Amardesh
আজঃঢাকা, শনিবার ২৪ নভেম্বর ২০১২, ১০ অগ্রহায়ণ ১৪১৯, ৯ মহররম ১৪৩৪ হিজরী    আপডেট সময়ঃ রাত ১২.০০টা
 
 সাধারণ বিভাগ
 বিশেষ কর্ণার
 শোক ও মৃত্যুবার্ষিকী
 সাপ্তাহিক
 
আবহাওয়া
 
 
আর্কাইভ: --
 

শাবিতে ছাত্রদের আবাসিক হলের কক্ষে ছাত্রীদের রাতযাপন!

শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি
« আগের সংবাদ
পরের সংবাদ»
সিলেটের শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনের কর্তাব্যক্তিরা যেন ক্ষমতার অপব্যবহারের প্রতিযোগিতায় নেমেছেন। তারা একের পর এক জন্ম দিচ্ছেন বিতর্কিত সব ঘটনার। এবার ছাত্রদের আবাসিক হলের একটি কক্ষে ছাত্রীদের রাত যাপনের সুযোগ করে দিয়ে ক্যাম্পাসে তোলপাড় তুলেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের দ্বিতীয় ছাত্র হলের প্রভোস্ট ড. আবুল হোসেন।
আজ বিশ্ববিদ্যালয়ের অনার্স ভর্তি পরীক্ষা শুরু হচ্ছে। এ উপলক্ষে ড. আবুল হোসেনের পরিচিত কয়েক ছাত্রীও গতকাল সিলিটে আসে। আর তিনি এসব ছাত্রীর রাতে থাকার জন্য বেছে নেন তার হলের (ছাত্রদের) একটি কক্ষ। আশপাশের কক্ষগুলোতে ছাত্রদের পাশাপাশি সেখানে ওই ছাত্রীরাও থাকবে। এ ঘটনায় ক্যাম্পাসে তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে।
সূত্র জানায়, গতকাল দুপুরে হলের পঞ্চম তলার ৫০১৫ নম্বর কক্ষে হঠাত্ ভর্তিচ্ছু ৪-৫ ছাত্রীকে দেখে বিস্মিত হয় হলের আবাসিক ছাত্ররা। পরে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, তারা প্রভোস্টের পরিচিত। তাই এখানে থাকবে।
খোঁজ নিয়ে আরও জানা গেছে, বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রীদের আবাসিক হল, ক্যাম্পাসের বাইরে অবস্থিত বিশ্ববিদ্যালয় নিয়ন্ত্রিত একাধিক ছাত্রী হোস্টেলে সবসময় পর্যাপ্ত সংখ্যক সিট খালি থাকে এবং এখনও আছে। ওসব জায়গায় ছাত্রীদের না উঠিয়ে ছাত্রদের হলে কেন উঠিয়েছেন, এমন প্রশ্নের উত্তরে আবুল হোসেন বলেন, ‘আমি কোথাও থাকার ব্যবস্থা করতে না পেরে ওই কক্ষে আমার স্ত্রীসহ কয়েকজনকে উঠেয়েছি। এটা নিয়ে আবার নিউজ কর না।’
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক শিক্ষক এ ঘটনা ছাত্রদের জন্য ‘অপরিণামদর্শী’ উল্লেখ করে বলেছেন, প্রশাসনের পূর্বানুমতি ছাড়া বহিরাগত যে কাউকে আবাসিক হলে উঠানো নিয়ম পরিপন্থী। তার ওপর আবার ছেলেদের হলে মেয়ে উঠানো বাংলাদেশের কোনো বিশ্ববিদ্যালয়ে এই প্রথম।