Amardesh
আজঃঢাকা, সোমবার ৩০ জুলাই ২০১২, ১৫ শ্রাবণ ১৪১৯, ১০ রমজান ১৪৩৩    আপডেট সময়ঃ রাত ১২.০০ টায়
 
 সাধারণ বিভাগ
 বিশেষ কর্ণার
 শোক ও মৃত্যুবার্ষিকী
 সাপ্তাহিকী
 
আবহাওয়া
 
 
আর্কাইভ: --
 

জাতীয় পার্টির এমপিকে বিবস্ত্র করে জিম্মি : ৩ নারীসহ ৫ জন আটক

ডেস্ক রিপোর্ট
« আগের সংবাদ
সাতক্ষীরা-২ আসন থেকে নির্বাচিত জাতীয় পার্টির এমপি এম এ জব্বারকে নগ্ন করে এক নগ্ন নারীর সঙ্গে ভিডিও চিত্র তুলতে বাধ্য করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। ঢাকা মহানগর পুলিশ ডিএমপির এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে গতকাল জানানো হয়েছে। এ অভিযোগে পুলিশ ৩ নারীসহ পাঁচজনকে গ্রেফতার করেছে।
গ্রেফতারকৃতরা হলো, মেহেরুন্নেছা, শাহনাজ জামান ওরফে জুঁই, কোহিনূর আক্তার ওরফে বৃষ্টি, সোহরাব হোসেন ও আসাদুজ্জামান।
ডিএমপি সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে আরও জানানো হয়, গত ১৬ মে বিকাল সাড়ে ৫টায় গুলশানে এমপির মালিকানাধীন ৪২, গুলশান এভিনিউর অফিসে ঘটনা ঘটে। মেহেরুন্নেছা ও শাহনাজ জামান ওরফে জুঁই বৃষ্টি ওরফে কোহিনূরকে সঙ্গে নিয়ে এমপির অফিসে ঢোকে। বৃষ্টি নিজেকে সরকারি উচ্চ মহলের আত্মীয় পরিচয় দিয়ে চাকরি দেয়ার জন্য আলাপ শুরু করে। এ সময় তাদের সহযোগী অপু ওরফে সোহরাব হোসেন, রাসেল ও আসাদুজ্জামান সুযোগ বুঝে অফিসের ভেতর ঢুকে দরজা বন্ধ করে দেয় এবং তাকে জিম্মি করে ফেলে।
এ সময় বৃষ্টি ওরফে কোহিনূর বিবস্ত্র হয়ে এমপির পাশে দাঁড়ায়। চক্রের বাকি সদস্যরা এমপিকে হত্যার হুমকি দিয়ে বিবস্ত্র হতে বাধ্য করে। ওই অবস্থায় দু’জনের বিবস্ত্র ভিডিও চিত্র ধারণ করে তারা। এরপর ভিডিও চিত্রটি ছড়িয়ে দেয়ার ভয় দেখিয়ে তাত্ক্ষণিকভাবেই তার কাছে ৫০ লাখ টাকা দাবি করা হলে এমপি তখনই ১৮ লাখ টাকা দেন। ডিএমপির সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, পরে এসব আসামি আবার মোবাইলের মাধ্যমে ও নিজেরা সশরীরে এমপির অফিসে হাজির হয়ে আরও ২ কোটি টাকা দাবি করলে একপর্যায়ে বিষয়টি ঢাকা মেট্রোপলিটান গোয়েন্দা (দক্ষিণ) বিভাগের নজরে আসে। শনিবার রাতে ডিবির সিনিয়র সহকারী কমিশনার আবদুল আহাদের নেতৃত্বে একটি দল ওই পাঁচজনকে গ্রেফতার করে। গ্রেফতারকৃত আসামি অপু ওরফে সোহরাব হোসেনের কাছ থেকে একটি নগ্ন ভিডিও সংবলিত পেন ড্রাইভ, হুমকির কাছে ব্যবহৃত ৩টি মোবাইল, একটি ল্যাপটপ, একটি ভিডিও ক্যামেরা এবং নগদ ১ লাখ ৮৬ হাজার টাকা উদ্ধার করে।
সাতক্ষীরার একটি সূত্র জানিয়েছে, ব্ল্যাকমেইলকারীরা নগ্ন ভিডিওর সিডি করে রাজনৈতিক প্রতিপক্ষের অর্থের বিনিময়ে তুলে দেয়ার অফার দিয়েছিল। কিন্তু তারা তাতে সায় দেননি।
ডিবির সিনিয়র সহকারী কমিশনার আবদুল আহাদ সাংবাদিকদের গ্রেফতার হওয়া ৫ জনকে জিজ্ঞাসাবাদ করে জানান, তারা আরও কয়েকজন ধনাঢ্য ব্যবসায়ী ও প্রতিষ্ঠিত ব্যক্তিকে এভাবে জিম্মি করে টাকা আদায় করেছে। গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে গুলশান থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। ডিবি সূত্র জানায়, গতকাল আদালত তাদের দু’দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন।