসির বিভিন্ন অনিয়ম-দুর্নীতির প্রতিবাদ জানান। এ সময় শিক্ষকদের অভিযোগগুলো গুরুত্ব না দিয়ে হেসে উড়িয়ে দেন ভিসি। একপর্যায়ে সমাজকর্ম বিভাগের এক শিক্ষকের কথার প্রেক্ষিতে ভিসি বলেন, আগে আপনারা এসব করেছেন, এখনও হবে। এ সময় শিক্ষকরা ‘এই ভিসি মিথ্যুক, নিয়োগবাণিজ্যের হোতা’ বলে হৈচৈ করে ওঠেন। এতে শিক্ষকদের সঙ্গে ভিসির উত্তপ্ত বাক্য বিনিময় ও বাকবিতণ্ডা হয়।
এ সময় সাদা দলের আহ্বায়কসহ উপস্থিত ছিলেন প্রফেসর মু. রফিকুল ইসলাম, সি এম মোস্তফা, ড. আবুল হাশেম, ড. এফ নজরুল ইসলাম, ড. মো. আমজাদ হোসেন প্রমুখ।