সুরঞ্জিতের পর্যবেক্ষণ : ‘চালনি বলে সুই তোর পাছন ফুটা’

স্টাফ রিপোর্টার « আগের সংবাদ
পরের সংবাদ» ২৩ নভেম্বর ২০১২, ০৯:৩১ পূর্বাহ্ন

বাংলাদেশের রাজনীতিতে সুরঞ্জিত সেনগুপ্তকে কে না চেনে! প্রবীণ এ সংসদ সদস্য জাতীয় বিভিন্ন ইস্যুতে বক্তব্য দিয়ে আসর বাজিমাত করতে একসময় ছিলেন সিদ্ধহস্ত। বাম রাজনীতি থেকে আওয়ামী লীগে যোগদান করার পর জাতীয় রাজনীতিতে আগের চেয়েও বেশি সরব হয়ে ওঠেন। মহাজোট সরকার ক্ষমতায় আসার পর তার বক্তৃতা-বিবৃতি হয়ে ওঠে ‘এককাঠি সরস’। তবে বিপত্তি ঘটে রেলমন্ত্রী হওয়ার পর। রেলমন্ত্রী হয়েই তিনি খুঁজতে থাকেন রেলের কালো বিড়াল। কিন্তু একদিন তিনি নিজেই কালো বিড়ালের খ্যাতি পেয়ে বসলেন। রেলের নিয়োগবাণিজ্যের কেলেঙ্কারিতে জড়িয়ে পড়েন মন্ত্রী। এপিএসের অর্থ কেলেঙ্কারি বললেও আঙুল উঠেছে কিন্তু মন্ত্রীর দিকে। এরপর এপিএস ফারুকের ড্রাইভার বেসরকারি টিভি চ্যানেল আরটিভিতে সাক্ষাত্কার দিয়ে বলেছে, ওই অর্থ যাচ্ছিল
মন্ত্রীর বাসায়।
রেলের অর্থ কেলেঙ্কারির পর সুরঞ্জিত সেন পরিণত হন বস্তাপচা রাজনীতিকে। তার কথা নিয়ে কেউ আর মাথা ঘামায় না। তিনি কিছু বললেই পাল্টা জনগণের মন্তব্য—চোর আবার কী বলে! সেই সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত খালেদা জিয়াকে লক্ষ্য করে
বক্তব্য দেন। তিনি তারেক রহমানের সততা নিয়ে তার মা খালেদা জিয়া যে বক্তব্য দিয়েছেন, তাকে কৌতুতকর বলে মন্তব্য করেন। কথায় আছে না, ‘চালনি বলে সুই তোর পাছন ফুটা’।

সাপ্তাহিকী


উপরে