Amardesh
আজঃঢাকা, শনিবার ২৪ নভেম্বর ২০১২, ১০ অগ্রহায়ণ ১৪১৯, ৯ মহররম ১৪৩৪ হিজরী    আপডেট সময়ঃ রাত ১২.০০টা
 
 সাধারণ বিভাগ
 বিশেষ কর্ণার
 শোক ও মৃত্যুবার্ষিকী
 সাপ্তাহিক
 
আবহাওয়া
 
 
আর্কাইভ: --
 

স্বেচ্ছাসেবক দলের শোভাযাত্রা : সরকার জিয়া পরিবারের বিরুদ্ধে অপপ্রচারে নতুন ষড়যন্ত্রে লিপ্ত : বিএনপি

স্টাফ রিপোর্টার
« আগের সংবাদ
পরের সংবাদ»
বর্তমান সরকার জিয়া পরিবারের বিরুদ্ধে অপপ্রচারে নতুন ষড়যন্ত্র করছে বলে অভিযোগ করেছে বিএনপি।
গতকাল বিকালে জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবক দলের এক শোভাযাত্রা-পূর্ব সংক্ষিপ্ত সমাবেশে দলের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, তারেক রহমানকে রাজনীতি থেকে দূরে রাখার জন্য সরকার তার বিরুদ্ধে একের পর এক মামলা দিচ্ছে। জিয়ার ছোট ছেলে আরাফাত রহমান কোকোর বিরুদ্ধে আজ মিথ্যা অপপ্রচার চালানো হচ্ছে। তাকে দেশের বাইরে রেখে তার বিরুদ্ধে বিচারের নামে প্রহসন করা হচ্ছে।
তিনি মনে করেন, জনগণের দৃষ্টি ভিন্ন দিকে প্রবাহিত করতে সরকার জিয়া পরিবারের বিরুদ্ধে অপপ্রচারে এই নতুন ষড়যন্ত্র শুরু করেছে।
নয়া পল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে থেকে স্বেচ্ছাসেবক দল তারেক রহমানের ৪৮তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের করে। কাকরাইল থেকে ফকিরেরপুল পর্যন্ত দীর্ঘ সড়কে সংগঠনটির হাজার হাজার নেতাকর্মী বর্ণিল সাজে এই শোভাযাত্রায় অংশ নেন। ঘোড়ার গাড়ি, ব্যান্ড সঙ্গীত দলসহ বর্ণিল পোশাক ও হলুদ টুপি মাথায় নিয়ে কর্মীদের হাতে ছিল তারেক রহমানের প্রতিকৃতি। বেলুন ও সাদা কবুতর উড়িয়ে জন্মদিনের এই শোভাযাত্রার শুভ উদ্বোধন করেন ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব। শোভাযাত্রাটি কাকরাইল, শান্তিনগর, মালিবাগ, মৌচাক হয়ে মগবাজারে গিয়ে শেষ হয়। মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, বাংলাদেশসহ বিশ্বে গত কয়েক দিন ধরে আমাদের নেতা তারেক রহমানের জন্মদিন অনাড়ম্বরভাবে পালন করা হচ্ছে। দেশের গণতন্ত্রকামী মানুষ যখন বিএনপির পতাকাতলে ঐক্যবদ্ধ হচ্ছে, ঠিক তখন সরকার নতুন করে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়েছে। জাতীয়তাবাদী নেতৃত্বের বিরুদ্ধে মিথ্যা অপপ্রচার চালাচ্ছে।
সরকারের দুর্নীতির চিত্র তুলে ধরে তিনি বলেন, ক্ষমতাসীনদের লোকজন হলমার্ক, ডেসনিটি ও পুঁজিবাজার থেকে লাখ লাখ কোটি টাকা পাচার করে নিয়ে গেছে, কিন্তু ওইসব অর্থ কেলেঙ্কারির কোনো বিচার হয়নি। কেবল তাই নয়, তারা (সরকার) সংবিধান সংশোধন করে দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচন করতে চায়। তারা দেশকে সংঘর্ষের দিকে ঠেলে দিচ্ছে।
আগামী ২৮ নভেম্বর ঢাকার জনসভা সফল করার আহ্বান জানিয়ে ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, গণতন্ত্রকে মুক্ত করতে হলে এই সরকারকে হটানো ছাড়া কোনো বিকল্প নেই। ঢাকার জনসভা থেকে দেশনেত্রী ফ্যাসিবাদী সরকারকে হটাতে নতুন কর্মসূচি ঘোষণা করবেন।
সংগঠনের সভাপতি হাবিব-উন নবী খানের সভাপতিত্বে এই সংক্ষিপ্ত সমাবেশে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস, ব্যারিস্টার রফিকুল ইসলাম মিয়া, স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক মীর সরফত আলী সপু, সাংগঠনিক সম্পাদক শফিউল বারী বাবু প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।
শোভাযাত্রায় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস, যুগ্ম মহাসচিব আমানউল্লাহ আমান, বরকত উল্লাহ বুলু, সালাহউদ্দিন আহমেদ, ড. আসাদুজ্জামান রিপন, হাবিবুর রহমান হাবিব, মহানগর সদস্য সচিব আবদুস সালাম, ছাত্রদলের সভাপতি আবদুল কাদের ভূঁইয়া জুয়েল, স্বেচ্ছাসেবক দলের সিনিয়র নেতা মুনীর হোসেন, ডা. সালাহউদ্দিন মোল্লা, আলী রেজাউর রহমান রিপন, ইয়াসীন আলীম, সাইফুল ইসলাম পটু, গোলাম সারওয়ার, হারুনুর রশীদ, মারুফ আল হাসান, পারভেজ আল বাকী, আনু মোহাম্মদ শামীম, ওয়াহিদ বিন ইমতিয়াজ বকুল, কামরুজ্জামান দীপক, লিটন মাহমুদ, রফিক হাওলাদার, আখতারুজ্জামান বাচ্চু প্রমুখ অংশ নেন।